শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ০৬ কার্তিক ১৪২৮, ১৪ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

মহানগর

করোনা পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যসম্মত ও নারীবান্ধব কাঁচা বাজার করার তাগিদ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৩০ আগস্ট, ২০২১, ৯:০৭ পিএম

নগরীর অধিকাংশ কাঁচা বাজারসমূহে অস্বাস্থ্যকর ও নোংরা পরিবেশ বিরাজ করছে। এইসব বাজারে নারীদের জন্য নেই সুন্দর পরিবেশে আলাদাভাবে বাজার করার ব্যবস্থা। এমনকি অধিকাংশ বাজারে নারীদের জন্য পৃথক টয়লেটের ব্যবস্থা লক্ষ্য করা যায় না। করোনা পরিস্থিতিতে এসব বিষয় নিশ্চিত করা জরুরি। অন্যথায় ভবিষ্যতে বাজারসমূহে ভোক্তাদের মাঝে কোভিড-১৯ এর সংক্রমণ ঝুঁকি আরও বাড়ার আশঙ্কা রয়েছে।

সম্প্রতি রাজধানীর একটি হোটেলে আয়োজিত আলোচনা সভায় সংশ্লিষ্টরা এই অভিমত তুলে ধরেন। সুইজারল্যান্ড ভিত্তিক আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংস্থা গ্লোবাল অ্যালায়েন্স ফর ইমপ্রুভড নিউট্রিশন (গেইন)-এই সভার আয়োজন করে। এর মূল উদ্দেশ্য ছিলো-কাঁচা বাজারের নিয়মিত ভোক্তাদের সম্পৃক্তকরণের মাধ্যমে স্বাস্থ্যসম্মত কাঁচা বাজারের গুরুত্ব তুলে ধরা ও ‘সেরা ভোক্তা’ পুরস্কার বিতরণ।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন (ডিএসসিসি)-এর প্রধান নির্বাহী মো. ফরিদ আহম্মেদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন ডিএসসিসি-এর প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার ড. শরীফ আহম্মেদ।

বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ-এর সদস্য অধ্যাপক ড. আব্দুল আলিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে আরও বক্তব্য রাখেন ডিএসসিসির (অঞ্চল-৩) এর আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা বাবর আলী মীর, কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান (স্বাস্থ্য বিভাগ) এর যুগ্ম মহাপরিদর্শক ড. মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মৎস্য বিভাগের অধ্যাপক ড. রোকনুজ্জামান, গেইন বাংলাদেশ-এর কান্ট্রি ডিরেক্টর ডা. রুদাবা খন্দকার, বেসরকারী সংস্থা উন্নয়ন সংঘের আওতাধীন ইটসেইফ প্রকল্পের পরিচালক মো. সাখাওয়াত হোসেন।

অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন গেইন বাংলাদেশ-এর ইটসেইফ প্রকল্পের লিড জিএম রেজা সুমন ।

সভায় বক্তারা-এই মহামারীর চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় কাঁচা বাজারসমূহে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা ও পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখার উপর গুরুত্ব আরোপ করেন।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, ঢাকা শহরের অধিকাংশ কাঁচা বাজার অস্বাস্থ্যকর এবং দুর্বল অবকাঠামো বিদ্যমান। এজন্য এসব বাজারে আলো বাতাস সহজে প্রবেশ করতে পারেনা। তদুপরি সরু রাস্তার কারণে ভিড়ের মধ্যে ভোক্তারা বাজার করতে বাধ্য থাকেন। ফলে ইচ্ছা করলেও করোনা পরিস্থিতিতে নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখা সম্ভব হয় না। যা কোভিড-১৯ এর ঝুঁকি ও সংক্রমণ বাড়িয়ে তোলে।

মো. ফরিদ আহম্মেদ বলেন, গেইন বাংলাদেশের সহযোগিতায় ইটসেইফ প্রকল্প নগরীর দুটি কাঁচা বাজারে ভোক্তাদের সম্পৃক্তকরণের মাধ্যমে কোভিড-১৯ মহামারীকালীন সময়ে প্রশংসনীয় কাজ করছে। স্বাস্থ্যসম্মত কাঁচা বাজার গড়ে তুলতে এটি অত্যন্ত কার্যকরী একটি উদ্যোগ।

তিনি আরও বলেন, স্বাস্থ্যসম্মত কাঁচা বাজারে পুষ্টিকর ও নিরাপদ খাদ্য সরবরাহ করতে প্রান্তিক পর্যায়ের উৎপাদনকারী ও কৃষকদের সচেতন করা প্রয়োজন।

সভায় রাজধানীর নিউমার্কেটের বনলতা কাঁচা বাজার ও ইসলামবাগ সিটি কর্পোরেশন কাঁচা বাজারের ১০ জন নির্বাচিত ভোক্তাকে স্বাস্থ্যসম্মত কাঁচা বাজারের বিষয়ে ভালো ধারণা প্রদানের জন্য পুরস্কার প্রদান করা হয়।

প্রসঙ্গত: কোভিড-১৯ পরিস্থিতি মোকাবেলা করার লক্ষ্যে গেইন বাংলাদেশ- এর সহযোগিতায় বাজারসমূহে ভোক্তার সুরক্ষা ও বাজারে টেকসই পুষ্টিকর ও নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে ‘ইটসেইফ: এভিডেন্স অ্যান্ড অ্যাকশন টুওয়ার্ডস সেইফ, নিউট্রিশাস ফুড’ শীর্ষক প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে বেসরকারি সংস্থা উন্নয়ন সংঘ। এর আর্থিক সহযোগী হিসেবে রয়েছে-ইউএসএআইডি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন