সোমবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২১, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ৩০ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

বিএনপির আন্দোলনের জনগণ সাড়া দেবে না: ওবায়দুল কাদের

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৯ অক্টোবর, ২০২১, ১:৪৭ পিএম | আপডেট : ১:৪৮ পিএম, ৯ অক্টোবর, ২০২১

ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিএনপি স্বতন্ত্র পরিচয়ে ‘ঘোমটা’ পরে অংশ নিচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেছেন, ‘বিএনপিকে ঘোমটা ছেড়ে প্রকাশ্যে দলীয় প্রতীকে নির্বাচনে অংশ নিয়ে সৎ সাহস দেখানো উচিত।’

শনিবার (৯ অক্টোবর) ওবায়দুল কাদের তার বাসভবনে ব্রিফিংকালে এসব কথা বলেন। শেখ হাসিনা সরকারের উন্নয়ন-অর্জনে দেশের মানুষ খুশি দাবি করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘সেজন্যই বিএনপির আন্দোলনের জনগণ সাড়া দেবে না। বিএনপির নিরপেক্ষ সরকারের দাবিতে এক দফার আন্দোলনের রঙিন খোয়াবও অচিরেই দুঃস্বপ্নে রূপ নেবে। পরবর্তী নির্বাচনের ব্যাপারে সংবিধানের বাইরে যাওয়ার কোনো সুযোগ নেই।’

আবরার হত্যা নিয়ে বিএনপি মহাসচিবের বক্তব্য প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘তাদের শাসনামলে অপকর্মের জন্য দলীয় একজন লোকেরও বিচার হয়েছে? কোনো নজির দেখাতে পারবেন? শেখ হাসিনার সরকারই বিশ্বজিৎ ও বরগুনার রিফাত হত্যার বিচার করেছে।’

দলীয় পরিচয়ে কাউকে ছাড় দেওয়া হয়নি উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘আবরার হত্যা মামলায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ব্যবস্থা নিয়েছে। সাংগঠনিক ও দলীয়ভাবেও ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।’

বর্তমানে মামলাটির বিচার প্রক্রিয়াধীন জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘শেখ হাসিনা সরকার অপরাধীকে অপরাধী হিসেবেই দেখে। আবরার হত্যার সঙ্গে জড়িত প্রায় সবাই ছাত্রলীগ পরিচয়ের। তাদের কাউকে ছাড় দেওয়া হয়নি। সুতরাং অপরাধী যে দলেরই হোক না কেন, তাকে বিচারের আওতায় আনতে হবে।’

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (2)
মোহাম্মদ দলিলুর রহমান ৯ অক্টোবর, ২০২১, ৩:২৪ পিএম says : 0
আছতে আছতে রং বদলি হইতেছে,চোয়ারা মলিন হতেছে,চাঁপা বাজি চলবে না,সংবিধান জনগণের সংবিধান আপনাদের একা নয়,সংবিধান সংশোধন করা জনগণের এখতিয়ার,সংবিধান বদলি না করলে,রাষ্ট্র পতি পদ্ধতি বাতিল করা হয়েছে সেটা করার সময় সংবিধান সংশোধন কি করে করেছে,অবশ্যই জনগণের ইচচায় হয়েছে,সেটা করা হয়েছিল জনগণের অধিকার ফিরিয়ে আনতে জনগণ সাধীন ভাবে কথা বলার জন্যিই সংসদীয় পদ্ধতি হয়েছে,কিন্তু সংসদীয় পদ্ধতি হওয়ার পর দেখা যাচ্ছে যে দলই ক্ষমতায় আসেন,দলীয় ভাবে ক্ষমতার অপব্যবহার করছেন,আগে রাষ্ট্র পতি পদ্ধতি থাকতে জনগণ সামান্য অধিকার ও ছিল বর্তমান এই নোংরা কাচরা দলীয় আমলাতান্ত্রিক সংসদীয় পদ্ধতি সেটি কেও নিয়ে গেছে,আজ এই দলীয় আমলাতান্ত্রিক সংসদীয় পদ্ধতি জনগণের জন্য বিপদ হয়ে পড়েছে,জনগণ ঘুম খুন হত্যা ধর্ষণ রিমান্ড জেল এই গুলি ছাড়া অন্য কিছু নেই,জনগণ ভোট দিয়ে একজন ভালো সংসদ সদস্য করবেন সেটা ও সম্ভব নয়,ভোট রাতে হয়ে যায় এবং ভালো সংসদ সদস্যের বদলে বিনা ভোটে হকার রাস্তার মাস্তান নর্তকী রাস্তায় গানবাজনা যাত্রার লোক এরা বিনা ভোটে সংসদ সদস্য হয়ে,সংসদের মানসম্মান নষ্ট করেছেন,কিন্তু এই গুলি হতো না ,যদি পাঁচ বসর শেষ হলে ক্ষমতা হাতে না রেখে নির্বাচন হতো,কিন্তু আপনারা ক্ষমতা হাতে রেখে নিজের ইচ্ছা মতে সব কিছু করেন....
Total Reply(0)
Monir ৯ অক্টোবর, ২০২১, ৪:২৩ পিএম says : 0
তত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্হা বিলুপ্তি করতে জনগনের ভোট নেয়া হয়নি । জনগনে মতামত কিভাবে আদালত দেয় ?
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন