সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৩ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

প্রবাস জীবন

পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সাঃ) উদযাপনের মাধ্যমে মানুষের অন্তরে নবীপ্রেম সৃষ্টি হয় -শায়খুল হাদিস আল্লামা নজরুল ইসলাম

বার্মিংহাম বাংলাদেশ ইসলামিক সেন্টারে ঈদে মিলাদুন্নবী (সাঃ) ও ইছালে ছাওয়াব মাহফিল অনুষ্ঠিত

যুক্তরাজ্য সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১১ অক্টোবর, ২০২১, ৯:৪২ এএম

বার্মিংহাম থেকে প্রতিনিধিঃ যুক্তরাজ্যের বার্মিংহামের লজেল উইলস্ট্রিট বাংলাদেশ ইসলামিক সেন্টার এন্ড জামে মাসজিদের উদ্যোগে গত ১০ অক্টোবর রবিবার সকাল ১১টায় পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সাঃ) এবং অত্র সেন্টারের প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে অদ্যবধি, বিশেষ করে বৈশ্বিক মহামারি কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়ে যে সকল ট্রাস্টি, সদস্য ও মুসল্লিয়ানে কেরাম ইন্তেকাল করেছেন, তাঁদের ইছালে ছাওয়াব উপলক্ষে বিশেষ ওয়াজ, মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত মাহফিলে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ ইসলামিক সেন্টার এন্ড জামে মাসজিদের পেট্টন বিশিষ্ট কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব আলহাজ নাছির আহমদ এবং উপস্থাপনা করেন বাংলাদেশ ইসলামিক সেন্টার এন্ড জামে মাসজিদের ইমাম ও খতিব মাওলানা হুসাম উদ্দিন আল হুমায়দী।
এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন লন্ডন দারুল হাদিস লতিফিয়ার মুহাদ্দিছ লন্ডনের ঐতিহ্যবাহী ব্রিকলেন জামে মাসজিদের খতিব, বিশিষ্ট ইসলামি চিন্তাবিদ শায়খুল হাদিস হযরত আল্লামা নজরুল ইসলাম, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বার্মিংহাম লতিফিয়া ফুলতলী কমপ্লেক্সের চেয়ারম্যান প্রিন্সিপাল মাওলানা এম এ কাদির আল হাসান, কভেন্ট্রি ফুলতলী ইসলামিক সেন্টারের পরিচালক মাওলানা হাফিয সাব্বির আহমদ, বার্মিংহাম সিরাজাম মুনিরা জামে মাসজিদের খাদিম মাওলানা আবুল হাসান।

মাহফিলের শুরুতে পবিত্র কুরআন থেকে তেলাওয়াত করেন বাংলাদেশ ইসলামিক সেন্টার ও জামে মাসজিদের সানী ইমাম ও শিক্ষক কারী মোজাম্মিল আলী। এতে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ইসলামিক সেন্টার এন্ড জামে মাসজিদের প্রেসিডেন্ট আলহাজ আব্দুল গফুর, ভাইস প্রেসিডেন্ট হাজী হারুন মিয়া ও সেক্রেটারি আলহাজ আজির উদ্দিন। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্হিত ছিলেন হাজী তেরা মিয়া, হাজী ফারুক মিয়া , হাজী মানিক আহমদ,

প্রধান অতিথির বক্তব্যে শায়খুল হাদিস হযরত আল্লামা নজরুল ইসলাম বলেন, মাহে রবিউন্ নূর তথা রবিউল আউয়াল শরীফ আসতেই চতুর্দিকে বসন্তকাল আগমন করে। প্রিয় আক্বা, মক্কী, মাদানী মুস্তাফা এর আশিকদের অন্তরে আনন্দের ঢেউ খেলে যায়।
যখন সমগ্র বিশ্ব কুফরী, শিরক, পশুত্ব আর বর্বরতার ঘোর অন্ধকারে আচ্ছন্ন হয়ে গিয়েছিল, ঠিক তখনি ১২ই রবিউন নূর এর রাতে মক্কায়ে মোকাররমায় হযরত সায়্যিদাতুনা মা আমিনা (রাঃ) এর পবিত্র ঘর থেকে এমন এক নূরের জ্যোতি বিচ্ছুরিত হল, যা সমগ্র বিশ্ব জগতকে আলোকিত করে দিল। ভূলুণ্ঠিত মানবতা যার আগমনের প্রতীক্ষায় ব্যাকুল ছিল, তাজেদারে মদীনা, রহমতের খযিনা, আল্লাহর প্রিয় মাহবুব সমগ্র বিশ্ব জগতের জন্য রহমত হয়ে এই পৃথিবীতে শুভাগমণ করলেন।
শায়খুল হাদিস হযরত আল্লামা নজরুল ইসলাম ধুমধামের সাথে ঈদে মিলাদুন্নবী (সাঃ) উদযাপন করার জন্য আল্লাহর প্রিয় রাসুল (সাঃ) এঁর অনুাসারীদের প্রতি আহ্বান জানান। তিনি বলেন, যেহেতু আবু লাহাবের মত কাফিরেরও বিলাদতে মুস্তাফার শুভাগমণের আনন্দ উদযাপন করার কারণে উপকার হয়েছে, তাহলে আমরাতো মুসলমান। আবু লাহাবতো আল্লাহর রাসূল এর শুভাগমণের খুশি উদযাপনের নিয়্যতে নয় বরং নিজের ভ্রাতুষ্পুত্র জন্ম নেওয়ার কারণে আনন্দিত হয়েছিল। এরপরও সে তার প্রতিদান পেয়েছিল। তাহলে আমরা যদি আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য আক্বা ও মাওলা, মুহাম্মদুর রাসূলুল্লাহ এর আগমণের আনন্দ উদযাপন করি, তাহলে কিভাবে বঞ্চিত থাকতে পারি?
তিনি আরো বলেন, পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সাঃ) পালনের মাধ্যমে মানুষের অন্তরে নবীপ্রেম সৃষ্টি হয়।

পরিশেষে মিলাদ ও বিশেষ মুনাজাতের মাধ্যমে মাহফিল সমাপ্ত হয়।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
Monjur Rashed ১১ অক্টোবর, ২০২১, ১১:১২ এএম says : 0
Eid E Miladunnabi is celebrated officially in most of the OIC member countries. It is a great occasion for Ahique E Rasul (sm).
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন