রোববার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ০৮ কার্তিক ১৪২৮, ১৬ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

৮০ ভাগের বেশি মেডিক্যাল শিক্ষার্থীকে টিকা দেয়া হয়েছে

‘স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের টিকা নিয়ে আজ আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠক সাংবাদিকদের স্বাস্থ্যমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১২:০৩ এএম

স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যসুরক্ষা ও টিকার বিষয়ে আজ রোববার আন্তঃমন্ত্রণালয় বৈঠক হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। তিনি বলেন, চিকিৎসার সঙ্গে যুক্ত ৮০ শতাংশের বেশি শিক্ষক-শিক্ষার্থীকে ইতোমধ্যেই টিকার আওতায় আনা হয়েছে। টিকা প্রাপ্তির ভিত্তিতে পর্যায়ক্রমে বাকিদেরও টিকা নিশ্চিত করা হবে।
গতকাল তেজগাঁও সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে (ডিপ্লোমা ইন নার্সিং সায়েন্স অ্যান্ড মিডওয়াইফারি কমপ্রিহেনসিভ) পরীক্ষা পরিদর্শনে গিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক সাংবাদিকদের এ কথা বলেন। পরিদর্শনকালে স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগের সচিব আলী নূর, স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক প্রফেসর ডা. এবিএম খুরশীদ আলমসহ অন্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, আমেরিকায় শিক্ষাথীদের মডার্না আর ফাইজার ভ্যাকসিন দেয়া হচ্ছে, বাংলাদেশও সেই পথে এগুতে চায়। ১৮ বছরের ঊর্ধ্বে যাদের বয়স তাদের যেকোনো টিকা দেয়া যাবে। তবে এর নিচে যাদের বয়স তাদের বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পরামর্শ অনুযায়ী ফাইজার বা মর্ডানার টিকা দেয়া হবে। তিনি বলেন, ইতোমধ্যেই মেডিক্যাল শিক্ষার্থীদের ৮০ ভাগের বেশি টিকা পেয়েছেন। প্রায় সব শিক্ষকদেরও টিকা দেয়া শেষ। সে কারণে আগামী ১৩ সেপ্টেম্বর থেকে মেডিক্যাল কলেজ খুলতে সমস্যা হবে না। চীনের কাছে নতুন করে ছয় কোটি ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কাছে সাড়ে ১০ কোটি টিকা কেনার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। একই সঙ্গে ভ্যাকসিন অ্যালায়েন্স কোভ্যাক্স সুবিধার আওতায় টিকাও আসবে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, আগামী বছরের জানুয়ারি নাগাদ এসব টিকা পাওয়ার আশা করা হচ্ছে। এই সাড়ে ১৬ কোটি টিকা পেলে আগামী বছরের শুরুর দিকেই দেশের অধিকাংশ মানুষের জন্যই টিকা সংকট কেটে যাবে। এরমধ্যে চীন থেকে ক্রয় করা ৬ কোটি ডোজ টিকার মধ্যে প্রতিমাসে ২ কোটি ডোজ করে আগামী তিনমাসে এই টিকা দেশে পৌঁছাবে।

গণটিকাদান কর্মসূচিতে প্রথম ডোজ পাওয়া ব্যক্তিদের বিষয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, টিকা ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে যাদের প্রথম ডোজ দেয়া হয়েছে, তারা দ্বিতীয় ডোজও সময়মতো পাবেন। প্রথম ডোজ যে কেন্দ্রে দেয়া হয়েছে, সেই কেন্দ্রেই দ্বিতীয় ডোজ দেয়া হবে। গ্রামে বাস করা মানুষের মধ্যে আগে টিকা নেয়ার আগ্রহ কম ছিল। আমরা তাদের অনুপ্রাণিত করতেই এই টিকা কার্যক্রমের কর্মসূচি হাতে নিয়েছিলাম। সেক্ষেত্রে আমরা গ্রামের মানুষের মনেও টিকার গ্রহণযোগ্যতা তৈরি করতে সক্ষম হয়েছি।

মেডিক্যালের বাইরে অন্যন্য শিক্ষার্থীদের কোন প্রক্রিয়ায় টিকা দেয়া হবে জানতে চাইলে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, সে বিষয়ে ৫ সেপ্টেম্বর একটি আন্তঃমন্ত্রণালয়ের বৈঠকের মাধ্যমে সম্মিলিতভাবেই সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

দেশে নার্সের সংখ্যা তুলনামূলক কম জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশনা অনুযায়ী একজন চিকিৎসকের পরিবর্তে তিনজন নার্স দরকার। এদিক থেকে আমরা কিছুটা পিছিয়ে আছি। সরকারিভাবে ও বেসরকারি মিলে বর্তমানে দেশে প্রায় ৭০ হাজার নার্স রয়েছে। নার্সের সংখ্যা আরও কম ছিল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ নিয়ে এটি বাড়াতে বাড়াতে এখন চিকিৎসকের সমান করা হয়েছে। আমাদের পরিকল্পনা অনুযায়ী চিকিৎসক যে কয়জন আছে, তার তিনগুণ নার্স করা হবে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার গাইডলাইন অনুযায়ী নার্সের সংখ্যা বাড়ানো হবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন