রোববার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৯ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

সব নিষেধাজ্ঞা ওঠার পর হারামাইনে প্রথম জুমা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৩ অক্টোবর, ২০২১, ১২:০৭ পিএম

করোনাভাইরাস মহামারির কারণে দেড় বছরের বেশি সময় ধরে পুরোপুরি বন্ধ ও বিভিন্ন নিষেধাজ্ঞার আওতায় ছিল মক্কার মসজিদ আল হারাম এবং মদিনার মসজিদে নববি। তবে সম্প্রতি পবিত্র দুই মসজিদে নামাজ আদায় ও পরিদর্শনের ক্ষেত্রে সব নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া হয়েছে। এরপরই প্রথম জুমায় হাজার হাজার মুসল্লি অংশ নেন।

মহামারি শুরুর পর ২০২০ সালের মার্চ মাসে মুসল্লিদের জন্য বন্ধ করে দেয়া হয় হারামাইনের দরজা। এরপর করোনা প্রকোপ কমলে কিছু বিধিনিষেধ তুলে এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে পুনরায় নির্দিষ্ট সংখ্যক মানুষের জন্য খুলে দেয়া হয়। এরপর সম্প্রতি সব নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া হয়েছে। খবর আরব নিউজের
মক্কার দীর্ঘদিনের বাসিন্দা ও বেসরকারি খাতের কর্মী আব্দুল্লাহ মাহদি উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে বলেন, এটি সৃষ্টিকর্তার রহমত। মসজিদের পথে আবার চলতে পারছি এবং মানুষে পরিপূর্ণ কাবা প্রাঙ্গণ। যদিও মুসল্লি ও দর্শনার্থীদের মাস্ক পরে থাকতে হবে। তবে এটি কোনো ব্যাপার না। কাবা আবার মুসল্লিদের পদচারণয় উজ্জীবিত হয়ে উঠেছে।
তিনি বলেন, নিষেধাজ্ঞা ওঠার পর প্রথম শুক্রবার কাবা প্রাঙ্গণ মানুষে পরিপূর্ণ হয়ে ওঠে। সত্যিই এটি অভাবনীয় দৃশ্য।
গত সপ্তাহের শনিবার সৌদির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় হারামাইনসহ দেশের বিভিন্ন এলাকার ওপর থাকা করোনাকালীন নিষেধাজ্ঞা শিথিলের ঘোষণা দেয়। মাস্ক পরা ও টিকা নেয়ার ক্ষেত্রে বাধ্যবাধকতা থাকলেও বাকি সব নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া হয়। সব মুসল্লিদের জন্য খুলে দেয়া হয় হারামাইনের দরজা।
গত শনিবার, অভ্যন্তরীণ মন্ত্রণালয় মক্কার গ্র্যান্ড মসজিদ এবং মদিনার নবীর মসজিদকে প্রভাবিত করে এমন সমস্ত রাজ্য জুড়ে নিষেধাজ্ঞাগুলি শিথিল করার ঘোষণা দিয়েছে, যা সম্পূর্ণ অপারেশন এবং ক্ষমতায় ফিরে আসছে।
গ্র্যান্ড মসজিদের বিষয়ে ডেপুটি সেক্রেটারি জেনারেল ড. সাদ বিন মোহাম্মদ আল-মুহাইমিদ বলেন, দুই পবিত্র মসজিদ বিষয়ক পরিষদের সভাপতি তাদের সমস্ত মানবিক ও যান্ত্রিক সম্পদ ব্যবহার করে পূর্ণ সংখ্যক মুসল্লি নিয়ে ফিরে আসার পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করেছেন। সূত্র : আরব নিউজ

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন