মঙ্গলবার, ৩০ নভেম্বর ২০২১, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৪ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

হাফতারের বিরুদ্ধে মামলা চালিয়ে যান

লিবিয়ার শহীদ পরিবারের আহবান

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৯ অক্টোবর, ২০২১, ১২:০৩ এএম

২০১৯ সালে লিবিয়ায় রাজধানীতে হামলার সময় সঙ্ঘটিত অপরাধের জন্য খলিফা হাফতারের মিলিশিয়ার বিরুদ্ধে মামলা চালিয়ে যাওয়ার আহবান জানিয়েছে শহীদদের পরিবার। শুক্রবার আল-গাদাবের বুরকানের শহীদদের পরিবার সমিতি (এএফএমবিএ) এই আহবান জানায়।
সমিতির সভাপতি কামাল আল জামাল তার ফেসবুক পেজে এ বিষয়ে একটি ভিডিও বিবৃতি পোস্ট করেছেন। হাফতারের মিলিশিয়া, আরব ও ইউরোপীয় দেশগুলোর সমর্থনে ৪ এপ্রিল, ২০১৯ থেকে ত্রিপোলির বিরুদ্ধে আগ্রাসন শুরু করে। লিবিয়ার সেনাবাহিনীর কাছে পরাজিত হওয়ার আগে তারা ব্যাপক ধ্বংসযজ্ঞ সহ শত শত সৈন্য ও বেসামরিক লোককে হত্যা ও আহত করে। আল-জামাল প্রকাশ বলেন, ‘আমি আপনাকে তাড়াতাড়ি করার জন্য এবং বিচারিক ও নির্বাহী কর্তৃপক্ষের কাছে বিজ্ঞপ্তি জমা দিতে দ্বিধা না করার জন্য অনুরোধ করছি, তাদের (হাফতারের মিলিশিয়ার) বিরুদ্ধে একটি গণ মামলা শুরু করতে এবং আপনার অভিযোগগুলো অনুসরণ করতে বলছি।’ তিনি জোর দিয়ে বলেন, ‘অপরাধীরা সত্যিকারভাবে বিচার বিভাগীয় কর্তৃপক্ষের কাছে দায়বদ্ধ না হলে ন্যায়বিচার অর্জিত হবে না।’ তিনি প্রকাশ করেছিলেন যে, আগ্রাসনের সময় নির্ধারিত প্রসিকিউটরদের দ্বারা প্রস্তুত করা কেস রিপোর্টগুলোর মতো পাবলিক প্রসিকিউটরের কাছে জমা দেয়া অভিযোগগুলো অগ্রাহ্য এবং অবহেলা করে আটকে রাখা হয়েছিল।’ এএফএমবিএ ২০২০ সালের আগস্টে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল এবং এর লক্ষ্য লিবিয়ার সেনাবাহিনীতে নিহতদের পরিবার এবং যুদ্ধের শিকার হওয়া বেসামরিক নাগরিকদের পক্ষে কাজ করা। সমিতিতে নিবন্ধিত পরিবারের সংখ্যা ২ হাজার ১৮০টি।
এদিকে, গত বৃহস্পতিবার, ৫৫ জন সংসদ সদস্য রাজধানী ত্রিপোলির দক্ষিণে তারহুনা শহরে আবিষ্কৃত অপরাধ এবং কবর সম্পর্কে ‘আন্তর্জাতিক নীরবতা’ দেখে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন। তারহুনায় মোট ৭৮টি গণ এবং পৃথক কবর আবিষ্কৃত হয়েছে। আনাদোলু এজেন্সির সংবাদদাতার একটি আদমশুমারি অনুসারে, শহরে উদ্ধার হওয়া লাশের সংখ্যা ২৩৮ এ পৌঁছেছে। লিবিয়া সম্প্রতি একটি রাজনৈতিক অগ্রগতির সাক্ষী হয়েছে। গত ১৬ মার্চ, একটি জোট সরকার এবং একটি প্রেসিডেন্সিয়াল কাউন্সিলের সমন্বয়ে একটি নির্বাচিত ট্রানজিশনাল অথরিটি দেশকে নির্বাচনে নেতৃত্ব দেয়ার দায়িত্ব গ্রহণ করে। সূত্র : মিডল ইস্ট মনিটর।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন