রোববার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ০৮ কার্তিক ১৪২৮, ১৬ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীদের জন্য হিজাব বাধ্যতামূলক করল তালেবান

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১০:৫৫ এএম

আফগানিস্তানের শিক্ষার্থীদের জন্য নতুন নিয়ম ঘোষণা করেছে তালেবান সরকার। এ নিয়মে নারীরা আগের মতই সব স্তরে শিক্ষার সুযোগ পাবে। তবে ইসলামী শরিয়াহ্ অনুযায়ী ছাত্র এবং ছাত্রীদের জন্য পৃথক ক্লাসের ব্যবস্থা থাকবে। ছাত্রীদেরকে বাধ্যতামূলক হিজাব পড়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে আসতে হবে। তবে, শিক্ষার্থীদের বিশ্বমানের বই পড়ানো হবে।

 

তালেবান সরকারের শিক্ষামন্ত্রী আব্দুল বাকী হাক্কানী বলেন, ‘নারীরা পুরুষদের মতই সমান হারে শিক্ষা গ্রহন করতে পারবেন, তবে ছাত্র ছাত্রী পাশাপাশি বসে ক্লাস করার সুযোগ থাকবে না’। শিক্ষার্থীদেরকে কি ধরণের কোর্সগুলো করানো হবে এ বিষয়েও ধারণা দেন তিনি।তিনি বলেন, কি ধরণের কোর্স পড়ানো হবে তা পর্যালোচনা করা হচ্ছে। আজ সোমবার সকালে বিবিসিতে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এ তথ্য দেয়া হয়। হাক্কানী বলেন, আমাদের শিক্ষার্থীদেরকে আঞ্চলিক ও বিশ্বময় প্রতিযোগিতার বাজারে সেরা হাবার মত করে গড়ে তোলা হবে।

 

গত শনিবার তালেবান কাবুলের প্রেসিডেন্ট প্রাসদে আফগানিস্তানের নতুন পতাকা উত্তোলন করে। এর মাধ্যমে তাদের প্রশাসনিক কার্যক্রম শুরু হয়। এর একদিন পর রবিবার দেশের শিক্ষা ব্যবস্থা কেমন হবে তার রুপরেখা দেয়া হয়। আগষ্টের ১৫ তারিখে কাবুল দখলের মাধ্যমে তালেবান ক্ষমতায় আসে। ক্ষমতায় আসার একমাস পর এ নতুন শিক্ষাব্যবস্থার রুপরেখা প্রণয়ন করা হল।

 

নতুন এ রুপরেখায় রয়েছে ছাত্রীদের জন্য বাধ্যতামূলক হিজাব পরিধান করার নিয়ম। তাছাড়া, প্রাইমারি থেকে শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয়ের উচ্চতর স্তর পর্যন্ত ছাত্র ছাত্রী পাশাপাশি বসে ক্লাস করার ব্যবস্থা তুলে নেয়া হচ্ছে। নতুন নিয়মে ছাত্রীদের জন্য আলাদা ক্লাসের ব্যবস্থা থাকবে। শিক্ষাদানের জন্য থাকবে নারী শিক্ষিকা। ছেলেদের জন্যও পুরুষ শিক্ষকের প্রচলন চালু হবে।

 

যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত আশরাফ গণির সরকারের শিক্ষা ব্যবস্থা থেকে এবারের নতুন রুপরেখার উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন লক্ষ্য করা গেছে। গণির সময় ছাত্র ছাত্রী একত্রে বসে ক্লাস করতে পারত। তাছাড়া স্কুলের তেমন কোনও ডেস কোড ছিল না। কিন্তু এবার এ ব্যবস্থার পরিবর্তন হয়েছে।

 

তালেবান সরকারের শিক্ষামন্ত্রী হাক্কানী বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীদের জন্য হিজাব পড়া বাধ্যতামূলকসহ নির্দিষ্ট ড্রেস থাকবে।তিনি বলেন, হিজাব বলতে যদি শুধু মাথা বা মুখ ঢাকা বুঝে থাকেন তবে ঐ ড্রেস হিজাব বলে গন্য হবে না। ইসলামী শরিয়াহ্ মত সঠিক হিজাব পড়ার উপর গুরুত্বদেন তিনি। তিনি বলেন, ছেলে মেয়ে একত্রে বসে ক্লাস করার ব্যবস্থা পরিবর্তন করা হবে। তিনি আরো বলেন, আমরা সহ-শিক্ষার অনুমোদন দিব না।

 

বিবিসির প্রতিবেদনে দাবি করা হয়, অনেকে মনে করছেন যুদ্ধবিদ্ধস্ত আফগানিস্তানে অর্থনৈতিক সংকট রয়েছে।নতুন এ ব্যবস্থার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় গুলোতে ছাত্রীদের জন্য আলাদা ক্লাসের ব্যবস্থা করা বেশ আর্থিক সংগতি ব্যাপার যা প্রদান করা নতুন সরকারের পক্ষে কঠিন।

 

তবে শিক্ষমন্ত্রী বলেন, আল্লাহকে আনেক ধন্যবাদ। আমাদের প্রচুর সংখ্যক নারী শিক্ষিকা রয়েছে যারা ছাত্রীদেরকে আলাদা ভাবে পাঠদান করতে পারবেন। আমাদেরকে এ বিষয়ে কোনও সমস্যায় পড়তে হবে না। তিনি আরও বলেন, ছাত্রীদের জন্য নারী শিক্ষিকা দিতে সব ধরণের ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। তিনি বলেন, প্রতিযোগীতামূলক বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে আন্তর্জাতিক মানের বই পড়ানো হবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন