শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ৩১ আশ্বিন ১৪২৮, ০৮ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

নতুন প্রজন্মকে যুদ্ধে পাঠাব না

আফগান যুদ্ধ শেষে বাইডেন

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১২:০২ এএম

গত ৩০ আগস্ট আফগানিস্তান থেকে শেষ মার্কিন সেনা প্রত্যাহার করা হয়। এর মধ্যে দিয়ে আমেরিকার ২ বছরের আফগান যুদ্ধের অবসান ঘটে। এরপরে যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় ৩১ আগস্ট জাতির উদ্দেশে দেয়া বক্তৃতায় প্রেসিডেন্ট বাইডেন মার্কিন সেনা প্রত্যাহার নিয়ে তার আগের অবস্থান পুনর্ব্যক্ত করেন। আফগান যুদ্ধের আনুষ্ঠানিক সমাপ্তি ঘটেছে বলে তিনি তার বক্তৃতায় ঘোষণা দেন। তার বক্তব্য, পরবর্তী প্রজন্মকে যুদ্ধে পাঠাতে চান না তিনি। মার্কিন নাগরিকদের উদ্দেশে বার্তা দিতে গিয়ে বাইডেন বলেন, ‘আফগানিস্তানে যুদ্ধ এবার শেষ হয়েছে। আমি মনে করি এটা একদম সঠিক ও সেরা সিদ্ধান্ত। আমি চতুর্থ মার্কিন প্রেসিডেন্ট যে কি না এই বিষয়টির সঙ্গে মুখোমুখি হয়েছে। কীভাবে যুদ্ধ শেষ হবে, সেই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে হয়েছে আমাকে। আমি আমেরিকাবাসীকে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম, এই যুদ্ধ আমি শেষ করব। আমি সেই প্রতিশ্রুতিকে সম্মান জানিয়েছি। নতুন প্রজন্মের ছেলে-মেয়েদের আর যুদ্ধে পাঠাতে চাই না আমি। অন্য দেশগুলোকে নতুন করে গড়ার চেষ্টায় সেনা অভিযানের যুগ শেষ হল।’

সেনা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্তের সময়সীমা নিয়ে বাইডেন বলেন, ‘সেনা প্রত্যাহার করার এই সিদ্ধান্তের সম্পূর্ণ দায়িত্বভার আমি নিচ্ছি। অনেকেই বলছেন, আমাদের এই কাজটা আগেই শুরু করা উচিত ছিল। আমি সম্মানের সঙ্গে জানাচ্ছি, আমি তাদের সঙ্গে একমত নই। এটা যদি আগে করা হত তাহলে তাড়াহুড়ো হয়ে যেত বা বিষয়টি গৃহযুদ্ধের দিকে গড়াতে পারত।’ তিনি বলেন, ‘আমাদের নাগরিকদের সঙ্গে জড়িয়ে থাকা গুরুত্বপূর্ণ জাতীয় স্বার্থের কথা ভেবেই আমি এ যুদ্ধ চালিয়ে যাওয়ার পক্ষে মত দিতে পারছি না। বিগত দুই দশকে ৮ লাখ মার্কিন নাগরিক আফগানিস্তানে থেকেছেন। মোট ২০ লাখ ৭৪৪ জন মানুষ এই সময়কালে আহত হয়েছেন। ২ হাজার ৪৬১ জন সেনা সদস্য মারা গিয়েছেন। এর মধ্যে শুধুমাত্র গত সপ্তাহেই ১৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। আফগানিস্তানে আরও একটা দশক যুদ্ধ হোক, এতে আমি আর রাজি নই।’

বাইডেন বলেন, যারা আমেরিকার ও তার মিত্রদের ক্ষতি করতে চায়, তাদের জন্য বার্তা হলো—আমেরিকা কখনো বিশ্রাম নেবে না। আমেরিকা কখনো ভুলে যাবে না। কখনো ক্ষমা করবে না। ইসলামিক স্টেটের আফগান শাখা (আইএস-কে) মার্কিন সেনাদের ওপর হামলার দায় স্বীকার করেছে। এ প্রসঙ্গে বাইডেন বলেন, সময় বদলে গেছে। এখন মাটিতে পা না রেখেও দিগন্তজুড়ে বিরাজমান শক্তি ব্যবহার করে শত্রুদের মোকাবিলা করতে সক্ষম আমেরিকা। আইএস-কে’র নাম উল্লেখ করে হুঁশিয়ারি দিয়ে বাইডেন বলেন, তাদের সঙ্গে আমেরিকার বোঝাপড়া এখনো শেষ হয়ে যায়নি।

যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্রদের শত্রুদের হুঁশিয়ার করে প্রেসিডেন্ট বাইডেন বলেন, ‘আমরা শেষ সীমানা পর্যন্ত তাড়া করব। আমেরিকার জন্য যারা হুমকি, তাদের প্রকৃত মূল্য দিতে হবে।’ সময়ের পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে আমেরিকার প্রতিদ্ব›দ্বী চীন ও রাশিয়া বিভিন্নভাবে শক্তি সঞ্চয় করছে বলে বাইডেন তার বক্তৃতায় উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, সাইবার হামলার মতো হুমকি এখন আমেরিকাকে মোকাবিলা করতে হচ্ছে। তবে যুক্তরাষ্ট্র প্রযুক্তিগত উন্নয়নে অনেক বেশি শক্তিশালী বলে উল্লেখ করেন বাইডেন।

বাইডেনের প্রতিশ্রুতি মতো নির্দিষ্ট সময়সীমা পেরোনোর আগেই আফগানিস্তান ছেড়ে চলে গিয়েছে আমেরিকার সেনা। এত কম সময়ের মধ্যে দেশের ইতিহাসে সবচেয়ে কঠিন ও বৃহত্তম উদ্ধার অভিযানের জন্য সেনাবাহিনীর ঢালাও প্রশংসা করেছেন প্রেসিডেন্ট। তার বক্তব্য, এত কম সময়ের মধ্যে প্রায় এক লক্ষ কুড়ি হাজার আমেরিকান নাগরিককে উদ্ধার করে আনা মোটেও সহজ কাজ ছিল না। পেশাদারিত্বের চূড়ান্ত নিদর্শন দেখিয়েছে আমেরিকান বাহিনী।

সেনার প্রশংসা শোনা গিয়েছে আমেরিকার প্রতিরক্ষাসচিব লয়েড অস্টিনের গলাতেও। তিনিও বলেছেন, ‘অন্য কোনও দেশের সেনাবাহিনীর পক্ষে এত কম সময়ে এই কাজ করা সম্ভব ছিল না। আমার চার দশকের কর্মজীবনে এই সময়ের মধ্যে এত বিরাট মাপের উদ্ধার অভিযান আমি দেখিনি।’ তালিবানকে কড়া বার্তা দিয়েছেন আমেরিকান বিদেশসচিব অ্যান্টনি বিøঙ্কেন। আফগানিস্তান থেকে আমেরিকান সেনা প্রত্যাহারের পরেই তিনি বলেছেন, ‘সরকারের স্বীকৃতি পেতে গেলে সেটা তালিবান নেতৃত্বকে অর্জন করতে হবে। নিজেদের দেওয়া প্রতিশ্রুতি রাখতে হবে। গোটা বিশ্বকে দেখাতে হবে যে, আফগানিস্তানে মেয়েদের বা সংখ্যালঘুদের অধিকার লঙ্ঘিত হচ্ছে না।’

বিøঙ্কেন জানিয়েছেন, সামরিক মিশন শেষে আপাতত আফগানিস্তান থেকে সব রকমের ক‚টনৈতিক মিশনও সরিয়ে নিচ্ছেন তারা। পরিবর্তে কাতারে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে তাঁদের ক‚টনৈতিক মিশন। মোটামুটি ভাবে দেশের বেশির ভাগ নাগরিককে আফগানিস্তান থেকে উদ্ধার করা সম্ভব হলেও এখনও সে দেশে দু’শোর একটু কম সংখ্যক আমেরিকান রয়ে গিয়েছেন বলে জানিয়েছেন বিøঙ্কেন। তারা দেশে ফিরতে চাইলে তাঁদেরও ফেরানো হবে বলে জানিয়ে রেখেছেন বিøঙ্কেন। সূত্র : ডন, নিউইয়র্ক টাইমস।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (10)
Jui Labonno ২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১২:৪৮ এএম says : 0
এত ভঙ্গিমা করে লাভ নেই, ক্ষমতার প্রমাণ হয়েছে সুপারপাওয়ার কারা সেটা প্রমাণিত, সুপারপাওয়ার তারাই যারা ন্যায়ের পক্ষে এবং আল্লাহ ভীরু,,
Total Reply(0)
Hm Nasim Akter ২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১২:৪৯ এএম says : 0
যুদ্ধ কোনো সমাধান হতে পারে না
Total Reply(0)
Razu Ahmed ২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১২:৪৯ এএম says : 0
মাইরের উপর ঔষধ নাই
Total Reply(0)
Md Abu Hanif Hanif ২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১২:৪৯ এএম says : 0
বাইডেন কে শান্তিতে নোবেল দেওয়া হোক
Total Reply(0)
Main Uddin ২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১২:৪৯ এএম says : 0
জোবাইডেন সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সঠিক করেছেন।
Total Reply(0)
মোহাম্মদ সজীব ২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১২:৫০ এএম says : 0
কেয়ামত পর্যন্তও যদি আফগানিস্তানের মাটিতে মার্কিন সেনারা থাকে তবু পরিশেষে তালেবানদের বিজয় হবে। প্রেসিডেন্ট মহোদয় উপলব্ধি করেছেন। তাই সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ।।
Total Reply(0)
মোঃ+দুলাল+মিয়া ২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ২:৩১ এএম says : 0
আর আপনারা আমেরিকার কি দরকার পুরে বিশ্বে মাতব্বরি করার ,যদি কেউ সাহায্য চায় তাদের সহযোগিতা করুন,কিন্তু অস্রে এবং সেনা দিয়ে নয়,যে ভাবে একটি দেশ উন্নয়ন শীল হবে সেটা করুন,সেটাই হবে মহত্ কাজ,কিন্তু সেনা অস্রে দিয়ে জনগণ কে হত্যা করবেন সেটা মহত্ কাজ নয়,আপনারা যদি দরিদ্র দেশ ও তাদের জনগণ কে সহযোগিতা করেন সেটাই আপনাদের ইজ্জত এবং সম্মান,অস্রে সেনা দিয়ে ইজ্জত পাওয়া যায় না।
Total Reply(0)
Jahangir alom ২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৩:৫১ এএম says : 0
Shikkha hoise
Total Reply(0)
Md. Akbar Ali Sheikh ২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৭:৫০ এএম says : 0
যুদ্ধের মনোভাব পরিহার করুন............
Total Reply(0)
Md. Akbar Ali Sheikh ২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৭:৫২ এএম says : 0
ধন্যবাদ পাওয়ার মতো.........
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন