শনিবার, ২২ জানুয়ারী ২০২২, ০৮ মাঘ ১৪২৮, ১৮ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

রক্তে মোরা বাঁধন গড়ি, রক্ত দিয়ে জীবন ভরি, যাত্রা শুরু করল আরএমপি পুলিশ ব্লাড ব্যাংক

রাজশাহী ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ৬ ডিসেম্বর, ২০২১, ৪:৩৩ পিএম | আপডেট : ৪:৫৬ পিএম, ৬ ডিসেম্বর, ২০২১

রক্তে মোরা বাঁধনগড়ি, রক্ত দিয়ে জীবন ভরি। এ শ্লোগানকে সামনে রেখে জাতীর পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান এর জন্ম শতবার্ষিকীর উদযাপনের অংশ হিসাবে আজ সোমবার সকালে যাত্রা শুরু করল রাজশাহী মেট্রো পলিটন পুলিশের ‘‘পুলিশ ব্লাড ব্যাংক’’ আরএমপি।

এ উপলক্ষে পুলিশ হাসপাতাল প্রাঙ্গনে আনন্দঘন পরিবেশের মধ্যদিয়ে মানবিক পুলিশ কমিশনার হিসাবে খ্যাত মো: আবু কালাম সিদ্দিক ফিতা কেটে এবং রক্তদান করে এ ব্লাডব্যাংকের কার্যক্রমের শুভ উদ্বাধন করেন।
উদ্ভোধনী বক্তব্যে পুলিশ কমিশনার আবু কালাম মো: সিদ্দিক বলেন, রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশ আইনশৃঙ্খলা রক্ষার পাশপাশি মানবতার সেবায় কাজ করে আসছে। সেই মানবিক কাজের অংশ হিসাবে সমাজের গরিব, দু:স্থ অসহায় মানষের জরুরী প্রয়োজনে পুলিশ ব্লাডব্যাংক, আরএমপি রাজশাহী হতে বিনামূল্যে রক্ত সরবরাহ করা হবে। আইজিপির দিকনির্দেশনায় পুলিশকে আরো গণমূখী ও জনবান্ধব করে গড়ে তুলতে কাজ করে যাচ্ছে বাংলাদেশ পুলিশ।
অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (প্রশাসন) মো: সুজায়েত হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা: মো: নওশাদ আলী। এতে পুলিশের বিভিন্ন পয্যায়ের কর্মকর্তা, গণমাধ্যমের কর্মীসহ বিশিষ্টজনরা উপস্থিত ছিলেন।
পুলিশ কমিশনার মো: আবু কালাম সিদ্দিক বলেন, আরএমপিতে পুলিশ ও ননপুলিশ মিলে মোট ৩২১৫জন কর্মকর্তা কর্মচারী কর্মরত রয়েছেন। অধিকন্ত রাজশাহী জেলা পুলিশ, আরআরএফ, সিআইডি,পিবিআই,নৌ-পুলিশ, টুরিষ্ট পুলিশ ও তাদের পরিবারের সদস্যরা বিভাগীয় পুলিশ হাসপাতাল, রাজশাহী হতে চিকিৎসা গ্রহন করে থাকেন। বাংলাদেশ পুলিশের কর্মক্ষেত্রে ঝুকিপূর্ণ দায়িত্ব পালন করতে গিয়েই পুলিশ এবং ননপুলিশ স;স্যদের বিড়ন্বনার স্বীকার হতে হয় বা অনেকেই রক্ত সংগ্রহ করতে পারেন না। এইসব দিক বিবেচনায় আরএমপির উদ্যোগে পুলিশ ব্লাড ব্যাংক স্থাপন করা। দরিদ্র অসহায় বেধাবীদের মাঝে শিক্ষাপকরন বিতন ও আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। শারিরীক প্রতিবন্ধকতার মাঝে হুইল চেয়ার বিতরন করা হয়েছে। একই ভাবে আরএমপির সকল সদস্য ও তাদের পরিবারের সদস্যদের মেডিকেল টেষ্টের ক্ষেত্রে ছাড়ের জন্য পুলিশ কমিশনারের সাথে তিনটি ডায়াগনষ্টিক সেন্টার চুক্তিবদ্ধ হয়েছে।
বক্তব্য প্রদানকালে পুলিশ কমিশনার বলেন, পুলিশ ব্লাডব্যাংক জনসেবায় আরএমপির নতুন ডাইমেশন। এই পুলিশ ব্লাড ব্যাংকের মাধ্যমে একদিকে মানবতার চর্চা করে আরএমপি অনন্য উচ্চতায় আসীন হবে। অন্যদিকে জনগণের সাথে পুলিশের দুরত্ব ঘুচিয়ে জন প্রত্যাশা পথ সুগম করবে। রক্তের বিকল্প কেবল মাত্র রক্তই। অন্য কিছুর বিনিময়ে তা পূরনীয় নয়। তিনি স্বেচ্ছায় রক্ত দেওয়ার জন্য সবাইকে আহ্বান জানান।
অনুষ্ঠানে ২০২০-২১ সালে গণমাধ্যমে প্রকাশিত রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের উল্লেখযোগ্য কার্যক্রম নিয়ে ‘‘রাজশাহ মেট্রোপলিটন পুলিশের স্বপ্নিল সাফল্য গাথা’’ নামে একটি তথ্যচিত্র সম্বলিত বইয়ের মোড়ক উম্মোচন করেন। যার পরতে পরতে রয়েছে দৈনিক ইনকিলাবে প্রকাশিত প্রতিবেদন।
উল্লেখ্য, রাজশাহীতে ২০২০ সালে ১০ সেপ্টেম্বর পুলিশ কমিশনার হিসাবে যোগদানের পর থেকে পুলিশের কার্যক্রমের পাশপাশি বিভিন্ন মানবিক কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন। অফিসে ও রাস্তায় সমানভাবে তৎপর। রাজশাহীর মানুষ তাকে একজন মানবিক কর্মী হিসাবে আপন করে নিয়েছে। এবার অতিজরুরী ব্লাড ব্যাংক স্থাপন করে আরো একটি মানবতার দৃষ্টান্ত রাখলেন।
অনুষ্ঠানে সবাই তার এ মহতী প্রয়াসের প্রশংসা করেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন