মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২২, ১১ মাঘ ১৪২৮, ২১ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

সহপাঠীদের দাবি, সাতরাজকে হত্যা করা হয়েছে

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৫ ডিসেম্বর, ২০২১, ৬:১৭ পিএম

চট্টগ্রামের জাকির হোসেন সড়কের ঝাউতলা রেল-গেটে ডেমু ট্রেনের সঙ্গে সিএনজিচালিত অটোরিকশা, টেম্পো ও বাসের সংঘর্ষে এইচএসসি পরীক্ষার্থী সাতরাজ উদ্দিন শাহীন নিহতের ঘটনায় দোষীদের বিচার চেয়ে বিক্ষোভ করেছেন শিক্ষার্থীরা। রবিবার (৫ ডিসেম্বর) বেলা ১১টায় দিকে ওয়ারলেস মোড়ে এ বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

এ সময় শিক্ষার্থীরা সারাদেশে নিরাপদ সড়ক নিশ্চিতের পাশাপাশি ঝাউতলার ঘটনায় জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান। সাতরাজের সহপাঠী রায়হান উদ্দিন বলেন, এটি কোনো দুর্ঘটনা নয়। কাল সড়কে সাতরাজকে হত্যা করা হয়েছে। আমরা এ ঘটনায় দোষীদের বিচার ও নিরাপদ সড়ক চাই। সাতরাজ উদ্দিন শাহীন পাহাড়তলী ডিগ্রি কলেজের বিজ্ঞান বিভাগের এইচএসসি পরীক্ষার্থী। একটি পরীক্ষাও দিয়েছিল সে। শাহীন পরিবারের সঙ্গে চট্টগ্রাম নগরীর হামজারবাগ এলাকায় থাকত। বন্ধুরা জানায়, সে মেধাবী ছাত্র ছিল। জেএসসি ও এসএসসিতে জিপিএ ৫ পেয়েছিল সাতরাজ।

উল্লেখ্য, শনিবার চট্টগ্রামের জাকির হোসেন সড়কের ঝাউলা রেল-গেটে ডেমু ট্রেনের সঙ্গে সিএনজিচালিত অটোরিকশা, টেম্পো ও বাসের সংঘর্ষে ৩ জন নিহত হন। ঘটনার বিষয়ে চট্টগ্রামের খুলশী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহিনুজ্জামান বলেন, রেলক্রসিংয়ের বারটি ফেলা হয়নি। বার না ফেলার কারণে সিএনজিচালিত অটোরিকশা ও টেম্পোটি একটু এগিয়ে ছিল। পেছন থেকে একটি বাস দ্রুত এসে গাড়ি দুটিকে ধাক্কা দিয়ে রেললাইনের ওপর উঠিয়ে দেয়। তখন দ্রুতগতির ট্রেনটি ধাক্কা দিয়ে সিএনজিচালিত অটোরিকশা ও টেম্পোকে অনেকটা দূরে নিয়ে যায়।

এ ঘটনায় ট্রাফিক উত্তর বিভাগে কর্মরত কনস্টেবল মনির উদ্দিন ও সিএনজিযাত্রী সৈয়দ বাহাউদ্দিন আহমেদ ও কলেজ শিক্ষার্থী সাতরাজ উদ্দিন শাহীন নিহত হন। আহত হয়েছেন আরও সাতজন। এ ঘটনায় বাসটি জব্দ করা হয়েছে। ঘটনা তদন্তে রেল ও রেলওয়ে পুলিশের পক্ষ থেকে পৃথক কমিটি গঠন করা হয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন