ঢাকা রোববার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৫ আশ্বিন ১৪২৭, ০২ সফর ১৪৪২ হিজরী

সারা বাংলার খবর

উন্নয়নের সঙ্গে সুশাসন নিশ্চিত করতে হবে আ স ম রব

প্রকাশের সময় : ১৯ অক্টোবর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : দেশে উন্নয়নের সঙ্গে সু-শাসন নিশ্চিত করতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন স্বাধীনতার প্রথম পতাকা উত্তোলক ও জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব।
গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীর মিরপুর-১০ নম্বরে স্থানীয় একটি রেস্টুরেন্টে জেএসডি ঢাকা মহানগর উত্তর শাখা আয়োজিত এক প্রতিনিধি সভায় তিনি এ কথা বলেন।
আ স ম বলেন, রাষ্ট্র প্রক্রিয়ায় সাম্য, মানবিক মর্যাদা ও সামাজিক সুবিচার না থাকলে সে উন্নয়ন মুক্তিযুদ্ধের স্বপ্নের বাংলাদেশ নির্মাণ করতে পারবে না। বহু সভ্যতা, বহু রাষ্ট্র ধ্বংস হয়ে গেছে আদর্শিক রাজনীতির অভাবে। যে সমাজে অসাম্য বাড়বে-সে সমাজে সহিংসতা অবক্ষয় বৃদ্ধি পাবে। সুতরাং আদর্শিক রাষ্ট্র নির্মাণে উদ্যোগ নিতে হবে-মুক্তিযুদ্ধের চেতনাভিত্তিক রাষ্ট্র নির্মাণের উদ্যোগ নিতে হবে।
রব বলেন, ভূ-রাজনীতিতে বাংলাদেশের অবস্থান গুরুত্বপুর্ণ হয়ে উঠছে। সুতরাং বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ রাজনীতি হতে হবে জাতীয় ঐক্য ভিত্তিক এবং শাসন ব্যবস্থা হতে হবে অংশীদারিত্ব ভিত্তিক। বিশ্ব রাজনীতি মোকাবেলায় সমগ্র জাতিকে আরও দক্ষ, আরও দূরদর্শী হতে হবে।
এ লক্ষ্যে জেএসডি ১০ দফা কর্মসূচি উপস্থাপন করেছে জানিয়ে তিনি বলেন, যা জাতির অভ্যন্তরীণ সংকট মোকাবেলা করে একুশ শতকের চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করতে সক্ষম হবে।
ঢাকা মহানগর উত্তর শাখা জেএসডির আহ্বায়ক কামাল উদ্দিন পাটোয়ারীর সভাপতিত্বে সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন জেএসডি সহ-সভাপতি তানিয়া রব, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শহীদ উদ্দিন মাহমুদ স্বপন, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক পীর শেখ জিয়া উদ্দিন, মিডিয়া বিষয়ক সম্পাদক ম কামাল উদ্দিন, যুব বিষয়ক সম্পাদক এসএম সামছুল আলম নিক্সন, কাজী আবদুস সাত্তার, মোস্তফা কামাল, ইউসুফ সিরাজ খান মিন্টু প্রমুখ।
অধঃপতিত জাতিকে রক্ষায় নৈতিকতাহীন সিলেবাস সংশোধন করতে হবে ইসলামী আন্দোলন
স্টাফ রিপোর্টার ঃ ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর মহাসচিব অধ্যক্ষ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ বলেছেন, ইসলাম, দেশ ও মানবতার চরম দুর্দিন চলছে। রাষ্ট্রীয়ভাবে ইসলাম চর্চার কোন ব্যবস্থা নেই। ব্যক্তি জীবনে যতটুকু ইসলাম আছে তাও আবার ধ্বংস করার চক্রান্ত চলছে। ফলে জাতি ক্রমেই নৈতিকতাহীন হয়ে পড়ছে। ছাত্র ও যুব সমাজকে নিয়ে অভিভাবকগণ চরম উদ্বিগ্ন। এমতাবস্থায় দুর্দশাগ্রস্ত জাতিকে ইসলামের মৌলিক শিক্ষায় ফিরে আসতে হবে। জাতিকে নৈতিকতাহীন করার পেছনে ঈমান ও ইসলাম বিধ্বংসী শিক্ষাআইন ও সিলেবাসই দায়ী। তাই অধঃপতিত জাতিকে চরম ধ্বংসাত্মক পরিস্থিতি থেকে বাঁচাতে ঈমান ও ইসলামবিধ্বংসী সিলেবাস সংশোধন করতে হবে।
গতকাল বিকেলে পুরানা পল্টনস্থ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক মতিবিনিময় সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের রাজনৈতিক উপদেষ্টা অধ্যাপক মুহাম্মদ আশরাফ আলী আকন, যুগ্ম মহাসচিব অধ্যাপক এটিএম হেমায়েত উদ্দিন, মাওলানা গাজী আতাউর রহমান, সহকারী মহাসচিব আলহাজ্ব আমিনুল ইসলাম, প্রকৌশলী আশরাফুল আলম, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক কে এম আতিকুর রহমান, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মাওলানা আহমদ আবদুল কাইয়ুম, দফতর সম্পাদক মাওলানা লোকমান হোসাইন জাফরী, মাওলানা আতাউর রহমান আরেফী, আলহাজ্ব আব্দুর রহমান, আলহাজ্ব হারুনুর রশিদ প্রমুখ।
সিলেবাস বাতিল করতেই হবে
ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ঢাকা মহানগর দক্ষিণ সভাপতি মাওলানা মুহাম্মদ ইমতিয়াজ আলম বলেছেন, জনগণের সেন্টিমেন্টকে কোন প্রকার তোয়াক্কা না করে এবং সিলেবাস সংশোধন না করে নতুন বছরের বই বিতরণের চেষ্টা করলে তা রুখে দেয়া হবে। তিনি বলেন, প্রবল আপত্তি আর তীব্র প্রতিবাদ উপেক্ষা করে কুফরী শিক্ষানীতি এবং হিন্দুত্ব নাস্তিক্যবাদী পাঠ্যসূচি কোনোরূপ সংশোধন না করেই এখন বই মুদ্রণ এবং শিক্ষা আইন চূড়ান্ত করার কাজ দ্রুত চালানো হচ্ছে, যা মুসলমানদের বিরুদ্ধে গভীর চক্রান্ত। এ কুফরী শিক্ষানীতি ও শিক্ষা আইন মুসলিম জনগণের ওপর চাপিয়ে দেয়া হলে মুসলমানরা তাদের ধর্মীয় জ্ঞান ও অধিকার স্বকীয় বৈশিষ্ট্য হারিয়ে নাস্তিক্যবাদী চেতনায় গড়ে উঠবে, যা মুসলমানদের বিরুদ্ধে ভয়াবহ চক্রান্ত। গতকাল সকালে রাজধানীর জুরাইনস্থ ইছামতি চাইনিজ রেস্টুরেন্ট মিলনায়তনে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের কদমতলী থানা সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। থানা সভাপতি আলহাজ্ব মাওলানা ক্বারী মাসউদুর রহমান চাঁদপুরীর সভাপতিত্বে এবং সেক্রেটারী আলহাজ্ব মাওলানা বাছির উদ্দিন মাহমুদ-এর পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন মহানগর নেতৃবৃন্দ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন