মঙ্গলবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০২ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিজরী

খেলাধুলা

শুরু থেকেই আছেন রিয়াদ

তামিমের অনুপস্থিতি তরুণদের জন্য চ্যালেঞ্জ

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৬ অক্টোবর, ২০২১, ১২:০০ এএম | আপডেট : ৭:৫৯ পিএম, ১৭ অক্টোবর, ২০২১

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রাক্বালে বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ পড়েছেন চোটে। পিঠের ব্যথায় খেলতে পারেননি দলের তিনটি প্রস্তুতি ম্যাচের একটিও। গত ৮ অক্টোবর ওমান ‘এ’ দলের বিপক্ষে প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচ খেলে বাংলাদেশ, যদিও তা ছিল অনানুষ্ঠানিক। তবে ১২ অক্টোবর শ্রীলঙ্কা ও ১৪ অক্টোবর আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে বিশ্বকাপের আনুষ্ঠানিক প্রস্তুতি ম্যাচের বাজেভাবে হেরেছে টাইগাররা। তবে বিশ্বকাপে দলের প্রথম ম্যাচ থেকেই খেলতে পারবেন বলে আশা প্রকাশ করেছেন অভিজ্ঞ এই সেনানী। গতপরশু আইসিসির সংবাদ সম্মেলনে এমন আশা ব্যক্ত করেছেন এই অলরাউন্ডার।

চোটের মাত্রা বেশি না হলেও টিম ম্যানেজমেন্ট কোনো ঝুঁকি নিতে চায়নি। আর এ কারণে দলের প্রস্তুতি ম্যাচগুলোতে তিনি ছিলেন বিশ্রামে। আগামীকাল স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে বিশ্বকাপের সপ্তম আসরে নিজেদের প্রথম ম্যাচে মাঠে নামবে বাংলাদেশ। তবে এই ম্যাচ থেকেই খেলতে পারবেন বলে বিশ্বাস টাইগার দলপতির, ‘ইঞ্জুরি ক্রমেই ভালো হচ্ছে। পিঠে একটু ব্যথা থাকায় প্রস্তুতি ম্যাচগুলোতে খেলিনি। কয়েক মাস আগেও চোটে পড়েছিলাম। টিম ম্যানেজমেন্ট এবার কোনো ঝুঁকি নিতে চায়নি। তবে আমি আশাবাদী, প্রথম ম্যাচ থেকেই খেলতে পারব।’

বাংলাদেশের বিশ্বকাপ স্কোয়াডে কোনো সহ-অধিনায়ক রাখা হয়নি। দলকে নেতৃত্বের সব পরিকল্পনা তাই সাজানো হয়েছে রিয়াদকে ঘিরেই। প্রস্তুতি ম্যাচে টাইগারদের নেতৃত্ব দিয়েছেন লিটন দাস। রিয়াদ না থাকায় আনুষ্ঠানিক দুই প্রস্তুতি ম্যাচে (শ্রীলঙ্কা ও আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে) টাইগারদের পারফরম্যান্স সন্তোষজনক ছিল না। তবে বাংলাদেশ দলের সমন্বয় নিয়ে তার কথা, ‘আমি সব সময়ই অভিজ্ঞতার মূল্য দিই। বিশেষ করে এই সংস্করণে। এ দিক থেকে আমাদের সাকিব আর মুশফিকের মতো দুজন অভিজ্ঞ খেলোয়াড় আছে। তবে সবচেয়ে বড় ব্যাপার অভিজ্ঞতা ও তারুণ্যের সমন্বয় ঘটানো।’ এবারের বিশ্বকাপে দলের লক্ষ্য নিয়ে মাহমুদউল্লাহ বলেছেন, ‘যতটা সম্ভব ভালো খেলতে চাই। প্রথমে সুপার টুয়েলভে উঠতে চাই। এরপর ম্যাচ ধরে ধরে এগোনোর পরিকল্পনা। আমরা চাই ভালো ক্রিকেট খেলতে।’

শুধুমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচ দিয়েই দলেকে বিচার করতে আপত্তি জানিয়ে মাহমুদউল্লাহ আশা দেখালেন তরুণদের নিয়ে। আর সেই সুযোগটিই মূলত করে দিয়েছেন তামিম ইকবাল। বিশ্বকাপ থেকে নিজেই সরে গেছেন দেশসেরা এই ওপেনার। তার অনুপস্থিতি দলের তিন টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান নাঈম শেখ, সৌম্য সরকার ও লিটন দাসের জন্য ‘সুযোগ’ বলে জানালেন মাহমুদউল্লাহ। তাদের ওপরই আস্থা রাখতে চান রিয়াদও। তামিমহীন বিশ্বকাপ এই তিন ক্রিকেটারের জন্য নিজেদের আরও মেলে ধরার সুযোগ বলে মনে করেন রিয়াদ, ‘তামিম অনেক বছর ধরেই বাংলাদেশের গুরুত্বপ‚র্ণ একজন খেলোয়াড়, এটা সত্যি। তামিমের অনুপস্থিতি নাঈম শেখের মত তরুণ ক্রিকেটারদের জন্য সুযোগ। এছাড়া লিটন আছে, সৌম্য আছে। আমার মনে হয় এটা তরুণদের কাছে নিজেকে প্রমাণের সুযোগ। দলের প্রয়োজনে এগিয়ে আসতে হবে তাদের।’

গত জুলাইয়ে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ খেলার পর বিশ্রামে যান তামিম। হাঁটুর চোট কাটিয়ে উঠতে তামিমের প্রয়োজন ছিল ৮ সপ্তাহের পুনর্বাসন। সেপ্টেম্বর মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহেই খেলার জন্য প্রস্তুত হয়ে যাওয়ার কথা ছিল। স্বভাবতই তামিমকে নিয়েই বিশ্বকাপ পরিকল্পনা সাজিয়েছিল বাংলাদেশ। তবে সেপ্টেম্বরের মাসের শুরুতে সবাইকে অবাক করে দিয়ে বিশ্বকাপ থেকে সরে দাঁড়ান তামিম। ২০২০ সালের মার্চে সর্বশেষ টি-টোয়েন্টি খেলা তামিম টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ থেকে সরে দাঁড়ালেও আস্থা প্রকাশ করেন দলের বর্তমান টপ অর্ডারের প্রতি। যদিও সর্বশেষ দুই সিরিজে ফর্মে ছিলেন না ব্যাটিং লাইনআপের শীর্ষ ব্যাটাররা।

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন