রোববার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ০৮ কার্তিক ১৪২৮, ১৬ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

তালেবানদের সাথে যুক্তরাষ্ট্র নিজেদের স্বার্থেই সম্পর্ক গড়বে

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১২:০০ এএম

তালেবান সরকারকে স্বীকৃতি দেয়ার জন্য প্রস্তুত না হলেও যুক্তরাষ্ট্র তালেবানদের সাথে সম্পর্ক গড়বে। বৃহস্পতিবার বিকালে সংবাদ সম্মেলনে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র নেড প্রাইস এই তথ্য জানিয়ে বলেন, পাকিস্তান আফগানিস্তান নিয়ে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের উদ্বেগ ভাগ করে নিয়েছে এবং তারা গত ২০ বছরের অর্জন রক্ষা করতে চায়।

বাইডেন প্রশাসন কীভাবে তালেবানদের সাথে সম্পৃক্ত হওয়ার পরিকল্পনা করছে তা ব্যাখ্যা করতে গিয়ে প্রাইস বলেন, ‘স্বীকৃতি, বৈধতা এবং ব্যবহারিক সম্পৃক্ততার মতো বিস্তৃত বিষয়গুলোর মধ্যে একটি পার্থক্য রয়েছে।’ তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি আপনি আমাদের কাছ থেকে ও অন্যান্য সরকারের কাছ থেকে শুনেছেন যে, যখন আমাদের জাতীয় স্বার্থের ভিত্তিতে তালেবানকে সম্পৃক্ত করা যখন প্রয়োজন হবে, তখন আমরা তা করব।’ তিনি আরও বলেন, মন্ত্রিসভার বৈঠকে ‘আমরা অন্যান্য দেশ থেকেও একই রকম কথা শুনেছি’।
আফগানিস্তানে পাকিস্তানের ভূমিকা সম্পর্কে জানতে চাইলে প্রাইস বলেন, যুক্তরাষ্ট্র ও জার্মানির যৌথ আয়োজনে সাম্প্রতিক মন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠকে ইসলামাবাদ আফগানিস্তানের বিষয়ে তার অবস্থান জানিয়ে দিয়েছে। তিনি বলেন, ‘পাকিস্তান মন্ত্রিসভা বৈঠকে উপস্থিত ছিল এবং আমরা অংশগ্রহণকারী অন্যান্য দেশ থেকে যা শুনেছি পাকিস্তানিদের কাছ থেকে আমরা একই রকম অনুভূতি শুনেছি। আমাদের পাকিস্তানি অংশীদারদের সহ ব্যাপক চুক্তি ছিল যে, গত ২০ বছরের অর্জন নষ্ট করা যাবে না।’

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি জে ব্লিংকেন এবং জার্মানির পররাষ্ট্রমন্ত্রী হেইকো মাস বুধবার আফগানিস্তান বিষয়ক মন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠকের সহ-আয়োজক ছিলেন। পাকিস্তান এবং ভারত উভয়ই ইউরোপীয় ইউনিয়ন, ন্যাটো এবং জাতিসংঘের মতো আরও কয়েক ডজন দেশ এবং আন্তর্জাতিক গোষ্ঠীর সাথে বৈঠকে অংশ নিয়েছিল। সেক্রেটারি ব্লিংকেন তার বক্তৃতায় একটি সম্ভাব্য মানবিক সঙ্কট প্রশমিত করতে, সন্ত্রাস দমন, বিদেশী ও আফগান নাগরিকদের জন্য নিরাপদ প্রবেশ এবং মৌলিক অধিকারের প্রতি শ্রদ্ধাশীল একটি অন্তর্ভুক্তিমূলক সরকার গঠনে তালেবানকে জবাবদিহি করার জন্য ঐক্যের আহ্বান জানান।

সেক্রেটারি ব্লিনকেন বলেছিলেন যে, যুক্তরাষ্ট্র ‘আফগান জনগণ, বিশেষ করে নারী ও মেয়েদের অধিকারকে সমর্থন করার জন্য এবং আফগানিস্তান সন্ত্রাসবাদের নিরাপদ আশ্রয়স্থল না হয়ে উঠতে অর্থনৈতিক, কূটনৈতিক এবং রাজনৈতিক সরঞ্জাম ব্যবহার অব্যাহত রাখবে।’ প্রাইস বলেন, অংশগ্রহণকারীরা, বিশেষ করে আফগানিস্তানের প্রতিবেশীরা, ‘আফগানিস্তানে মানবিক অবস্থার অবনতি ঠেকাতে আমরা যা করতে পারি’ তা করতে সম্মত হয়েছি। এবং এটি বিশেষত আফগানিস্তান সীমান্তবর্তী দেশগুলো তীব্রভাবে ধারণ ও অনুভব করে যে, এই অঞ্চলের দেশগুলোর জন্য মানবিক প্রভাবগুলো তীব্র হতে পারে।’ তিনি বলেন, ‘এজন্যই আমেরিকা আফগানিস্তান সরকারকে তার দ্বিপক্ষীয় সহায়তা পর্যালোচনা করছে এবং আফগানিস্তানের মানুষকে মানবিক সহায়তা প্রদান অব্যাহত রেখেছে।’

এর আগে প্রাইস বলেছিলেন, যুক্তরাষ্ট্র আফগানিস্তানের মানুষকে শত শত মিলিয়ন ডলারের মানবিক সহায়তা দিয়েছে। জুন মাসে, যুক্তরাষ্ট্র আফগানদের জন্য ২৫ কোটি ডলারেরও বেশি অর্থ প্রদান করেছিল, যা জুলাইয়ে দ্বিগুণ অর্থাৎ, ৫০ কোটি ডলার হয়েছে। এর কিছু আফগানিস্তানে অভ্যন্তরীণভাবে বাস্তুচ্যুত ব্যক্তিদের উদ্দেশ্যে দেয়া হয়েছে। তিনি বলেন, ‘এটি একটি স্থায়ী প্রতিশ্রুতি, যা কেবল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রই নয়, এই অঞ্চলের দেশগুলো এবং এর বাইরে দেশগুলো দ্বারাও গৃহীত হয়েছে।’ সূত্র : ডন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (8)
Golam Ahad ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৬:১৯ এএম says : 0
তো, কোন পাগলে ভেবেছে যে মানবতার স্বার্থে তোমরা কোন চুক্তি করো!! হারামজাদারা পুরো বিশ্বটাকে জ্বালিয়ে শেষ করে দিচ্ছে।।
Total Reply(0)
MD Abdul Kader ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৬:১৯ এএম says : 0
যুক্তরাষ্ট্র কখনো নিজের স্বার্থ ছাড়া কোন কিছু করে না।
Total Reply(0)
Md. Samsul Kabir ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৬:২০ এএম says : 0
সবাই-ই নিজেদের স্বার্থে সম্পর্ক গড়বে।শুধুমাত্র বাংলাদেশ অন্যদের স্বার্থে সম্পর্ক গড়বে না। কারণ, আমাদের একজন কবি লিখে গেছেন 'নিজের খাবার বিলিয়ে দেবো,অনাহারীর মুখে'।
Total Reply(0)
Sakiv Munshi ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৬:২০ এএম says : 0
ঠিক নিজেদের স্বার্থেই ভারতের বিরুদ্ধে যাবে আমেরিকা। আমেরিকার কূটনীতির মুল উদ্দেশ্য নিজের প্রয়োজনে বন্ধুকেও শএু বানানো। তাই প্রয়োজন শেষ হলে যেকোন সময় ভারতকে ছুড়ে ফেলবে আমেরিকা।এটাই বাস্তবতা।
Total Reply(0)
Abdul Aziz ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৬:২০ এএম says : 0
একজন মুসলিম কখনোই শরীয়া শাসনের বিরোধী হতে পারেনা।হলেও ইমান থাকবেনা।
Total Reply(0)
Jahirul Islam Hosainy ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৬:২১ এএম says : 0
আফগানে দখলদার বাহিনীর অত্যাচারের গত ২০ বছরের খতিয়ান তুলে ধরা মুশকিল। নিষ্পাপ হাফিজ থেকে শুরু করে শিশু, কিশোর, নারী পুরুষ নির্বিচারে হত্যা, ধর্ষণ আর পঙ্গুত্বের শিকার হয়েছে দখলদারদের হাতে। মাদ্রাসা, স্কুল, হসপিটাল কিছুই বাদ যায়নি বোমা হামলার থেকে। নিরহ আফগানদের গুলি করে মারার প্রতিযোগিতা, আঙ্গুল কেটে ' সেটাকে পুরস্কারের ট্রফি' বানানোর খবর তো সর্বজনবিদিত। সীমিত আকারে হলেও পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের মিডিয়াতে এসেছে এসব লোমহর্ষক অন্যায়ের খবর। . আজকে কাবুলে যেসব নেড়িবাদীরা প্রতিবাদ করছে এদের হিপোক্রেসি অসহনীয় পর্যায়ে। গত ২০ বছর ধরে চলা ধ্বংসযজ্ঞ আর হত্যার প্রতিবাদে কখনোই এসব নেড়িদের রাস্তায় দেখা যায়নি। অগণিত নারী শিশুদের লাশ এদের মানবতা জাগাতে পারে নি। আজ এদের মানবতা উথলে উঠছে। আল্লাহতায়ালা এদের দুনিয়া ও আখিরাত, উভয় জগতে লাঞ্ছিত করুন। সাইফুর রহমান
Total Reply(0)
Ahasan Ullah ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৬:২১ এএম says : 0
ঠিক নিজেদের স্বার্থে গত ২০ বছর অাফগানিস্থানে ঝামেলা সৃষ্টি করেছিলো।
Total Reply(0)
সরোয়ার ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১:৪৮ পিএম says : 0
দারুন লেখা
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন