সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৩ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

১৭৮ এসপি-এএসপি পদ বিলুপ্ত হচ্ছে

আজ প্রশাসনিক উন্নয়ন সংক্রান্ত সচিব কমিটির সভা কৃষি নীতি সহায়তা ইউনিট কর্মচারী নিয়োগ বিধিমালা

পঞ্চায়েত হাবিব | প্রকাশের সময় : ১৮ অক্টোবর, ২০২১, ১২:০০ এএম

কৃষি নীতি সহায়তা ইউনিট কর্মচারী নিয়োগ বিধিমালা ২০২০-এর অনুমোদন দিচ্ছে প্রশাসনিক উন্নয়ন সংক্রান্ত সচিব কমিটি। এছাড়া পুলিশের সাংগঠনিক কাঠামো সংস্কার করা হচ্ছে। বিদ্যমান জনবল কাঠামো পরিবর্তন করে নিম্ন পর্যায়ের ক্যাডার পদের সংখ্যা কমানো প্রস্তুাব উখাপন করা হচ্ছে। তার পরিবর্তে বাড়তি উচ্চপদ সৃষ্টি করা হচ্ছে। এ জন্য বিভিন্ন ইউনিটে পুলিশ সুপার (এসপি) ও সহকারী পুলিশ সুপারের (এএসপি) ১৭৮টি পদ বিলুপ্ত করা হবে। এছাড়া ১৬টি বিষয়ের প্রস্তাব অনুমোদন দেয়া হবে।

আজ সোমবার মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিতব্য প্রশাসনিক উন্নয়ন সংক্রান্ত সচিব কমিটির ভার্চুয়াল সভায় এটি অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করা হবে। কমিটির অনুমোদন পেলে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সম্মতি হলেই পূর্বের বিভিন্ন ইউনিটের এসপি ও এএসপির ১৭৮টি পদ বিলুপ্ত হবে। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের প্রশাসনিক উন্নয়ন ও সমন্বয়-অধিশাখার কার্যপত্রে বলা হয়, পুলিশের সাংগঠনিক কাঠামো সংস্কার করা হচ্ছে।

বিদ্যমান জনবল কাঠামো পরিবর্তন করে নিম্ন পর্যায়ের ক্যাডার পদের সংখ্যা কমানো প্রস্তুাব উখাপন করা হচ্ছে। তার পরিবর্তে বাড়তি উচ্চপদ সৃষ্টি করা হচ্ছে। এ জন্য বিভিন্ন ইউনিটে পুলিশ সুপার (এসপি) ও সহকারী পুলিশ সুপারের (এএসপি) ১৭৮টি পদ বিলুপ্ত করা হবে। এছাড়া ১৬টি বিষয়ের প্রস্তাব অনুমোদন দেয়া হবে। এরই মধ্যে এসব পদ বিলুপ্ত, সমন্বয় ও সৃজনের ব্যাপারে আর্থিক অনুমোদন দিয়েছে অর্থ বিভাগ। এরপর সচিব কমিটির অনুমোদনের জন্য সারসংক্ষেপ প্রস্তত করেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ।

ওই কর্মকর্তা আরও জানান, বিলুপ্ত পদের বিপরীতে চারটি অতিরিক্ত আইজিপি (গ্রেড-২), ডিআইজি ১৮টি, অতিরিক্ত ডিআইজি ৮৮টি, পুলিশ সুপার (এসপি) ২০টি এবং ৪৮টি অতিরিক্ত পুলিশ সুপারের পদ সৃষ্টি করা হবে। এ জন্য প্রতিবছর ব্যয় হবে ৭ কোটি ৭৭ লাখ ৪ হাজার ২০০ টাকা। গত ২ আগস্ট পুলিশ অধিদপ্তর থেকে ২২৮টি পদ সৃজন, বিলুপ্ত, সমন্বয় বিবরণসহ একটি প্রস্তাব স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের সভাপতিত্বে মন্ত্রিপরিষদ সচিব, জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব, অর্থ বিভাগের সিনিয়র সচিব, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব ও আইজিপির উপস্থিতিতে একটি অনানুষ্ঠানিক বৈঠক হয়। এতে বিসিএস (পুলিশ) ক্যাডারের মোট পদসংখ্যা ৩ হাজার ১২৩ পদ অপরিবর্তিত রেখে প্রয়োজন অনুযায়ী বিলুপ্ত, সৃজন ও সমন্বয়-সংক্রান্ত আলোচনা হয়। এরই পরিপ্রেক্ষিতে পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটের সাংগঠনিক কাঠামোর অভ্যন্তরীণ সংস্কার আনা হচ্ছে। নিয়ম অনুযায়ী, এটি প্রশাসনিক উন্নয়ন-সংক্রান্ত সচিব কমিটিতে অনুমোদন নিতে হবে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ থেকে এ-সংক্রান্ত সার-সংক্ষেপ তৈরি করা হয়েছে।

পুলিশ অধিদপ্তর থেকে পুলিশের সাংগঠনিক কাঠামোর অভ্যন্তরীণ সংস্কারের মাধ্যমে বিভিন্ন পদবির (এসপি ও এএসপি) ১৭৮টির চেয়েও আরও বেশি সংখ্যক (২২৮টি) পদ বিলুপ্ত করে সমসংখ্যক উচ্চতর পদ সৃষ্টির প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল। এর মধ্যে ছিলÑ অতিরিক্ত আইজিপির চারটি, ডিআইজির ১৮টি, অতিরিক্ত ডিআইজির ১০০টি, এসপির ২০টি ও অ্যাডিশনাল এসপি ৮৬টিসহ ২২৮টি পদ সৃজন ও সমন্বয় এবং ১২২টি যানবাহন টিওঅ্যান্ডইভুক্ত করলে পুলিশ অধিদপ্তর থেকে প্রস্তাব পাঠানো হয়।

ওই প্রস্তাবটি সম্মতি প্রদানের জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ থেকে সম্মতি প্রদানের জন্য জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়কে অনুরোধ করে পত্র দেওয়া হয়। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় ওই প্রস্তাবে সম্মতি দিয়ে পরে অর্থ মন্ত্রণালয়কে সম্মতি প্রদানের অনুরোধ করে। অর্থ বিভাগ পর্যালোচনা শেষে ২০টি পুলিশ সুপার (এসপি) ও ১৫৮টি সহকারী পুলিশসহ (এএসপি) ১৭৮টি বিলুপ্ত করে সমপদে অতিরিক্ত আইজি (গ্রেড-২) চারটি, উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) ১৮টি, অতিরিক্ত ডিআইজি ৮৮টি, পুলিশ সুপার (এসপি), ২০ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ৪৮টিসহ ১৭৮টি পদ সৃজন ও সমন্বয়ের সম্মতি প্রদান করে। পদগুলোর বেতন স্কেল এবং নিয়োগের যোগ্যতা/শর্ত অর্থ বিভাগের বাস্তবায়ন অনুবিভাগ থেকে নির্ধারণ করা হয়েছে। ১৯৮৩ থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত সময়ের মধ্যে প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে এ পদগুলো সৃষ্টি করা হয়েছে। এ ছাড়া বর্তমানে র‌্যাবের কোটাসহ পুলিশের এএসপির মঞ্জুরি করা পদ রয়েছে ১ হাজার ৩৬৭টি।

মৎস্য অধিদপ্তরে বাস্তবায়িত পার্বত্য চট্টগ্রামের মৎস্যচাষ উন্নয়ন ও সম্প্রসারণ প্রকল্পের আওতায় রাঙ্গামাটি, বান্দরবান ও খাগড়াছড়ি জেলার নির্মিত ৩টি মৎস্যবীজ উৎপাদন খামারের জন্য রাজস্ব খাতে ১২টি পদ সৃজন। কারা অধিদপ্তরাধীন বিভাগীয় দপ্তর ও কারাগারের জন্য আউটসোর্সিং হিসাবে সৃজিত অফিস সহায়কের ৭টি পদ রাজস্ব খাতে সৃজন।

চামড়া শিল্প নগরী হেমায়েতপুর-সভার ৪র্থ সংশোধিত শীর্ষক প্রকল্পের ৩২টি পদ সৃজন করা হবে। বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটির মোবাইল কোর্ট পরিচালনার জন্য রাজস্ব খাতে অস্থায়ী ১৪টি পদ সৃজন করা হবে। এছাড়া ঠাকুরগাঁও জেলা সদর থানাকে বিভক্ত করে ভুল্লী থানা স্থাপন এবং কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ২৪টি পদ সৃজন করার প্রস্তাব দেয়া হয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (6)
Adnan Saif ১৮ অক্টোবর, ২০২১, ১:৫৮ এএম says : 0
পুলিশ ক্যাডারের(এএসপি/অতিরিক্ত পুলিশ সুপার)নিম্ন পদ বিলুপ্ত করে উচ্চপদের সংখ্যা বাড়ালে একটা হযবরল অবস্থার সৃষ্টি হতে পারে। বাংলাদেশে এখনো অনেক চৌকস ও দায়িত্ববান পুলিশ উপপরিদর্শক/পরিদর্শক আছেন যাঁরা নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন এএসপিতে পদোন্নতি পাবার আসায়। সেখানে যদি পুলিশ পরিদর্শকদের পদোন্নতি বিলুপ্ত হয় তাহলে অনেকের মধ্যে হতাশা সৃষ্টি হবে আর কেউ কেউ তো থানাটাকেই নিজের বানিয়ে ফেলবে।
Total Reply(0)
Munna ১৮ অক্টোবর, ২০২১, ১:৫৮ এএম says : 0
অফিসার ইনচার্জ (ওসি) পদকে বিসিএসের আন্ডারে নিয়ে আসা উচিত। তাইলে যোগ্য , মেধাবী ও দুর্নীতি মুক্ত পুলিশ বাহিনী গঠন করা সম্ভব হবে
Total Reply(0)
Md Golam Zilani ১৮ অক্টোবর, ২০২১, ১:৫৮ এএম says : 0
পুলিশের নিম্ন পর্যায়ে আরো ২-১টা নতুন পদ সৃষ্টি করা জরুরি!
Total Reply(0)
তাসনুভা শারমিন তমা ১৮ অক্টোবর, ২০২১, ১:৫৯ এএম says : 0
Good decision. ASPs should be appointed now as OC. Hence, quality of service will be accelerated tremendously.
Total Reply(0)
Hafizul Islam Jibon ১৮ অক্টোবর, ২০২১, ১:৫৯ এএম says : 0
উন্নত বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে বাংলাদেশ পুলিশ এগিয়ে যাবে। এমন স্বপ্ন দেখি।
Total Reply(0)
MD Shamsur Rhaman ১৮ অক্টোবর, ২০২১, ১:৫৯ এএম says : 0
আরো ৬০ লক্ষ পুলিশের নতুন অফিসার পদ তৈরী করার জন‍্য সরকারের কাছে জোর দাবি জানাচ্ছি।
Total Reply(0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন