বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৬ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

বগুড়া জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের নতুন কমিটি নিয়ে বিতর্ক, মামলা হল আদালতে

বগুড়া ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ৭ অক্টোবর, ২০২১, ১১:৩৫ এএম

বগুড়া জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের নতুন কমিটির সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষণাকে চ্যালেঞ্জ করে সম্মেলনের ৪ দিন পর আদালতে মামলা হয়েছে এবং মামলার আর্জি মোতাবেক আদালতের বিজ্ঞ বিচারক বিবাদীগনকে শো’কজ নোটিশ ইস্যু করেছেন। ৫ দিনের মধ্যে শো’কজের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

৬ অক্টোবর বগুড়ার ১ম জেলা যুগ্ম জজ আদালতে বাদী হয়ে মামলাটি করেছেন বগুড়া জেলা জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সদ্য বিলুপ্ত ঘোষিত কমিটির সাধারন সম্পাদক সুরাইয়া নিগার সুলতানা ডরোথি বলে ইনকিলাবকে জানান বাদী পক্ষের আইনজীবী এ্যাডভোকেট সৈয়দ আসিফুর রহমান ।

মামলার কারন সম্পর্কে জানতে চাইলে নিগার সুলতানা ডরোথি বলেন, বিগত ২ অক্টোবর পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচী অনুযায়ী বগুড়া জেলা পরিষদ মিলনায়তনে দলের সম্মেলন ও কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয় । কাউন্সিলে গঠনতন্ত্রের ন্যুনতম বিধি বিধান না মেনেই কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সাবিয়া সাবরিন পিংকি সরকারকে সাধারণ সম্পাদক ঘোষনা করেছেন। অথচ পিংকি বগুড়া জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সদস্যই নন ।

বিষয়টি তিনি কেন্দ্রীয় নেতাদের বুঝানোর চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছেন। তারা প্রতিকার বা সংশোধন না করায় তিনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রতিবাদী পোষ্ট করেছেন। এতেও প্রতিকার না পেয়ে তিনি আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন। ৬ তারিখে মামলা দায়েরের প্রেক্ষিতে আদালত যে পদক্ষেপ নিয়েছেন তাতে তিনি সন্তুষ্ট বলেও জানান।

এদিকে দীর্ঘ ৮ বছর পর বগুড়া জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সম্মেলন ও কাউন্সিল এবং নতুন কমিটি গঠন প্রক্রিয়ার অসচ্ছতা ও ত্রুটিকে ঘিরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম গুলোতে লেখালেখি এবং সম্মেলন উপলক্ষে কেন্দ্রীয় সভাপতি/সম্পাদকের সাথে ২০ জনের বগুড়ায় আগমন এবং একটি ৫ তারকামানের হোটেলে টানা পাঁচদিন অবস্থান করা নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লেখালেখি/ট্রল ইত্যাদিতে খোলাখুলিভাবে টাকা ও উপঢৌকনের বিনিময়ে কমিট গঠনের বিষয়টি উঠে আসায় বগুড়া জেলা আওয়ামীলীগের নেতা কর্মীরা রজ্জিত ও বিব্রত বোধ করছেন বলে মন্তব্য করেছেন অনেকেই ।

এদিকে এই নবগঠিত কমিটির সভাপতি ও শাজাহানপুর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান হেফাজত আরা মিরা ও কমিটি গঠন প্রক্রিয়ায় গভীর অসন্তোষ প্রকাশ করে জানান, ৫ অক্টোবর তাকে না জানিয়েই ২১ সদস্যের কমিটির ঘোষনা দেওয়া হয়েছে। ২১ সদস্যের ওই নতুন কমিটিতে অনৈতিক কাজের সাথে জড়িত অনেকেই রয়েছে যারা ভবিষ্যতে দলের জন্য ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে।

তবে মহিলা লীগের কেšদ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মাহমুদা বেগম অভিযোগের জবাবে সাংবাদিকদের বলেছেন,সাংগঠনিক বিধিবিধান মেনেই সচ্ছতার সাথে কমিটি গঠন ও ঘোষনা দেওয়া হয়েছে । যারা পদে আসতে পারেননি বা পদ হারিয়েছেন তারাতো কিছু বলতেই পারে।

উল্লেখ্য ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে খাদিজা খাতুন শেফালী সভাপতি ও সুরাইয়া নিগার সুলতানা ডরোথি সাধারন সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছিলেন । একই মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত গত ২ অক্টোবরের অনুষ্ঠিত সম্মেলনে দু’জনই বাদ পড়ে যান ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন