সোমবার, ১৬ মে ২০২২, ০২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৪ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

ন্যাটোর অস্ত্র মারাত্মক হুমকি : পুতিন

ইউক্রেনে হস্তক্ষেপ না করতে রাশিয়াকে স্পষ্ট বার্তা জার্মানির

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৬ ডিসেম্বর, ২০২১, ১২:১২ এএম

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট পুতিন পাশ্চাত্যের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছেন, মার্কিন নেতৃত্বাধীন ন্যাটো জোটের পক্ষ থেকে ইউক্রেনকে সমরাস্ত্র সরবরাহ রাশিয়ার জন্য মারাত্মক হুমকি সৃষ্টি করছে। তিনি মঙ্গলবার ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাখোঁর সঙ্গে এক টেলিফোনালাপে এ সতর্কবাণী উচ্চারণ করেন। তিনি বলেন, পূর্ব দিকে ন্যাটো জোটের স¤প্রসারণ এবং রাশিয়ার জন্য হুমকি সৃষ্টিকারী সমরাস্ত্র মোতায়েন বন্ধ করার ব্যাপারে ন্যাটো জোটের সঙ্গে আলোচনায় বসতে চায় রাশিয়া। মস্কো পাশ্চাত্যের জন্য হুমকি সৃষ্টি করছে- বলে অজুহাত তুলে আমেরিকা ও ন্যাটো জোট সা¤প্রতিক বছরগুলোতে রাশিয়ার সীমান্তবর্তী দেশগুলোতে ব্যাপকভাবে সেনা ও সমরাস্ত্র মোতায়েন করেছে। পাশাপাশি ইউক্রেন সরকার দেশটির রুশ সীমান্তবর্তী পূর্বাঞ্চলে বিরোধীদের দমনের অজুহাতে রাশিয়ার সীমান্তে বিপুল পরিমাণ সমরাস্ত্র মোতায়েন করেছে। রাশিয়া বহুবার বলেছে, ইউক্রেন সীমান্তে দেশটির সেনা ও অস্ত্র মোতায়েন একটি স্বাভাবিক ব্যাপার এবং এটি সম্প‚র্ণ রাশিয়ার অভ্যন্তরীণ বিষয়। কিন্তু আমেরিকা ও তার মিত্ররা দাবি করছে, রাশিয়া আসলে ইউক্রেনে হামলা করতে চায়। এ কারণে পশ্চিমা দেশগুলো রাশিয়া-ইউক্রেন সীমান্তকে ‘চরম উত্তেজনাপূর্ণ’ হিসেবে তুলে ধরার চেষ্টা করছে। অপর এক খবরে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্র আগেই সতর্ক করেছিল। এবার সেই একই পথে হাঁটলেন জার্মানির নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যানালেনা বেয়ারবক। মঙ্গলবার রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভকে ফোন করেন তিনি। ইউক্রেন নিয়ে রাশিয়ার কড়া অবস্থান নিয়ে কথা হয় তাদের মধ্যে। বেয়ারবক রাশিয়াকে সীমান্ত থেকে সেনা কমানোর আহŸান জানিয়েছেন। পরে এ বিষয়ে টুইটও করেছে জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়। টুইটে বলা হয়েছে, খুব সৎ ভাবে রাশিয়ার সঙ্গে কথা বলা হয়েছে। ইউক্রেনের সার্বভৌমত্বে রাশিয়া যাতে হস্তক্ষেপ না করে, সে বিষয়ে তাদের স্পষ্ট বার্তা দেওয়া হয়েছে। এর আগে ইউক্রেন নিয়ে সরব হয়েছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বাইডেন। রাশিয়ার প্রেসিডেন্টের সঙ্গে তিনি বৈঠক করেছেন, ফোনে কথা বলেছেন। রাশিয়াকে সীমান্ত থেকে সেনা সরানোর কথা বলেছেন তিনিও। স¤প্রতি রাশিয়ার একটি এজেন্সির বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞাও আরোপ করেছে আমেরিকা। রাশিয়ার অবশ্য দাবি, পশ্চিমা দেশগুলি রাশিয়ার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে। রাশিয়া ইউক্রেনের সার্বভৌমত্বে হস্তক্ষেপ করছে বলে যে অভিযোগ উঠেছে, তাও অস্বীকার করছে রাশিয়া। উল্টে তাদের দাবি, ইউক্রেন আক্রমণমুখী হয়ে ওঠার কারণেই সীমান্তে তাদের সেনার সংখ্যা বাড়াতে হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরেই ইউক্রেন ন্যাটোর সদস্য হতে চাইছে। রাশিয়া তার বিরোধিতা করছে। এদিন জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে রাশিয়া জানিয়েছে, ইউক্রেনের ন্যাটোর সদস্য হতে চাওয়ার আর্জিতে জার্মানি যেন ভেটো দেয়। কোনোভাবেই ইউক্রেন যাতে ন্যাটোর সদস্যপদ না পায়, তা সুনিশ্চিত করার আর্জি জানিয়েছে রাশিয়া। জার্মানি অবশ্য রাশিয়ার দাবি মানবে, এমন ইঙ্গিত দেয়নি। বস্তুত, যুক্তরাষ্ট্রও ইউক্রেনের আর্জির পক্ষে সওয়াল করছে। যা ইউক্রেন এবং রাশিয়ার মধ্যে টেনশন আরো বাড়িয়েছে। জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী এমন দিনে রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে ফোনে কথা বলেছেন, যে দিন ইউক্রেনের রাষ্ট্রপ্রধান ইটালির এক টেলিভিশন চ্যানেলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে জার্মানির সমালোচনা করেছেন। তার বক্তব্য, জার্মানির সঙ্গে অস্ত্রের চুক্তি হওয়া সত্তে¡ও ইউক্রেনকে তারা যথেষ্ট অস্ত্র দিচ্ছে না। সা¤প্রতিক সমস্যা নিয়েও জার্মানি কার্যত নীরব বলে অভিযোগ করেছেন তিনি। তারপরেই এই ফোন ইঙ্গিতবাহী। বস্তুত, জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী এখন স্টকহোমে। সেখানে পরমাণু চুক্তি নিয়ে আলোচনা চলছে। সেই বৈঠকেও রাশিয়ার অবস্থান নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে জার্মানি। এএফপি, ডিপিএ।

 

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (5)
Anamul Houqe ১৬ ডিসেম্বর, ২০২১, ৬:৫১ এএম says : 0
একটি কথা আছে না যে কখনো কোন দেশকে দূরবল মনে করা ঠিক না
Total Reply(0)
Nadim Mostofa ১৬ ডিসেম্বর, ২০২১, ৬:৫১ এএম says : 0
রাশিয়া কিন্তু তার সেনাবাহিনী নিয়ে হামলা চালিয়ে শক্তি শালী দেশ মনে করে তাই।যুক্তরাষ্ট্রের ও এর চেয়ে শক্তি শালী দেশে।
Total Reply(0)
Abrar Fahad ১৬ ডিসেম্বর, ২০২১, ৬:৫১ এএম says : 0
আজারবাইজান এর মত ইউক্রেন যদি তুর্কী বলয়ে ঢুকে যায় তাহলে পরিস্থিতি পালটে যেতে পারে। যুদ্ধ বেজে যাবে এবং যুদ্ধের মাধ্যমে একটা সমাধান চলে আসবে।
Total Reply(0)
Younus Morol Putra Unikers ১৬ ডিসেম্বর, ২০২১, ৬:৫২ এএম says : 0
মানুষ না মেরে মানুষের উপকার কর
Total Reply(0)
MD Jishat ১৬ ডিসেম্বর, ২০২১, ৬:৫২ এএম says : 2
রাশিয়া চাইলে 24 ঘন্টা পুরা ইউক্রেন দখল করে নিতে পারবে 48 ঘণ্টায় প্রায় ইউরোপ করে নিতে পারবেন তারা
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন