রোববার, ২৩ জানুয়ারী ২০২২, ০৯ মাঘ ১৪২৮, ১৯ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

উড্ডয়নে ব্যর্থ হয়ে সাগরে বিধ্বস্ত ব্রিটিশ এফ-৩৫

ফাঁস হওয়া ভিডিওতে প্রকাশ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১ ডিসেম্বর, ২০২১, ১২:০১ এএম

ব্রিটেনের একটি এফ-৩৫ যুদ্ধবিমান সম্প্রতি ভূমধ্যসাগরে বিধ্বস্ত হয়েছিল। এবার জানা গেছে, ওই বিমানটি কখনো উড্ডয়নই করতে সক্ষম হয়নি। সোমবার ফাঁস হওয়া একটি ভিডিও ফুটেজ থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

ভিডিওতে দেখা গেছে, ১০ কোটি পাউন্ড মূল্যের ফাইটার জেটটি ব্রিটেনের বিমানবাহী জাহাজ এইচএমএস কুইন এলিজাবেথের ফ্লাইট ডেকের র‌্যাম্প থেকে সরাসরি সমুদ্রে বিধ্বস্ত হয়। তবে জরুরি নির্গমন পথ দিয়ে পাইলট বেরিয়ে আসতে সমর্থ হন। যদিও জেটটি জাহাজ থেকে সরাসরি পানিতে পড়েছে তবে, কর্তৃপক্ষ এখনও বিমানটিকে শনাক্ত করতে পারেনি। কারণ, পানির মধ্যে অনেক গভীরে চলে যেয়ে থাকতে পারে।

হাওয়ার্ড হুইলডন, একজন মহাকাশ ও প্রতিরক্ষা বিশ্লেষক, দ্য টেলিগ্রাফকে বলেছেন, সামরিক বাহিনীতে একটি কথা আছে ‘উত্থান একটি উপহার, গতি একটি আবশ্যক’, এবং আমি স্পষ্টভাবে ভয় পাচ্ছি যে, বিমানটির যথেষ্ট গতি ছিল না। এটি ছিল একটি সংক্ষিপ্ত উড্ডয়ন। তবে তাদের সহায়তা করার জন্য র‌্যাম্পে প্রয়োজনীয় প্রযুক্তি ছিল। স্পষ্টতই বিমানটি সঠিকভাবে বাতাসে ভাসার জন্য শক্তি অপর্যাপ্ত ছিল।

দুর্ঘটনার কারণ নির্ধারণের জন্য একটি তদন্ত চলছে, যদিও বিমানটি এখনও খুঁজে পাওয়া যায়নি। এটি ক্যারিয়ারের কাছাকাছি অবতরণ করা সত্তে¡ও কেউ কেউ মনে করছেন যে, একটি বিমান বাতাসে থাকার মতো একইভাবে পানির নিচে ‘উড়ে’ যাবে, যার অর্থ হল বিধ্বস্ত হওয়ার পরে জেটটি একটি উল্লেখযোগ্য দূরত্ব অতিক্রম করবে। যাইহোক, প্রতিরক্ষা সূত্রগুলো বলেছে যে, জেটের বোর্ডে একটি লোকেটার ডিভাইস থাকলেও, সামরিক বাহিনী এটিকে সক্রিয় করতে চাইবে না। কারণ, তাদের উদ্বেগ রয়েছে এটি প্রতিদ্ব›দ্বীদের সঠিক অবস্থানে সতর্ক করতে পারে।

সিনিয়র টোরি এমপিরা সামরিক বাহিনীকে বিমানটির পুনরুদ্ধারের গতি ত্বরান্বিত করার আহ্বান জানিয়েছেন, সতর্ক করে দিয়েছিলেন যে, এটি সমুদ্রতটে থাকাকালীন যুক্তরাজ্য রাশিয়া এবং চীনের মতো প্রতিপক্ষের জন্য দুর্বল ছিল। তদন্তকারীরা মনে করছেন, জেটের ইঞ্জিনে বৃষ্টির পানি ঢুকে গিয়েছিল। যার ফলে বিমানটি সমুদ্রে বিধ্বস্ত হয়েছিল।

দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, বিমান বিধ্বস্তের ফুটেজ নিয়ে তারা শিগগিরই আনুষ্ঠানিক বক্তব্য দেবেন এবং পানিতে নিমজ্জিত এয়ারক্রাফটটি তারা উদ্ধারের চেষ্টা চালাচ্ছেন। মার্কিন লকহিড কোম্পানির তৈরি অত্যাধুনিক এফ-৩৫ যুদ্ধবিমানগুলো ব্রিটেনের সবচেয়ে উন্নত এবং ব্যয়বহুল যুদ্ধবিমান। এই মডেলের প্রতিটি বিমানের বাজার মূল্য প্রায় ১০০ মিলিয়ন ব্রিটিশ পাউন্ড বা ১১৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। অত্যন্ত দ্রুতগতিসম্পন্ন এসব বিমান স্টিলথ প্রযুক্তিতে তৈরি এবং রাডার ফাঁকি দিতে সক্ষম। সূত্র : দ্য টেলিগ্রাফ।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন