বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১, ০৪ কার্তিক ১৪২৮, ১২ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

অভ্যন্তরীণ

নড়বড়ে সেতু : ঝুঁকি নিয়ে চলাচল

অর্ধশত বছর আগের নির্মিত বেইলি ব্রিজ

কামাল আতাতুর্ক মিসেল : | প্রকাশের সময় : ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১২:০২ এএম

দীর্ঘদিন সংস্কারের অভাবে বেশিরভাগ বেইলিব্রিজ নষ্ট হয়ে গেছে। কোথাও কোথাও স্টিলের পাত ভেঙে পড়েছে। আবার কোথাও মরিচা পড়ে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। বাগেরহাট জেলায় এসব ঝুঁকিপূর্ণ বেইলিব্রিজে প্রতিনিয়ত ঘটছে দুর্ঘটনা। তারপরও জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এলাকাবাসী, পথচারী ও যানবাহন চলাচল করছে। এতে পণ্য পরিবহন ব্যয় বাড়ছে ব্যবসায়ী ও কৃষকদের। এ অবস্থায় দ্রুত ব্রিজগুলো সংস্কার অথবা পুনঃনির্মাণের দাবি জানিয়েছেন স্থানীয়রা। তবে সড়ক বিভাগ বলছে, বেইলি ব্রিজের স্থলে আরসিসি ব্রিজ নির্মাণের জন্য প্রস্তাবনা অনুমোদনের অপেক্ষায়। মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন পেলেই দরপত্র আহ্বান করা হবে।

বাগেরহাট সড়ক বিভাগ সূত্রে জানা যায়, বাগেরহাট-মাওয়া পুরাতন মহাসড়ক ও সাইনবোর্ড-বগী আঞ্চলিক মহাসড়কে ১৪টি বেইলি ব্রিজ রয়েছে। এসব ব্রিজ প্রায় অর্ধশত বছর আগে নির্মাণ করা হয়েছে। যার ফলে বেশির ভাগ ব্রিজের অবস্থা এখন নাজুক। এর মধ্যে মোল্লারহাট উপজেলার নাশুখালী বাজার সংলগ্ন ব্রিজ, পাগলার বাজার ব্রিজ, চরকুলিয়া ব্রিজ, হারিদহ ব্রিজ, মোরেলগঞ্জ উপজেলার তেলিগাতি বেইলিব্রিজ, শরণখোলা উপজেলার নলবুনিয়া ব্রিজ বেশি ঝুঁকিপূর্ণ। এসব ব্রিজের সামনে সড়ক বিভাগ থেকে সতর্ক বার্তা লিখে সাইনবোর্ড দেয়া হয়েছে। সাইনবোর্ডে সাবধাণ ঝুঁকিপূর্ণ বেইলি সেতু, ভারী যানবাহন চলাচল নিষেধ লেখা থাকার পরেও ঝুঁকি নিয়ে প্রতিনিয়তই ভারী-হালকা যানবাহন চলাচল করছে। ফলে মাঝে মধ্যেই ঘটছে দুর্ঘটনা।

জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পাগলার বাজার বেইলি ব্রিজ থেকে নছিমন ভর্তি গাছ বহন করতে দেখা যায় চালক রহমত আলীকে। তিনি বলেন, ভাই আমরা তো গাছ ও বিভিন্ন পণ্য পরিবহন করে জীবিকা নির্বাহ করি। কি করব? এ রাস্তা ছাড়া আমাদের বিকল্প রাস্তাও নেই। তাই নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও নছিমন নিয়ে বেইলিব্রিজ পার হই। মোল্লারহাট উপজেলার গাওলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. রেজাউল করিম বলেন, গাওলা ইউনিয়নের মধ্যে সড়ক ও জনপথের পুরনো রাস্তার ওপর চারটি বেইলি সেতু রয়েছে। তার প্রত্যেকটিই ঝুঁকিপূর্ণ। প্রতিদিন কয়েক হাজার মানুষ এসব সেতু দিয়ে যাতায়াত করে। কয়েকদিন পরপর ছোটখাট দুর্ঘটনা ঘটে। সবজিসহ পণ্য পরিবহনেও সমস্যার সৃষ্টি হয়। দ্রুত সেতু পুনঃনির্মাণ অথবা সংস্কারের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন তিনি।

এ বিষয়ে বাগেরহাট সওজ’র নির্বাহী প্রকৌশলী মো. ফরিদ উদ্দিন বলেন, পুরাতন বেইলি সেতুর স্থলে আরসিসি সেতু তৈরির জন্য একটি প্রস্তাবনা মন্ত্রণালয়ে অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে। মন্ত্রণায়ের অনুমোদন শেষে দরপত্র আহ্বান করা হবে। দরপত্র আহ্বান শেষে যত দ্রুত সম্ভব আরসিসি সেতু তৈরির জন্য কার্যাদেশ দেয়া হবে। আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি যত দ্রুত সম্ভব বেইলি ব্রিজের সমস্যার সমাধান করা হবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন