রোববার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ০৮ কার্তিক ১৪২৮, ১৬ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

গরম পানি ঢেলে গৃহবধূকে ঝলসে দিলো গ্রাম পুলিশ

ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৭:৩৭ পিএম

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে গ্রামপুলিশের বিরুদ্ধে গৃহবধূকে গরম পানি ঢেলে শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। বিষয়টি নিয়ে বৃহস্পতিবার থানায় ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। গুরুতর আহত ওই গৃহবধূ বর্তমানে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

জানা যায়, উপজেলার উচাখিলা গ্রামের মনির হোসেনের স্ত্রী রোকসানা খাতুন গৃহপালিত ২টি মোরগ বিক্রি করার জন্য গত বুধবার ভ্যানগাড়ি করে স্থানীয় উচাখিলা বাজারে যায়। এসময় পার্শ্ববর্তী মঘা গ্রামের এমদাদুল হকের ওই বাজারের চায়ের দোকানের সামনে জনৈক মুরগির পাইকার মুরগি ক্রয়ের জন্য রোকসানার ভ্যান থামায় এবং দর কষাকষি করে। পরে দোকানের সামনে ভিড় জমে যাওয়ায় এমদাদুল হকের ছেলে গ্রামপুলিশ শাকিল ও রোকসানার মধ্যে ঝগড়া শুরু হয়। এমন সময় শাকিল দোকান থেকে দা নিয়ে রোকসানার মাথায় কোপ দেয় ও দোকানের চায়ের কেটলিতে রাখা ফুটন্ত পানি শরীরে ঢেলে দিলে শরীরের বিভিন্ন অংশ ঝলসে যায়। এসময় রোকসানার আর্তচিৎকারে স্থানীয়রা রোকসানাকে উদ্ধার করে ঈশ্বরগঞ্জ হাসপাতালে নিয়ে আসে। এসময় রোকসানার অবস্থার আরো অবনতি হলে সেখান থেকে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে গ্রামপুলিশ শাকিল মিয়া তার বিরুদ্ধে অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, রোকসানার উপর আমি নির্যাতন করিনি। রোকসানা আমার উপর কেটলির গরম পানি ঢালতে চাইলে তার শরীরে পড়ে ঝলসে যায়। তার লোকজনও আমার বাড়িঘরে হামলা করেছে।

ঈশ্বরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল কাদের মিয়া জানান, অভিযোগ পেয়েছি, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. জাকির হোসেন বলেন, লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। গৃহবধূর জখম দেখে প্রাথমিকভাবে ওই গ্রামপুলিশের বেতন বন্ধসহ বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন