বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৬ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

অপহরণের পর কলেজছাত্রকে জোরপূর্বক বিয়ে করলো তরুণী

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৮ অক্টোবর, ২০২১, ৫:৫৬ পিএম

পটুয়াখালী সরকারী কলেজের অনার্স ৪র্থ বর্ষের ছাত্র নাজমুল আকনকে (২৩) অপহরণের পর অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে জোরপূর্বক বিয়ে করার অভিযোগ উঠেছে এক তরুণীর বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে ওই তরুণীসহ তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে। গত ৩ অক্টোবর ভুক্তভোগী নাজমুল বাদী হয়ে পটুয়াখালী সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করেন (মামলা নং সিআর ১০৪৬/২০২১)।

মামলায় ইশরাত জাহান পাখি (২৫) নামের ওই তরুণীসহ আরও অজ্ঞাত ৬ থেকে ৭ জনকে আসামি করা হয়েছে। আদালত মামলাটি গ্রহণ করে পটুয়াখালী সদর থানার ওসিকে এজাহার নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। এদিকে নাজমুলকে জোরপূর্বক বিয়ে করার একটি ভিডিও চিত্র আদালতে উপস্থাপন করা হয়েছে। আর মামলা দায়েরের পর ১৫ অক্টোবর দুপুরে ওই তরুণী নিজেকে নাজমুলের স্ত্রী দাবি করে নাজমুলের বাবা’র বাড়ি মির্জাগঞ্জে অবস্থান নেন। এ ঘটনায় পুরো মির্জাগঞ্জ এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে। নাজমুল মির্জাগঞ্জ উপজেলার মির্জাগঞ্জ ইউনিয়নের জালাল আকনের ছেলে এবং অভিযুক্ত নারী ইশরাত জাহান পাখি একই উপজেলার গাজিপুর এলাকার মো. আউয়াল হোসেনের মেয়ে।

মামলার নথির বরাত দিয়ে নাজমুলের আইনজীবী এড. আবদুল্লাহ্ আল নোমান জানান, তার মক্কেল নাজমুল পটুয়াখালী সরকারী কলেজের অনার্স ৪র্থ বর্ষের নিয়মিত ছাত্র এবং সে সরকারী কলেজের আবাসিক হোস্টেলে থাকেন। আসামী ইশরাত জাহান পাখি দীর্ঘদিন যাবত নাজমুলকে মোবাইল ফোনে এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রেমের প্রস্তাবসহ বিয়ের প্রলোভন দেখায়। কিন্তু নাজমুল রাজি না হওয়ায় গত ২৭ সেপ্টেম্বর পটুয়াখালী লঞ্চঘাট এলাকা থেকে নাজমুলকে চোখ বেধে অপহরণ করে ২৮ সেপ্টেম্বর অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে সাত আটজন ব্যক্তি বলপূর্বক তাকে একটি নীল কাগজে স্বাক্ষর করতে বাধ্য করে। ধারনা করা হচ্ছে এ দিয়ে তারা একটি কাবিননামা তৈরীর পায়তার করেন। এ ঘটনায় আমরা দন্ডবিধির ১৪৩/৩৬৫/৩৭৯/৩৮৪/৫০৬ ধারা মোতাবেক আদালতে মামলা দায়ের করেছি। আদালত মামলাটি এজাহার হিসেবে গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন।

এদিকে নাজমুলকে অপহরণ এবং পরে জোরপূর্বক বিবাহ করার একটি ভিডিও ফুটেজ আদালতে উপস্থাপন করা হয়েছে। ভিডিওতে দেখা যায়, একটি কক্ষে এক নারীর (ইশরাত জাহান পাখি) বাম পাশে নাজমুল বসে আছেন, পেছন থেকে নাজমুলের মাথার দুইদিক থেকে এক ব্যক্তি ধরে রেখেছে। সেখানে আর কয়েক জনের উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায়। এসময় ওই নারীকে নীল কাগজে স্বাক্ষর করতে দেখা গেছে। স্বাক্ষর গ্রহণের পর নাজমুলকে মিস্টি খাইয়ে দিলে নাজমুল তা মুখ থেকে ফেলে দেয়। এ বিষয়ে ইশরাত জাহান পাখি সাংবাদিকদের বলেন, নাজমুলের সাথে তার দীর্ঘ দুই বছর প্রেমের সম্পর্ক ছিলো এবং নাজমুল নিজ ইচ্ছায় বিয়ে করেছেন। এখানে অপহরণ কিংবা জোরপূর্বক বিয়ে করার যে অভিযোগ করা হয়েছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা। এ কারণে বর্তমানে তিনি নাজমুলের বাড়িতে অবস্থান করছেন। পটুয়াখালী সদর থানার ওসি চার্জ মো. মনিরুজ্জামান জানান, আদালতের নির্দেশে মামলাটি এজাহার হিসেবে গ্রহণ করা হয়েছে। তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (6)
Mridha Rajib ১৮ অক্টোবর, ২০২১, ৯:০৩ পিএম says : 0
পুরুষ নির্যাতনের তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। পাশাপাশি এই ঘটনা সাথে যারা জড়িত তাদের আইনের আওতায় এনে, দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাই।
Total Reply(0)
MH Rahman Habib ১৮ অক্টোবর, ২০২১, ৯:০৩ পিএম says : 0
একই কাজ কোনো ছেলে করলে নারীবাদীরা গর্জে উঠতো! আর এতক্ষণে ছেলে গোষ্ঠী সহ হাজতে থাকতো! নারী পুরুষ ভেদাভেদ করে আইন কেন? এই দুষ্কৃতিকারীরা শাস্তি প্রাপ্য নয় কি??
Total Reply(0)
Sami Chowdhury ১৮ অক্টোবর, ২০২১, ৯:০৪ পিএম says : 0
পুরুষ নির্যাতনের আইন নেই চেপে যাও
Total Reply(0)
উমেদ আহমদ ১৮ অক্টোবর, ২০২১, ৯:০৪ পিএম says : 0
তাকে বিশ্বপ্রেমিকা হিসেবে শান্তিপদক নোবেল দেওয়া হোক।
Total Reply(0)
Mohammad Mamun Patwary ১৮ অক্টোবর, ২০২১, ৯:০৪ পিএম says : 0
তাদের সংসার সুখী হবে।স্বামী স্ত্রী পরিপুর্ন ভালোবাসা থাকবে।এ পুরুষকে কখনো অবহেলা করবেনা,তাহাকে রাজার মতো মর্যাদা দিবে।
Total Reply(0)
jack ali ২৪ অক্টোবর, ২০২১, ১:৩৭ পিএম says : 0
আজকে ........ সরকার দেশটাকে কোন পর্যায়ে নিয়ে গেছে এমন কোন জায়গা নাই যেখানে হারাম কাজ নাই মুসলিম হিসেবে বাস করা এখন প্রচন্ড কঠিন হয়ে গেছে
Total Reply(0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন