বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ১২ কার্তিক ১৪২৮, ২০ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

ব্যবসা বাণিজ্য

আন্তর্জাতিক বাণিজ্যে বাংলাদেশের অংশগ্রহণ বাড়ছে

কর্মশালায় বাণিজ্য সচিব

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১২:০১ এএম

বাণিজ্য সচিব তপন কান্তি ঘোষ বলেছেন, এলডিসি পরবর্তী চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় বাংলাদেশ দুটি সূচকে ইতোমধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছে। উত্তরণ প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে আগামী ৫ বছর আমাদের জন্য ট্রানজিট সময়। আগামী দুই বছর আন্তর্জাতিক বাণিজ্যে বাংলাদেশের অনেক কাজ করার সুযোগ তৈরি হবে। এই সময়ে কয়েকটি সম্মেলনে অংশ নিবে বাংলাদেশ। সরকার দেশের ব্যবসা পরিচালনার সূচকে উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচেছ। বুধবার দি ইনস্টিটিউট অব চার্টার্ড একাউন্টেন্টস অব বাংলাদেশ (আইসিএবি) ও ইকোনোমিক রিপোর্টার্স ফোরাম (ইআরএফ) আয়োজি এক কর্মশালায় তিনি একথা বলেন।
কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাণিজ্য সচিব তপন কান্তি দাস। বক্তব্য রাখেন ইনস্টিটিউট অব চার্টার্ড একাউন্টেন্টস অব বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট মাহমুদুল হাসান খসরু, ভাইস প্রেসিডেন্ট সিদ্ধার্থ বড়–য়া, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শুভাশিস বসু, ইকোনোমিক রিপোর্টার্স ফোরামের (ইআরএফ) সভাপতি শারমিন রিনভী ও সাধারণ সম্পাদক রাশেদুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন মারিয়া হাওলাদার এফসিএ, কাউন্সিল মেম্বার এন কে এ মবিন এফসিএ, সাব্বীর আহমেদ এফসিএ, মো. মনিরুজ্জামান এফসিএ, মু. মাহমুদ হোসেন এফসিএ, মোহাম্মদ ফোরকান উদ্দীন এফসিএ।

বাণিজ্য সচিব বলেন, এলডিসি পরবর্তী চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় বাংলাদেশ দুটি সূচকে ইতোমধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছে। উত্তরণ প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে আগামী ৫ বছর আমাদের জন্য ট্রানজিট সময়। বাণিজ্য সচিব বলেন, আগামী দুই বছর আন্তর্জাতিক বাণিজ্যে বাংলাদেশের অনেক কাজ করার সুযোগ তৈরি হবে। আগামী নভেম্বরে অনুষ্ঠিত হবে জাতিসংঘের জলবায়ু পরিবর্তনবিষয়ক মন্ত্রী পর্যায়ের সম্মেলন। তিনি বলেন, ২০২২ সালের ২৩-২৭ জানুয়ারি সম্মিলিত মূল্যায়ন করার জন্য জাতিসংঘ এবং বাংলাদেশ সরকার এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় আঞ্চলিক পর্যালোচনা সভা আহবান করছে। সরকার দেশের ব্যবসা পরিচালনার সূচকে উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচেছ এবং এ সুযোগ গ্রহণ করে ব্যবসায়ীদের আরো বেশি হারে বিনিয়োগে এগিয়ে আসার আহবান জানান।

বাণিজ্য সচিব বলেন, করোনা মহামারির কারণে দেশের অর্থনীতির অনেক ক্ষতি হয়েছে। তবে এই সময়ে আন্তর্জাতিক বাণিজ্যে অনেক প্রবৃদ্ধি হয়েছে। রেমিট্যান্স ও রফতানি আয়ে প্রবৃদ্ধি বেড়েছে। তবে ২০১৮-১৯ অর্থবছরের তুলনায় অনেক পিছিয়ে রয়েছি আমরা। তিনি বলেন, প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তির মধ্যে সেতু বন্ধন তৈরি করেন সাংবাদিকরা। দেশের উন্নয়নে সাংবাদিকদের অনেক ভূমিকা রয়েছে। এজন্য সংবাদ প্রকাশে সঠিক ও নির্ভরযোগ্য তথ্যের প্রয়োজন। অনেক ক্ষেত্রেই ভ‚ল তথ্য গণমাধ্যমে আসে। উন্নত, উন্নয়ন ও উন্নয়নশীল দেশ নিয়ে ভ‚ল তথ্য আসে গণমাধ্যমে।

আইসিএবি প্রেসিডেন্ট মাহমুদউল হাসান খসরু এফসিএ বলেন, যেসব মেধাবী শিক্ষার্থী আর্থিকভাবে অসচ্ছল, কিন্তু চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্সি পড়াশোনা অব্যাহত রাখতে চায় তাদের সহায়তার উদ্দেশ্য নিয়ে এ প্রকল্পটি সাজানো হয়েছে। তিনি জানান, শুরুতে বিএসআরএম এজন্য স্বেচ্ছায় অনুদান দেয়। ধীরে ধীরে আরও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, সরকার, করপোরেট হাউস, দাতা সংস্থা এবং আইসিএবির সদস্যরাও সিএসআরের অধীনে এ তহবিলে অনুদান দিতে এগিয়ে আসবেন বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

প্রকল্পের বৈশিষ্ট্য তুলে ধরে মাহমুদউল হাসান খসরু বলেন, নির্দিষ্ট নিয়ম ও শর্ত মেনে এ তহবিল থেকে শিক্ষার্থীদের সহায়তা বিতরণ করা হবে যাতে তারা চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্সি পড়ার সময় এ সহায়তা কাজে লাগাতে পারে। এ প্রকল্পের অন্যান্য উদ্দেশ্যের মধ্যে রয়েছে- মেধাবীদের সিএ পেশা গ্রহণে উদ্বুদ্ধ করা, দেশের অর্থনীতির ক্রমবর্ধমান চাহিদা পূরণের জন্য অ্যাকাউন্টিং পেশাজীবীদের সংখ্যা বাড়ানো, সিএ পেশায় মেধার সন্নিবেশ ঘটানো যারা শিল্পের জটিল প্রয়োজন মেটাতে এবং ভবিষ্যতের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় নেতৃত্ব দেবে এবং দক্ষতার সঙ্গে পেশার প্রতিনিধিত্ব করবে।

কর্মশালায় জানানো হয়, নিরীক্ষা প্রতিবেদনের স্বচ্ছতা ও যথার্থতা যাচাইয়ের জন্য দ্য ইনস্টিটিউট অব চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্টস অব বাংলাদেশের (আইসিএবি) উদ্যোগে ডকুমেন্ট ভেরিফিকেশন সিস্টেম (ডিবিএস) নামে একটি সফটওয়্যার চালু করা হয়েছে। এই সফটওয়ারের মাধ্যমে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) কর্মকর্তারা নিরীক্ষিত প্রতিবেদনের সত্যতা যাচাইয়ের পাশাপাশি জাল প্রতিবেদন সনাক্ত করতে পারবেন। এর ফলে জাল প্রতিবেদনের মাধ্যমে কর ফাঁকি দেয়ার সুযোগ বন্ধ হয়ে যাবে এবং সরকারের রাজস্ব আহরণের পরিমাণও বাড়বে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন