সোমবার, ০৮ আগস্ট ২০২২, ২৪ শ্রাবণ ১৪২৯, ০৯ মুহাররম ১৪৪৪ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

ঘূর্ণিঝড় ‘জাওয়াদ’র গর্জন

শফিউল আলম | প্রকাশের সময় : ৩ ডিসেম্বর, ২০২১, ১১:৫৭ পিএম

ভারতের উপক‚লে আঘাত আজ
সাগর উত্তাল বন্দরে ২ নম্বর সঙ্কেত
আকাশ মেঘলাসহ বৃষ্টিপাতের আভাস
উপক‚লের দিকে ধাবমান ঘূর্ণিঝড় ‘জাওয়াদ’ বঙ্গোপসাগরে গর্জন করছে। পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও এর সংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত গভীর নিম্নচাপটি আরো উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর এবং ঘনীভ‚ত হয়ে গতকাল শুক্রবার দুপুরে একই এলাকায় ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়েছে। এর নাম ‘জাওয়াদ’। এবারের ঘূর্ণিঝড়ের ‘জাওয়াদ’ নামকরণ করেছে সউদী আরব। যার অর্থ ‘উদার’ বা ‘মহান’। ‘জাওয়াদ’র গতিমুখ এখন পর্যন্ত উত্তর-পশ্চিম বরাবর ভারতের অন্ধ্র ও উড়িষ্যা দুই রাজ্যের উপক‚লের দিকে। গতিপথ পরিবর্তন না হলে ‘জাওয়াদ’ আজ শনিবার সকাল নাগাদ ভারত উপক‚লে আঘাত হানতে পারে।
ভারতের আবহাওয়া বিভাগ (আইএমডি) বলেছে, ‘জাওয়াদ’র বর্তমান গতিপ্রকৃতি বজায় থাকলে এটি আরো শক্তি সঞ্চয় করে প্রচন্ড ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে। বাংলাদেশ আবহাওয়া বিভাগ পূর্বাভাসে জানায়, ঘূর্ণিঝড়টি বাংলাদেশের উপক‚লের দিকে ধেয়ে আসার আশঙ্কা কম। তবে ‘জাওয়াদ’র কতটা প্রভাব এখানে পড়বে তা নির্ভর করছে উপক‚লে আসা পর্যন্ত এর মতিগতির উপর। ‘জাওয়াদ’র প্রভাবে দমকা হাওয়া এবং দেশের আকাশ মেঘাচ্ছন্ন বা আংশিক মেঘলা রয়েছে। কম-বেশি বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি, বজ্রসহ বৃষ্টিপাতের আভাস দেয়া হয়েছে। ‘জাওয়াদ’ ও মেঘ-বৃষ্টি কেটে গেলে ক্রমেই জেঁকে বসবে শীত।
গতকাল রাতে আবহাওয়া বিভাগের সর্বশেষ বিশেষ বুলেটিনে আবহাওয়াবিদ মো. শাহীনুল ইসলাম জানান, পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও সংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় ‘জাওয়াদ’ আরো উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে একই এলাকায় অবস্থান করছে। গতকাল সন্ধ্যায় ঘূর্ণিঝড় ‘জাওয়াদ’ চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ১০৮৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ১০৪০ কি.মি. দক্ষিণ-পশ্চিমে, মংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ৯৬০ কি.মি. দক্ষিণ, দক্ষিণ-পশ্চিমে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ৯৬৫ কি.মি. দক্ষিণ, দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থান করছিল।
ঘূর্ণিঝড় ‘জাওয়াদ’ আরো ঘনীভ‚ত হয়ে উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হতে পারে। ঘূর্ণিঝড় ‘জাওয়াদ’র কেন্দ্রের ৫৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা গতিবেগ ঘণ্টায় ৬২ কি.মি., যা দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ৮৮ কি.মি. পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের নিকটে সাগর খুবই উত্তাল রয়েছে।
চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরকে ২ নম্বর দূরবর্তী হুঁশিয়ারি সঙ্কেত দেখাতে বলা হয়েছে। উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারসমূহকে উপক‚লের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে।
গত বুধবার আন্দামান সাগর ও এর সংলগ্ন বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট লঘুচাপটি ঘনীভ‚ত হয়ে বৃহস্পতিবার সকালে একই স্থানে সুস্পষ্ট লঘুচাপ এবং রাতে দক্ষিণ-পূর্ব বঙ্গোপসাগর ও সংলগ্ন এলাকায় নিম্নচাপে পরিণত হয়। নিম্নচাপটি আরো উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর ও ঘনীভ‚ত হয়ে গতকাল সকাল থেকে পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও সংলগ্ন এলাকায় গভীর নি¤œচাপ আকারে অবস্থান করে।
এদিকে ঘূর্ণিঝড় ‘জাওয়াদ’র প্রভাবে গতকাল সন্ধ্যায় দেশের অনেক স্থানে আকাশ মেঘলা এবং কোথাও কোথাও হালকা বা গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টিপাতের আলামত ছিল। তাপমাত্রা কিছুটা বৃদ্ধি পেয়েছে। দেশের সর্বনিম্নতাপমাত্রা ছিল তেঁতুলিয়ায় ১২.৯ এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা টেকনাফে ৩২.৫ ডিগ্রি সে.। ঢাকার পারদ সর্বোচ্চ ৩০.৪ এবং সর্বনিম্ন ১৮.২ ডিগ্রি সে.। ঘূর্ণিঝড়ের একটি বর্ধিতাংশ উত্তর বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে।
আজ ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়া পূর্বাভাসে জানা গেছে, খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের দুয়েক জায়গায় অস্থায়ী দমকা হাওয়াসহ হালকা বৃষ্টি, বজ্রসহ বৃষ্টিপাত হতে পারে। দেশের অন্যত্র আকাশ আংশিক মেঘলাসহ আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে। সকালের দিকে দেশের কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্ত হালকা কুয়াশা পড়তে পারে। সারা দেশে রাতের তাপমাত্রা এক থেকে ২ ডিগ্রি সে. বৃদ্ধি পেতে পারে। দিনের তাপমাত্রা কিছুটা হ্রাস পেতে পারে। পরবর্তী ৪৮ ঘণ্টায় বৃষ্টি, বজ্রসহ বৃষ্টিপাত বৃদ্ধির সম্ভাবনা রয়েছে। এরপরের ৫ দিনে বৃষ্টিপাতের প্রবণতা হ্রাস এবং রাতের তাপমাত্রা ক্রমান্বয়ে হ্রাস পেতে পারে।
ভারতের আবহাওয়া বিভাগ (আইএমডি) ও বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমের খবরে জানা গেছে, ভারতের অন্ধ্র প্রদেশ ও উড়িষ্যা উপক‚লের দিকে ধেয়ে যাচ্ছে ঘূর্ণিঝড় ‘জাওয়াদ’। আজ সকালে ঘূর্ণিঝড়টি আছড়ে পড়তে পারে। এ সময়ে উপক‚লবর্তী এলাকায় বাতাসের গতিবেগ ঘণ্টায় ৯০ থেকে একশ’ কিলোমিটার পর্যন্ত থাকতে পারে। এই রাজ্যগুলোর উপক‚লীয় জেলাসমূহে ভারী বৃষ্টিপাত এবং জলোচ্ছাসের আশঙ্কা রয়েছে। ইতোমধ্যে উপক‚ল সংলগ্ন বেশকিছু এলাকায় রেড এলার্ট জারি করা হয়েছে। উপক‚লীয় নিম্নাঞ্চলের বাসিন্দাদের নিরাপদ আশ্রয়স্থলে সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে। রেলওয়ে যোগাযোগ অনেক রুটে বন্ধ রাখা হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গের উপক‚লেও ‘জাওয়াদ’র প্রভাব পড়তে পারে।

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (3)
Sarmistha Ganguly ৪ ডিসেম্বর, ২০২১, ৭:০১ এএম says : 0
সকলের মঙ্গল হোক, কোনো বিপদ যেন না হয়
Total Reply(0)
সত্যিকার ফুডস ৪ ডিসেম্বর, ২০২১, ৭:০২ এএম says : 0
বর্ষাকালে বৃষ্টি শরৎকালের বৃষ্টি শীতকালে আবার নিম্নচাপের সৃষ্টি এটাই কি অনাসৃষ্টি
Total Reply(0)
Swapan Mahato ৪ ডিসেম্বর, ২০২১, ৭:০২ এএম says : 0
আমরা চাষি খেতে সব ফসল।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন