রোববার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৯ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

খুলনার সেনপাড়া বস্তিতে আগুন, স্থানীয়দের দাবি পূর্ব শত্রুতার জের

খুলনা ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২২ অক্টোবর, ২০২১, ৮:১৫ পিএম

খুলনা মহানগরীর দৌলতপুর থানাধীন পশ্চিম সেনপাড়া মেঘনা পেট্রোলিয়াম কলোনী বস্তিতে রহস্যজনক অগ্নিকান্ডের খবর পাওয়া গেছে। শুক্রবার জুম্মার নামাজের ঠিক পুর্ব মুহুর্তে বস্তির মো. হেজু শেয়ালীর ঘর থেকে আগুনের সুত্রপাত ঘটে। পার্শ্ববর্তী মসজিদের মুসল্লী এবং দৌলতপুর ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিটের চেষ্টায় ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে বস্তিবাসী। আগুনে কলোনীর ৪টি ঘরের ৭টি পরিবারের প্রায় ১০ লক্ষ টাকা ক্ষতি হয়েছে।

সূত্র জানিয়েছে, ঠিক জুম্মার নামাজের পুর্ব মুহুর্ত ১টার দিকে কলোনীর হেজু শিয়ালীর ঘরের মধ্যে থেকে দাউদাউ করে আগুন জ্বলতে দেখা যায়। এ সময় হেজু শিয়ালী নামাজের জন্য মসজিদে এবং স্বজনরা আত্মিয়ের বাড়ীতে বেড়াতে যাওয়ায় ঘর ফাঁকা ছিল। আগুন জ্বলতে দেখে প্রতিবেশীদের চিৎকারে মসজিদের মুসল্লীরা আগুন নিভাতে ছুটে আসেন। বস্থিবাসী, মসজিদের মুসল্লি এবং দৌলতপুর ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিটের চেষ্টায় প্রায় ১ ঘন্টা পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। মসজিদের মুসল্লী এবং ফায়ার সার্ভিস সময় মত এগিয়ে না আসলে ভয়াবহ অগ্নিন্ডের ঘটনা ঘটে যেত। তবে মুহুর্তের মধ্যে হেজু শেয়ালীর ঘরের আসবাবপত্র, সেলাই মেশিন, বিদেশ যাওয়ার পার্সপোট, গুরুত্বপুর্ণ কাগজপত্রসহ প্রায় ৩ লক্ষ টাকার মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে যায়।

আগুনে পার্শ্ববর্তী ৩ টি ঘরে তার বড় ভাই আকরাম শেয়ালী, মো. ওহাব মিয়া, সুবহান মল্লিক, হাসিনা বেগম, তার পুত্র মো. কামরুল ইসলাম, রাজমিস্ত্রী রাজুর পরিবার ক্ষতিগ্রস্ত হয়। প্রতিবেশী এবং ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের দাবী পুর্ব শত্রুতার জেরে এই অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটানো হয়েছে। অগ্নিকান্ডের সুত্রপাত যে স্থান থেকে সেই ঘরের গৃহিনী লাইলী বেগম বলেন, আগামী ২৯ অক্টোবর আমার স্বামী হেজু শেয়ালীর বিদেশ যাওয়ার কথা রয়েছে। স্থানীয় একটি মহলের সাথে তাদের শত্রুতা রয়েছে আমার স্বামী যাতে বিদেশ যেতে না পারে সে জন্য মহলটি সুপরিকল্পিত ভাবে জুম্মার নামাজের পূর্ব মুহুর্তে বস্তি ফাকা পেয়ে আমার বাসায় কেউ না থাকায় ঘরের জানালা দিয়ে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়েছে। যেখান থেকে আগুনের সূত্রপাত সেখানে কোন বৈদ্যুতিক লাইন, গ্যাসের সিলিন্ডার বা আগুন লাগার কোন কারণ থাকতে পারে না।

এ বিষয়ে দৌলতপুর থানার অফিসার্স ইনচার্জ মো. নজরুল ইসলাম জানিয়েছে, অগ্নিকান্ডের কারণ এখনও জানা যায়নি। যে ঘর থেকে অগ্নিকান্ডের সুত্রপাত হয়েছে সেই পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় একটি অভিযোগ দিয়েছে। ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের অভিযোগ এবং অগ্নিকান্ডের ঘটনা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন