মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১০ কার্তিক ১৪২৮, ১৮ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

খেলাধুলা

এলিটাই সাফের প্রাথমিক দলে চমক

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৩:০৬ পিএম | আপডেট : ৫:৫৩ পিএম, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১

দক্ষিণ এশিয়া ফুটবলের সর্বোচ্চ আসর সাফ চ্যাম্পিয়নশিপকে সামনে রেখে আনুষ্ঠানিকভাবে দায়িত্বগ্রহণ করেছেন জাতীয় দলের অন্তর্বর্তীকালীন কোচ স্পেনের অস্কার ব্রুজোন। সাফের প্রাথমিক দল ঘোষণার মধ্যদিয়ে বুধবার দায়িত্ব বুঝে নেন তিনি। ইংল্যান্ডের জেমি ডে’কে অব্যাহতি দিয়ে গত শুক্রবার নতুন কোচ হিসেবে অস্কারের নাম ঘোষণা করেছিল বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) জাতীয় দল কমিটি। তবে ঘরোয়া সর্বোচ্চ আসর প্রিমিয়ার লিগে বসুন্ধরা কিংসের ম্যাচ বাকি থাকায় জাতীয় দল কমিটির ঘোষণার ৫ দিন পর জামাল ভূঁইয়াদের দায়িত্ব বুঝে নিলেন অস্কার। বুধবার দুপুরে বাফুফে ভবনে সংবাদ সম্মেলন করে আনুষ্ঠানিকভাবে দায়িত্ব নেয়ার পাশাপাশি তিনি ঘোষণা করেন সাফের জন্য জাতীয় দলের ২৬ সদস্যের প্রাথমিক স্কোয়াড। যেখানে একমাত্র চমক নাইজেরিয়ান বংশোদ্ভূত সদ্য বাংলাদেশি এলিটা কিংসলে। যদিও তিনি এখনো ফিফার ছাড়পত্র পাননি। তবে শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত ফিফা থেকে এলিটার খেলার ছাড়পত্র আনার চেষ্টা চালিয়ে যাবে বলে বাফুফে জানায়। এলিটা ছাড়া প্রাথমিক স্কোয়াডে স্থানীয় ৫ ফুটবলারের জায়গা হয়েছে যারা আগে থাকলেও সর্বশেষ জাতীয় দলে ছিলেন না। এরা হলেন- গোলরক্ষক আশরাফুল ইসলাম রানা, ডিফেন্ডার টুটুল হোসেন বাদশা, মিডফিল্ডার আতিকুর রহমান ফাহাদ, মানিক মোল্লা ও ফরোয়ার্ড জুয়েল রানা। তবে জেমি’র তালিকায় থাকা নতুন প্রবাসী ফুটবলারদের কাউকেই রাখেননি অস্কার। যে ২৩ ফুটবলার নিয়ে জেমি ডে কিরগিজস্তানে ত্রিদেশী টুর্নামেন্ট খেলতে গিয়েছিলেন সেই দলের ৩ জন নেই অস্কারের প্রাথমিক স্কোয়াডে। দুই প্রবাসী ফুটবলার কানাডার রাহবার ওয়ােেহদ খান ও ফ্রান্সের নায়েব তাহমিদ ইসলাম এবং তরুণ গোলরক্ষক মিতুল মার্মাকে বিবেচনায় আনেননি স্প্যানিশ কোচ। এমন কি ইংল্যান্ড প্রবাসী জুলকারনাইনকেও প্রাথমিক তালিকায় রাখেননি তিনি। সাফ খেলতে ২৮ সেপ্টেম্বর মালদ্বীপ রওয়ানা হওয়ার আগে প্রাথমিক স্কোয়াড থেকে তিনজনকে ছেটে ফেলা হবে। দল নিয়ে আশাবাদি অস্কার। তিনি বলেন, ‘সাফে আমরা ফাইনাল খেলতে চাই।’
একই কথা বাফুফের সহ-সভাপতি ও জাতীয় দল কমিটির চেয়ারম্যান কাজী নাবিল আহমেদেরও। প্রায় তিন বছর জাতীয় দলের প্রধান কোচ ছিলেন জেমি। বাফুফে তাকে অব্যাহতি দেয়ায় নিজ দেশে ফিরে গেছেন তিনি। এ যাওয়াই কি তার শেষ যাওয়া? কাজী নাবিলের কথায়, ‘আমরা তা এখনি বলছি না। অস্কার কেবল সাফের জন্য দায়িত্ব নিয়েছেন। কুয়েত ও শ্রীলঙ্কায় অনুষ্ঠিতব্য দু’টি টুর্নামেন্টের বিষয়ে আমরা পরে ভাববো।’ অস্কারকে নিয়ে তিনি বলেন, ‘তিনি নতুন কোচ নন। বাংলাদেশেই রয়েছেন তিন বছরের বেশি সময়। জাতীয় দলে অধিকাংশই কিংসের খেলোয়াড়। বাকি যারা রয়েছে তাদেরকেও তিনি ভালোভাবেই চেনেন। অস্কারের কাছে আমার প্রত্যাশা তিনি নিজের অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে সাফে ভালো ফলাফল বয়ে আনবেন।’
জেমির এই লন্ডন যাওয়াই হয়তো তার বাংলাদেশ অধ্যায়ের সমাপ্তি। আরো ১১ মাস বাফুফের সঙ্গে তার চুক্তি থাকলেও দুই পক্ষ হয়তো কিছু দিন পর যৌথ সমঝোতায় চুক্তি বিচ্ছেদ করবে। তার সঙ্গে চলে গেছেন ব্রিটিশ গোলরক্ষক কোচ লিস ক্ল্যাভলি। ফলে ইংল্যান্ড থেকে লিসকে আর মালেতে আনবে না বাফুফে। জেমির সহকারী স্টুয়ার্ট ওয়াটকিস আগেই বাফুফের সঙ্গে চুক্তি ছিন্ন করেছেন। ফলে নতুন দায়িত্ব পাওয়া অস্কার তার পছন্দমতই কোচিং স্টাফ নিয়েছেন। বসুন্ধরা কিংসে তার সহযোগী মাহবুব হোসেন রক্সিকে জাতীয় দলেও সহকারী হিসেবে নিয়েছেন তিনি। গোলরক্ষক কোচ হয়েছেন বসুন্ধরার নুরুজ্জামান নয়ন। ফিজিও এবং ফিটনেস কোচও বসুন্ধরা কিংসেরই।
বাংলাদেশ সর্বশেষ ২০০৯ সালে সাফের সেমিফাইনাল খেলেছে। এরপর টানা চার আসরের গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় লাল-সবুজদের। এবার অবশ্য খেলার ফরম্যাট ভিন্ন। পাঁচ দল রাউন্ড রবিন লিগ পদ্ধতিতে খেলবে। রাউন্ড রবিন লিগ শেষে শীর্ষ দুই দল ফাইনালে জায়গা পাবে। তাই অস্কার সরাসরি ফাইনাল খেলার কথা না বললেও পরোক্ষভাবে ফাইনালেই চোখ রাখছেন। তিনি বলেন, ‘এটা ঠিক যে সাফে আমরা দ্বিতীয় সর্বনি¤œ র‌্যাঙ্কিংধারী দল হিসেবে খেলবো। শ্রীলঙ্কা সবার পেছনে। তাদের আগে আমরা। আমাদের প্রথম ম্যাচ ১ অক্টোবর লঙ্কানদের বিপক্ষে। তাদের হারানো সম্ভব।’ তিনি যোগ করেন,‘নেপাল ও মালদ্বীপ বাংলাদেশের ফুটবলের সমকক্ষ। যদিও র‌্যাঙ্কিংয়ে তারা এগিয়ে। এ দুই দলের বিপক্ষে বাংলাদেশ জিততেও পারে, ড্রও করতে পারে। আবার হারতেও পারে।’ অস্কার আরো বলেন,‘বাফুফে জাতীয় দলের ফলাফলে পরিবর্তন চায়। আমি পরিবর্তন এবং নতুন কিছু দেয়ার চেষ্টা করবো।’
দলে ডাক পাওয়া ফুটবলাররা বুধবারই ক্যাম্পে উঠেছেন। করোনাভাইরাস পরীক্ষা শেষে বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হবে সাফের অনুশীলন। আগামী ১ থেকে ১৬ অক্টোবর পর্যন্ত মালদ্বীপের রাজধানী মালেতে অনুষ্ঠিত হবে সাফ চ্যাম্পিয়শিপের খেলা।

বাংলাদেশের প্রাথমিক দল-
গোলরক্ষক : আশরাফুল ইসলাম রানা, আনিসুর রহমান জিকো ও শহিদুল আলম সোহেল। ডিফেন্ডার : বিশ্বনাথ ঘোষ, তারিক কাজী, তপু বর্মণ, রহমত মিয়া, রিয়াদুল হাসান, ইয়াসিন আরাফাত, রেজাউল করিম, মেহেদী হাসান, মোহাম্মদ আতিকুজ্জামান ও টুটুল হোসেন বাদশা। মিডফিল্ডার : জামাল ভূঁইয়া, সোহেল রানা, সাদ উদ্দিন, রাকিব হোসেন, আতিকুর রহমান ফাহাদ ও মানিক মোল্লা। ফরোয়ার্ড : বিপলু আহমেদ, মাহবুবুর রহমান সুফিল, মোহাম্মদ ইব্রাহিম, সুমন রেজা, মতিন মিয়া, জুয়েল রানা ও এলিটা কিংসলে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন