শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ০৬ কার্তিক ১৪২৮, ১৪ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

পাঁচ কিলোমিটার বাঁক সোজা করতে ৩৬ কোটি টাকা

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১১ অক্টোবর, ২০২১, ১২:০০ এএম

জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় অনুমোদিত প্রকল্পে সড়কের পাঁচ কিলোমিটার বাঁক সোজা করতে ৩৫ কোটি ৯৬ লাখ ৯২ হাজার টাকা ব্যয় করা হবে। অনুমোদিত এই ব্যয়ে প্রতি কিলোমিটার বাঁক সোজা করতে ৭ কোটি ১৬ লাখ ৫১ হাজার টাকা খরচ হবে।

গত ৫ অক্টোবর একনেক সভায় ‘টাঙ্গাইল-দেলদুয়ার-লাউহাটি-সাটুরিয়া-কাওয়ালীপাড়া-কালামপুর বাসস্ট্যান্ড সড়ক আঞ্চলিক মহাসড়কের যথাযথ মান ও প্রশস্ততায় উন্নীতকরণ’ শীর্ষক প্রকল্পটি অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। অনুমোদিত প্রকল্পেই এমন আবদার করা হয়েছে।

সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের এ প্রকল্পটি বাস্তবায়নের দায়িত্ব পালন করবে সড়ক ও জনপথ অধিদফতর। প্রকল্পটি ঢাকা জেলার ধামরাই উপজেলা, মানিকগঞ্জের সাটুরিয়া উপজেলা এবং টাঙ্গাইল জেলার দেলদুয়ার ও নাগরপুর উপজেলায় বাস্তবায়ন করা হবে।

সংশ্লিষ্টরা জানায়, প্রকল্পটি বাস্তবায়নের মোট ব্যয় ধরা হয়েছেÑ ১ হাজার ৪৩৫ কোটি ৮৯ লাখ টাকা ব্যয় করা হবে। সম্পূর্ণ সরকারি অর্থায়নে প্রকল্পটি চলতি বছরের জুলাই থেকে ডিসেম্বর ২০২৩ সালে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হবে। প্রকল্পের উদ্দেশ্য হচ্ছেÑ টাঙ্গাইল, দেলদুয়ার, নাগরপুর, ধামরাই ও সাটুরিয়া উপজেলার সঙ্গে মানিকগঞ্জ এবং ঢাকার মধ্যে স্বল্পতম সময়ে নিরবচ্ছিন্ন ও নিরাপদ সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা স্থাপন করা।

অনুমোদিত প্রকল্পের বিভিন্ন অঙ্গভিত্তিক পরিমাণ ও ব্যয় বিভাজনে দেখা গেছে, এ প্রকল্পের ভূমি অধিগ্রহণে ৭০৪ কোটি ৬০ লাখ টাকা ব্যয় হবে। প্রধান কার্যক্রম হচ্ছেÑ ৭৩ দশমিক ৪৪ হেক্টর ভূমি অধিগ্রহণ, ৫টি পিসি গার্ডার সেতু নির্মাণ (মোট দৈর্ঘ্য ৩৮১ দশমিক ১৪ মিটার, ৬ দশমিক ৬৫ কিলোমিটার পেভমেন্ট প্রশস্ত/মজবুতিকরণ (৩ দশমিক ০৫ মিটার হতে ৭ দশমিক ৩০ মিটার প্রস্থ), ১৩ কিলোমিটার পেভমেন্ট প্রশস্ত/মজবুতিকরণ (৫ দশমিক ৫০ মিটার হতে ৭ দশমিক ৩০ মিটার প্রস্থ), ১২ দশমিক ৮৯ কিলোমিটার পেভমেন্ট প্রশস্ত/মজবুতিকরণ (৫ মিটার হতে ৭ দশমিক ৩০ মিটার প্রস্থ), ৯ দশমিক ৪৬ কিলোমিটার আরসিসি রিজিড পেভমেন্ট (১০ দশমিক ৩০ মিটার প্রস্থ) নির্মাণ, ২৫ দশমিক ৭০ কিলোমিটার ওভারলে/সার্ফেসিং (ডিবিএস) (৭ দশমিক ৩০ মিটার প্রস্থ) ও ৭ দশমিক ০২ কিলোমিটার সার্ফেসিং (১০ দশমিক ৩০মিটার প্রস্থ), একটি গ্রেড সেপারেটেড ইন্টারসেকশন ও ১টি ইউলুপ/আন্ডারপাস নির্মাণ, ৩১টি আরসিসি বক্স কালভার্ট নির্মাণ (মোট দৈর্ঘ্য ৪৪৬ মিটার), ১৩ দশমিক ২৬ লাখ ঘনমিটার সড়ক বাঁধ প্রশস্তকরণ ও ৫ দশমিক ০২ কিলোমিটার বাঁক সরলীকরণ, ১৩৪৪০ মিটার সসার ড্রেন, ৩১৫৩ মিটার আরসিসি বক্স/কাভার্ড ড্রেন ও ২১০০ মিটার আরসিসি রিটেইনিং ওয়াল নির্মাণ, ৩০ হাজার ১০০ বর্গমিটার কংক্রিট সেøাপ প্রটেকশন উইথ জিও-টেক্সটাইল এবং ইউটিলিটি স্থানান্তর, বৃক্ষরোপণ, সাইন সিগন্যাল, কিলোমিটার পোস্ট, রোড মার্কিং, ট্রাফিক সাইন, নির্মাণকালীন রক্ষণাবেক্ষণসহ অন্যান্য আনুষঙ্গিক কাজ করা হবে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (7)
Md Riyad Hossain ১১ অক্টোবর, ২০২১, ১:০৭ এএম says : 0
বাংলাদেশে টাকা তো শুধু কুত কুত করে।
Total Reply(0)
Mohin Uddin ১১ অক্টোবর, ২০২১, ১:০৮ এএম says : 0
৭০৪ কোটি টাকা প্রতি কিলোমিটার যাহা গিনেসরেকর্ড বুকে নাম লিখাবে। টাকা দিয়া পিলার বা ঢালাই দিলে ও এতো টাকা লাগবে না।
Total Reply(0)
Wahid Zaman ১১ অক্টোবর, ২০২১, ১:০৯ এএম says : 0
শতভাগ সচ্চতার জন্য একমাত্র সেনাবাহিনীকে দায়িত্ব দেওয়া হোক।নির্ধারিত সময়ের আগেই প্রকল্পের কাজ শেষ হবে।
Total Reply(0)
Smart Tarek ১১ অক্টোবর, ২০২১, ১:১০ এএম says : 0
যদি টোল দিয়ে সড়ক ব্যবহার করতে হয়, তাহলে কিসের উন্নয়ন, উন্নয়নের গল্প শোনানো হচ্ছে কেন
Total Reply(0)
Md Asadul Alam ১১ অক্টোবর, ২০২১, ১:১০ এএম says : 0
আমাদের মত গরিব দের জন্য ও টুল বিহীন রাস্তা রাখবেন দয়া করে।দেশ তো সবারি বাবার নাকি?
Total Reply(0)
Ab Rayhan ১১ অক্টোবর, ২০২১, ১:১০ এএম says : 0
শুধু উন্নয়ন আর উন্নয়ন, এদিক দিয়ে চাল ডাল নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম আকাশচুম্বী, সেদিকে কোন খেয়াল নাই কারো
Total Reply(0)
Sohel Rana ১১ অক্টোবর, ২০২১, ১:১০ এএম says : 0
১ কিলো রাস্তা করতে ১ হাজার কোটি টাকা যদি লাগে, তার মধ্যে ৫০০ কোটি যাবে পকেটে, ২ শত কোটি দিতে হবে চাঁদা, আর ৩০০ কোটি টাকার কাজ, ২ বছর পরে দেখবে রাস্তা খসে খসে পড়ছে, এই হলো আমাদের বাংলাদেশ, জনগণের টাকায় পকেটে ভারি,
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন