সোমবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২১, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ৩০ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

বাংলাদেশে যুক্তরাষ্ট্রের আরো ২৫ মিলিয়ন ডলারের বিনিয়োগ

কোভিড-১৯ সহায়তা

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২০ অক্টোবর, ২০২১, ১২:১২ এএম

যুক্তরাষ্ট্রের দেয়া নতুন অর্থায়ন বাংলাদেশের জাতীয় টিকা প্রচারাভিযান এবং অক্সিজেন সরবরাহের মাধ্যমে রোগীদের সেবার মান উন্নয়নে বাংলাদেশের সামর্থ্য বাড়াবে। যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের কোভিড-১৯ মোকাবেলায় ১২১ মিলিয়ন ডলারের বেশি সহায়তা দিয়েছে।
যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশকে জীবন-রক্ষাকারী চিকিৎসা ও অক্সিজেন সরবরাহ এবং টিকা নিরাপদে সংরক্ষণ, পরিবহন ও ব্যবস্থাপনার লক্ষ্যে কোল্ড চেইন সরঞ্জামের জন্য জরুরি কোভিড-১৯ সহায়তা হিসেবে আরো ২৫ মিলিয়ন ডলার প্রদানের ঘোষণা দিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংস্থা ইউএসএআইডি-র মাধ্যমে এই অর্থ প্রদান করা হবে।
এর মাধ্যমে অনুদানকৃত টিকার অতিরিক্ত, নতুন এই আর্থিক সহায়তা বাংলাদেশকে দেশব্যাপী মানুষকে টিকা দেওয়ার লক্ষ্যে টিকা কার্যক্রম সম্প্রসারণে সহায়তা করার পাশাপাশি স্বাস্থ্যসেবাদানকারীদের গুরুতর অসুস্থ রোগীদের আরো কার্যকরভাবে চিকিৎসা প্রদানে সক্ষম করে তুলবে এবং স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলোতে স্বাস্থ্যসেবার মান বাড়াতে ভূমিকা রাখবে।
মহামারির শুরু থেকে এখন পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্র সরকার কোভিড-১৯ মোকাবেলায় বাংলাদেশকে মোট ১২১ মিলিয়ন আমেরিকান ডলারেরও বেশি সহায়তা করেছে এবং বাংলাদেশীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় বাংলাদেশ সরকার ও অন্যান্য অংশীদারদের সাথে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করে যাচ্ছে। আমরা আগামী কয়েক বছর ধরে বাংলাদেশব্যাপী গুরুতরভাবে অসুস্থ রোগীদের স্বাস্থ্য যত্ন ও স্বাস্থ্যসেবার মান উন্নত করতে হাসপাতালগুলোকে অক্সিজেন ও অন্যান্য বিশেষায়িত যন্ত্রপাতি দিয়ে সজ্জিত করার মাধ্যমে কোভিড-১৯ চিকিৎসায় স্বাস্থ্য পেশাজীবীদের সহায়তা করার লক্ষ্যে বাংলাদেশের সাথে কাজ করতে পেরে আমরা গর্বিত বলে উল্লেখ করেন রাষ্ট্রদূত মিলার। তিনি বলেন, এবারের এই নতুন আর্থিক সহায়তা বাংলাদেশকে এই বছরের শেষ নাগাদ দেশের ৪০ শতাংশ মানুষকে টিকাদানের লক্ষ্য পূরণে সহায়তা করবে।
এখন পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্র সরকারের দেয়া কোভিড-১৯ সহায়তার মধ্যে রয়েছেÑ১১ দশমিক ৫ মিলিয়ন ডোজ ফাইজার ও মডার্না ভ্যাকসিন অনুদান এবং জাতীয় টিকাদান প্রচারাভিযানের জন্য বাড়তি সহায়তা। যুক্তরাষ্ট্র সরকার বিশ্বব্যাপী কোভ্যাক্স টিকাদান প্রচেষ্টাকে সহযোগিতা করতে ৪ বিলিয়ন ডলার সহায়তা দিতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ, যা তাদেরকে বিশ্বে কোভিড-১৯ টিকায় ন্যায়সঙ্গত প্রবেশাধিকার তৈরিতে ভূমিকাপালনকারীদের মধ্যে এককভাবে বিশ্বের বৃহত্তম দাতায় পরিণত করেছে।
এছাড়াও যুক্তরাষ্ট্র সরকার ইউএসএআইডি, যুক্তরাষ্ট্রের ডিফেন্স ডিপার্টমেন্ট, স্টেট ডিপার্টমেন্ট এবং সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন সংস্থার মাধ্যমে বাংলাদেশের জন্য চিকিৎসা সরঞ্জাম, ভেন্টিলেটর, অক্সিজেন যন্ত্রপাতি, পালস অক্সিমিটার এবং দেশব্যাপী ফ্রন্টলাইন স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য লক্ষ লক্ষ ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জাম সরবরাহ করেছে। যুক্তরাষ্ট্রের দেয়া সহায়তা কোভিড-১৯ রোগ পরীক্ষা ও পরিবীক্ষণের সামর্থ্য জোরদারকরণ, রোগী ব্যবস্থাপনা এবং সংক্রমণ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণের সক্ষমতা বৃদ্ধি, পরীক্ষাগার ও পরীক্ষা করার সামর্থ্য উন্নীত করা এবং সরবরাহ ব্যবস্থা ও লজিস্টিক ব্যবস্থাপনা পদ্ধতির উন্নয়নে ভূমিকা পালনের মাধ্যমে বাংলাদেশকে কোভিড-১৯ আক্রান্তদের চিকিৎসা প্রদান ও রোগীদের জীবন বাঁচাতে সহায়তা করেছে। এছাড়াও যুক্তরাষ্ট্র সরকারের দেয়া সহায়তা সম্মুখসারির কর্মীদের প্রশিক্ষণ ও সুরক্ষা এবং কোভিড-১৯ প্রতিরোধসহ এই রোগ সম্পর্কে জনসাধারণের সচেতনতা ও জ্ঞান বৃদ্ধির কাজে ব্যবহার করা হয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন