ঢাকা, মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০১৯, ৪ আষাঢ় ১৪২৬, ১৪ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

জাতীয় সংবাদ

রোহিঙ্গাদের ওপর নির্বিচার হত্যাযজ্ঞ চালাচ্ছে মিয়ানমার সেনাবাহিনী

পুলিশের ওপর জঙ্গি আক্রমণের জের : একদিনে ২৬ জনকে হত্যা

প্রকাশের সময় : ১৪ অক্টোবর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক
মিয়ানমার সীমান্তে দেশটির পুলিশের ওপর অজানা জঙ্গিদের হামলায় নয়জন মতো পুলিশ সদস্য নিহত হওয়ার ঘটনার পর রাখাইন রাজ্যে রীতিমত হত্যাযজ্ঞ চালাচ্ছে সেনাবাহিনী। গতকাল বৃহস্পতিবার এক দিনেই ২৬ জন রোহিঙ্গা পুরুষকে হত্যা করেছে মিয়ানমার সেনাবাহিনী। এ তথ্য জানিয়েছে তুরস্কের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন টিআরটি। প্রতিবেদনে বলা হয়, হামলার ঘটনার পর থেকে রাখাইন রাজ্যের বিভিন্ন গ্রামে সশস্ত্র রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা অভিযান চালাচ্ছে এবং পুরুষ ও ছেলেদেরকে দেখলেই ‘জঙ্গি’ হিসেবে অভিহিত করে ধরে নিয়ে যাচ্ছে। মানবাধিকার সংস্থার বরাতে টিআরটি আরো জানায়, রাজ্যটিতে লাগাতার সংঘর্ষের ঘটনাও ঘটছে। গত চারদিন ধরে এমন সংঘর্ষ এবং উঠিয়ে নিয়ে যাওয়ার ঘটনা অব্যাহত রয়েছে।
এদিকে মিয়ানমারের সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, প্রদেশে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সশস্ত্র বিদ্রোহী গোষ্ঠীর সংঘর্ষে দেশটির চার সেনা সদস্যসহ ১২ জন নিহত হয়েছেন। দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদ মাধ্যমের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা এফপি জানায়, মঙ্গলবার রাখাইন প্রদেশের মাউংদাউ এলাকায় নিরাপত্তা বাহিনী টহল দেয়ার সময় একদল সশস্ত্র বিদ্রোহী গোষ্ঠী হামলা চালায়। দু'পক্ষের গুলাগুলি শেষে নিরাপত্তা বাহিনীর চার সদস্যসহ মোট ১২ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়। চলতি সপ্তাহে মিয়ানমার সীমান্তে অজ্ঞাত বন্দুকধারীদের হামলায় দেশটির ৯ পুলিশসহ ১৪ জন নিহত হয়। এরপর থেকে দেশটির সীমান্ত এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।
অপর এক খবরে বলা হয়, মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সেনাদের সঙ্গে অস্ত্রধারীদের সহিংসতায় ১২ জন নিহত হওয়ার খবর জানিয়েছে রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম। মংডু শহরের কাছে পায়ুংপিট গ্রামে শত শত মানুষ পিস্তল এবং ধারালো অস্ত্র নিয়ে সৈন্যদের ওপর হামলা চালালে ৪ সেনা এবং একজন হামলাকারী নিহত হয়। কাছের তাউং পায়িং নায়ার গ্রামে লড়াইয়ের পর আরও ৭ জনের মৃত্যুর খবর জানায় সেনারা। নিরাপত্তা বাহিনীর ওপর সমন্বিত হামলার জন্য সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলমানদের দায়ী করছে মিয়ানমার সরকার। রাখাইন রাজ্যে এ সহিংসতায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে জাতিসংঘ। তারা সব পক্ষকে সংযত থাকার আহবান জানিয়েছে। ২০১২ সালে রাখাইন রাজ্যে সাম্প্রদায়িক ও জাতিগত সহিংসতায় একশ’র বেশি মানুষ নিহত হয়। রাখাইন রাজ্যের রোহিঙ্গা মুসলমানদের মিয়ানমারের নাগরিক হিসেবে স্বীকার করে না সে দেশের সরকার। মিয়ানমারের বৌদ্ধরা মনে করে রোহিঙ্গারা বাংলাদেশ থেকে সেখানে গেছে। টিআরটি, বিবিসি, রয়টার্স।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (3)
Al Amin ১৪ অক্টোবর, ২০১৬, ১২:৪৭ পিএম says : 1
Where OIC ?
Total Reply(0)
মোহাম্মদ মামুন আকন্দ ১৪ অক্টোবর, ২০১৬, ১২:০২ পিএম says : 0
এটা বন্ধ হওয়া উচিত।
Total Reply(0)
Shamim Bhuiyan ১৪ অক্টোবর, ২০১৬, ২:০৫ পিএম says : 0
Allah please help our Muslim brothers and sisters in Myanmar and all over the world
Total Reply(0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন