শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ০৬ কার্তিক ১৪২৮, ১৪ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

ইসলামী প্রশ্নোত্তর

আমি পাঁচ ওয়াক্ত নামায পড়ি, কিন্তু যোহর আর আসর একসাথে পড়ি, কারন আমি ওমানে ক্লিনারের কাজ করি। সে হিসেবে সকালে টয়লেট পরিস্কার করতে হয়, তাই কাপড়ের মাঝে ছিটে পড়তে পারে এবং পরেও। এই সন্দেহের কারনে যোহরের নামায পড়ি না, রুমে এসে গোসল করে যোহর এবং আসর নামায পড়ি। আমি কি সঠিক করছি?

আইয়ুব
ইমেইল থেকে

প্রকাশের সময় : ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১:১০ এএম

উত্তর : নামাজ সঠিক ওয়াক্ত অনুযায়ী পড়া ফরজ। আপনার সমস্যাটি যদি সামান্য কাপড় বদল বা সতর্কতার সাথে অজুর মাধ্যমে সারা যায়, তাহলে অবশ্যই সঠিক সময়ে পড়বেন। যেমন, নামাজের লম্বা জামা রাখা। শরীরের সব কাপড় ছেড়ে দিয়ে কেবল নামাজের জুব্বাটি পরে নামাজ সেরে নেবেন। সময় সুযোগ না হলে কেবল ফরজ পড়বেন। কোনো টয়লেটে ঢুকে প্রয়োজনে হালকা গোসল সেরে নেবেন। সন্দেহযুক্ত নাপাক কাপড় ছেড়ে যে কোনো উপায়ে গোসল করে নামাজের জামাটি গায়ে দিয়ে ওয়াক্তমতো নামাজ সেরে নেবেন। বর্ণিত কারনে আপনার জোহরের নামাজ আসরের সাথে মিলিয়ে পড়ার সুযোগ শরীয়তে নেই। যেভাবে পড়ছেন, সেভাবে নামাজ কাযা হয়ে যায়। বিনা কারণে নামাজ কাযা করা আর নামাজ ছেড়ে দেওয়ার গুনাহ বলতে গেলে সমান।
উত্তর দিয়েছেন : আল্লামা মুফতি উবায়দুর রহমান খান নদভী
সূত্র : জামেউল ফাতাওয়া, ইসলামী ফিক্হ ও ফাতওয়া বিশ্বকোষ।
প্রশ্ন পাঠাতে নিচের ইমেইল ব্যবহার করুন।
inqilabqna@gmail.com

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (6)
আরমান ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৪:০৩ এএম says : 1
সুন্দর করে মাসয়ালাটি বুঝিয়ে দেয়ার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ।
Total Reply(0)
সাইফুল ইসলাম ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৪:০৪ এএম says : 1
আল্লাহ আমাদেরকে ইসলামের প্রতিটি বিধান মেনে চলার তৌফিক দান করুক
Total Reply(0)
রকিবুল ইসলাম ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১০:৫৬ এএম says : 1
প্রতিদিন বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেয়ার মাধ্যমে আমাদের ধর্মীয় জ্ঞান আপনারা সমৃদ্ধ করছে। আল্লাহ আপনাদেরকে উত্তম জাযাহ প্রদান করুক
Total Reply(0)
লিয়াকত আলী ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১০:৫৭ এএম says : 1
নামাজ বেহেশতের চাবি। কোন অবস্থাতেই এটা ছাড়া যাবে না
Total Reply(0)
জুয়েল ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১০:৫৮ এএম says : 1
ঈমানের পর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল নামাজ। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আল্লাহর পক্ষ থেকে বার বার নামাজের তাগিদ পেয়েছেন। কুরআনে পাকে আল্লাহ তাআলা বিভিন্ন জায়গায় সরাসরি ৮২ বার সালাত শব্দ উল্লেখ করে নামাজের গুরুত্ব তুলে ধরেছেন।
Total Reply(0)
হুমায়ূন কবির ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ১০:৫৯ এএম says : 1
আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে সহিহ তরিকায় সঠিক পদ্ধতিতে নির্ধারিত সময়ে নামাজ আদায় করার তাওফিক দান করুন। ফরজ নামাজ আদায়ের পাশাপাশি নফল নামাজ আদায় করার তাওফিক দান করুন। নামাজকে পরকালের নাজাতের ওসিলা বানিয়ে দিন। আমিন।
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন