শুক্রবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২২, ১৪ মাঘ ১৪২৮, ২৪ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

নির্বাচনে বাবার পক্ষে কাজ না করায় মুক্তিযোদ্ধাকে পিটালো ছেলে

মাদারীপুর থেকে স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৭ ডিসেম্বর, ২০২১, ৫:৫১ পিএম

মাদারীপুরে সদ্য অনুষ্ঠিত তৃতীয় দফা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সদর উপজেলার কুনিয়া ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী ইসমাইল হোসেনের পক্ষে কাজ না করায় বীরমুক্তিযোদ্ধা সুলতান মাতুব্বরকে পিটিয়ে আহত করলেন প্রার্থীর ছেলে বেলায়েত হোসেন। এঘটনায় মঙ্গলবার দুপুরে সদর থানায় হত্যাচেষ্টা মামলা করেছে মুক্তিযোদ্ধার ছেলে মাহমুদুল হাসান।

সোমবার সন্ধ্যায় সদর উপজেলার কুনিয়া ইউনিয়নের ত্রিভাগদী এলাকায় এঘটনা ঘটে। পরে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় সুলতান মাতুব্বরকে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বর্তমানে তিনি চিকিৎসাধীন রয়েছে।
পুলিশ ও স্থানীয় এলাকাবাসী জানান, সোমবার সন্ধ্যায় বীরমুক্তিযোদ্ধা সুলতান মাতুব্বর কুনিয়ার ত্রিভাগদি বাজারে কাজ শেষ বাড়ি ফিরছিলেন। ফেরার পথে ঘোড়া মার্কার চেয়ারম্যান প্রার্থী ইসমাইল হোসেনর ছেলে বেলায়েত হোসেন ও কয়েকজন মিলে তাকে লাঠিসোটা দিয়ে পিটাতে থাকে। এতে তিনি বাঁধা দিলে তাকে হত্যার চেষ্টা করলে তাতে ব্যর্থ হয়ে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। পরে আহত সুলতান আহমেদের চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। এ ঘটনায় মুক্তিযোদ্ধার ছেলে বাদী হয়ে বেলায়েত হোসেনসহ ৮ থেকে ১০ জনের বিরুদ্ধে হত্যাচেষ্টা মামলা করা হয়েছে।
এব্যাপারে ভুক্তভোগী বীরমুক্তিযোদ্ধা সুলতান মাতুব্বর বলেন বলেন, ‘ইসমাইল হোসেনের ছেলে তার সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে এর আগে আমার বসবাড়িতে হামলা চালায়। এসময় আমার স্ত্রী ও দুই মেয়েকে অস্ত্রের মুখে ফেলে মৃত্যুর হুমকি দেয় তারা। যে কোনো সময় ইসমাইল হোসেনের লোকজন আমাদের মেরে ফেলতে পারে। তাই আমরা আইনের সহযোগিতা নিয়েছি।’
অভিযোগের বিষয় বেলায়েত হোসেনের সাথে যোগাযোগ করেও পাওয়া যায়নি। তিনি এলাকা থেকে ঘা-ঢাকা দিয়েছেন বলেও স্থানীয় একটি সূত্রে জানা গেছে। তবে পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থী ইসমাইল হোসেন বলেন, ‘মুক্তিযোদ্ধাকে কে বা কারা মেরেছে, তা জানি না। এখন সে শত্রæতার বসে আমাদের জড়িয়েছে। আমরা ওই সাথে সাথে কোনভাবেই জড়িত না। আমি বিষয়টি জানি না।’
এব্যাপারে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. কামরুল ইসলাম মিঞা বলেন, এ ঘটনায় সদর থানায় পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। সদর হাসপাতালে আহত বীর মুক্তিযোদ্ধা সুলতান আহমেদ মাতুব্বরকে দেখে তার দেয়া অভিযোগ অনুযায়ী আইনি ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। মুক্তিযোদ্ধার ছেলে বাদী হয়ে থানায় মামলা দিয়েছে। আমরা আইনগত ব্যবস্থা নিবো।’

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন