বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১, ০৪ কার্তিক ১৪২৮, ১২ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

অভ্যন্তরীণ

১২ ঘণ্টায় হত্যা রহস্য উদ্ঘাটন : ৬ কর্মকর্তা পুরস্কৃত

খুলনা ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১২:০৪ এএম

খুলনা মহানগরীর লবণচরায় ইজিবাইক গ্যারেজ ম্যানেজার মো. শামীম হত্যার মামলার রহস্য ১২ ঘণ্টার মধ্যে উন্মোচন, আসামিকে গ্রেফতার ও আলামত উদ্ধারের স্বীকৃতি হিসেবে ৬ পুলিশ কর্মকর্তাকে পুরস্কার প্রদান করা হয়েছে। গত শনিবার দুপুরে খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের হেডকোয়ার্টার্সে পুলিশ কমিশনার মো. মাসুদুর রহমান ভূঞা তাদেরকে পুরস্কার হিসেবে নগদ অর্থ তুলে দেন।
পুরস্কারপ্রাপ্তরা হলেন, কেএমপির ডেপুটি পুলিশ কমিশনার (দক্ষিণ) মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, অতিঃডেপুটি পুলিশ কমিশনার (দক্ষিণ) সোনালী সেন, লবণচরা থানার ওসি সমীর কুমার সরকার, মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই আব্দুর রহিম, আসামি গ্রেফতারে সহায়তাকারী অফিসার এসআই সুকান্ত দাশ ও এসি অফিস (খুলনা জোন) এএসআই রবিউল ইসলাম।
খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মো. মাসুদুর রহমান ভূঞা বলেন, খুব দ্রুত মামলার রহস্য উদঘাটন ও প্রকৃত আসামিদের আইনের আওতায় সোপর্দ করায় তাদেরকে অনুপ্রাণিত করতে পুরস্কার প্রদান করা হয়েছে।
আমাদের গাইডলাইন ও নির্দেশনা এবং সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় কোনো ক্রাইম দ্রুততম সময়ের মধ্যে উদঘাটন করা হচ্ছে পুলিশের কাজ। এ মামলায় সেটিই প্রমাণিত হয়েছে। যারা উদঘাটন করেছে তাদের ডেডিকেশন ছিল, তারা নিরলসভাবে কাজ করে স্বল্প সময়ের মধ্যে মামলার রহস্য উন্মোচন করেছে। এ মামলায় দ্রুত বিচার এবং আসামিদের শাস্তি হবে সেই আশা করি।
পুরস্কার বিতরণকালে উপস্থিত ছিলেন কেএমপি’র অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম) এসএম ফজলুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার সরদার রকিবুল ইসলাম, ডেপুটি পুলিশ কমিশনার (উত্তর) মোল্লা জাহাঙ্গীর হোসেন এবং ডেপুটি পুলিশ কমিশনার শেখ মনিরুজ্জামান মিঠু।
প্রসঙ্গত, গত ১৬ সেপ্টেম্বর ভোর সাড়ে ৬টার দিকে মহানগরীর লবণচরা থানাধীন মোহাম্মাদনগর বাবলু সড়কে ইজিবাইকের গ্যারেজ থেকে শামীমের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।
১২ ঘণ্টার মধ্যে খুনি আরাফাতকে গ্রেফতার ও হত্যার কারণ উদঘাটন করে পুলিশ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন