মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১০ কার্তিক ১৪২৮, ১৮ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

কাপাসিয়ায় অভিনব কায়দায় সাড়ে সাত লাখ টাকা নিয়ে নারী প্রতারক উধাও

কাপাসিয়া (গাজীপুর) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৯:৫৩ পিএম

আমেরিকা প্রবাসী সেজে অভিনব কায়দায় প্রকাশ্যে গৃহকর্তার সাড়ে ৭ লাখ টাকা নিয়ে সুদর্শনা নারী প্রতারক মূর্হুতেই উধাও হয়ে গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত বুধবার বিকালে গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলার চাঁদপুর গ্রামে। বহু খোঁজাখুজি করে না পেয়ে গৃহকর্তা কাপাসিয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

জানা যায়, উপজেলার চাঁদ ইউনিয়নের চাঁদপুর বাজারের পূর্বপাশে সবুজ মাহমুদ নামে একব্যক্তি দীর্ঘদিন যাবত আমেরিকায় বসবাস করেন। এই সুবাদে তাদের বাড়ির আত্মীয় স্বজন অনেকেই এখন আমেরিকা প্রবাসী। বুধবার বিকালে হঠাৎ আধুনিক পোশাক পরিহিত ও স্বর্ণালংকার সম্বলিত এক সুদর্শনা নারী সবুজ মাহমুদের বাড়িতে এসে বলে সে আমেরিকা থেকে এসেছে। ওই নারী সবুজের সাথে আমেরিকা থাকেন। সবুজের অনেক পিড়াপিড়িতে বেড়াতে এসেছেন বলে তার মাকে জানান। সম্প্রতি বাড়িতে ঘটে যাওয়া সব কিছুই সে হুবহু বর্ণনা করতে থাকেন। প্রতারক মহিলা সবুজের মাকে জানায় সে সেপ্টেম্বরের ৮ তারিখে দেশে এসেছেন। তিনি তিন মাস দেশে থাকবেন। মহিলা সবুজের বাড়িতে এসে বলে সবুজ ৬ সেপ্টেম্বরে বিদেশে যাওয়ার আগে সাড়ে সাত লাখ টাকা বাড়িতে রেখে গেছেন। ওই টাকার সাথে আমার কিছু টাকা রাখেন এই বলে আলমারির ড্রয়ারে তার টাকা গুলো রাখেন এবং কেবিনেটের ভেতর চাবি রাখেন। বাড়ির সদস্যরা অতিথিকে আপ্যায়ন করাতে বিশেষ ভাবে সবাই কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়েন। এই সুযোগে চাবি দিয়ে ড্রয়ার খুলে সাড়ে সাত লাখ টাকা নিয়ে ২০ মিনিটের মধ্যেই উধাও হয়ে যায়। বহু খোঁজাখুজি করে আর তাকে পাওয়া যায়নি।

আমেরিকা প্রবাসী সবুজ মাহমুদের মা সাজেদা বেগম জানান, আমার ছেলে, ভাইপো এবং এলাকার যারা আমেরিকা প্রবাসী তাদের খবরা খবর সব হুবহু মিলে যাচ্ছে। সবুজ বাড়ি এসে কাজের কি পরিকল্পনা ছিল, আমার বাড়ির কাজে কে টাকা দিচ্ছে এবং কার কাছ থকে ইট, সিমেন্ট ও বালি আনছি এবং কতো টাকা পরিশোধ করছি সব কথা মিলে যায়। আমার ছেলের বন্ধু ইট খোলার মালিক হরিদেবপুরের কবির। ওই প্রতারক মেয়ে কবিরের ফুফাতো বোন এবং কাপাসিয়ার ভুঁইয়া পাড়ায় তার গ্রামের বাড়ি বলে পরিচয় দেয়। সোনার অলংকার পড়া সুন্দর চেহারা দেখে এবং কথায় মেয়েটিকে আমেরিকার প্রবাসী বলেও বিশ্বাস হয়েছিল। তাই তাকে ঘরে নিয়ে বসতে দিয়েছিলাম। তার কিছু টাকা আমার ছেলের রেখে যাওয়া টাকার সাথে রাখতে দিয়েছিলাম। সেই সুযোগে আমার ড্রয়ারে রাখা সাড়ে ৭ লাখ টাকাও নিয়ে চলে যায়। পরক্ষণে বাড়িতে স্থাপিত সিসি টিভি ফুটেজে দেখা যায়, ওই নারী তিনচাকার একটি ব্যাটারি চালিত ছোট রিকশায় চড়ে চলে যাচ্ছেন।

প্রবাসী সবুজের বড় ভাই দিদার হোসেন জানান, ছোট ভাইয়ের সাথে আমেরিকায় থাকে বলে সহজেই তাকে আমরা আপন করে নিয়েছিলাম। সরলতার সুযোগে এতো গুলো টাকা নিয়ে যাবে ভাবতেই পারিনা। কিভাবে যে এতো অল্প সময়ে টাকা গুলো নিয়ে চলে গেলো। এখন তা ব্যাখ্যা করার মতো ভাষা নেই।

প্রতিবেশী সঞ্জীব চন্দ্র দাস জানায়, সবুজের সাথে আমেরিকা থাকে বলে তাকে অতিথি মনে করা হয়। সরলতার সুযোগ নিয়ে অবাক করার মতো কান্ড ঘটিয়ে টাকা গুলো নিয়ে উধাও হয়ে গেলো।

সবুজের বড় ভাই দিদার হোসেন বাদী হয়ে কাপাসিয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। থানার এসআই সুজন বিষয়টি তদন্ত করছেন বলে জানা যায়।

উল্লেখ্য, ইতিপূর্বে কাপাসিয়া উপজেলা সদরসহ বিভিন্ন জায়গা থেকে নারী প্রতারক চক্র এই কায়দায় প্রবাসীদের বর্ণনা দিয়ে বিপুল পরিমাণ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন