শনিবার, ২৮ মে ২০২২, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৬ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

বিদায়ের আগে বিতর্কিত চুক্তির অনুমোদন ম্যার্কেল সরকারের

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৭ ডিসেম্বর, ২০২১, ৫:০৬ পিএম

জার্মানির সাবেক চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেলের সরকার ক্ষমতা ছাড়ার আগে তিনটি বিতর্কিত চুক্তির অনুমোদন দিয়েছে৷ এসব চুক্তিতে মিশরের কাছে ফ্রিগেট ও এয়ার ডিফেন্স সিস্টেমস এবং সিঙ্গাপুরের কাছে সাবমেরিন বিক্রির কথা বলা আছে৷

জার্মানির নিউজ ম্যাগাজিন ডেয়ার স্পিগেল সপ্তাহান্তে জানায়, নতুন চ্যান্সেলর হিসেবে ওলাফ শলৎসের শপথ নেয়ার একদিন আগে ৭ ডিসেম্বর এসব চুক্তি সংক্রান্ত কাগজপত্র জার্মান সংসদ বুন্ডেসটাগের প্রেসিডেন্ট ব্যার্বেল বাসের কাছে পাঠান ম্যার্কেল সরকারে অর্থনৈতিক বিষয়ক মন্ত্রী পেটার আল্টমায়ার৷

জার্মানির ফেডারেল সিকিউরিটি কাউন্সিল এসব চুক্তির অনুমোদন দেয়৷ এই পরিষদে চ্যান্সেলর ছাড়াও কয়েকজন মন্ত্রী থাকেন৷ ফলে নতুন চ্যান্সেলর ওলাফ শলৎস ম্যার্কেল সরকারের অর্থমন্ত্রী থাকায় তিনি এসব চুক্তি সম্পর্কে অবহিত ছিলেন৷

বুন্ডেসটাগ প্রেসিডেন্টের কাছে পাঠানো চিঠি থেকে জানা যায়, মিশরের কাছে তিনটি মেকো এ-২০০ ইএন ফ্রিগেট ও ১৬টি এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম বিক্রির কথা বলা হয়েছে৷ অন্য চুক্তিতে সিঙ্গাপুরের কাছে একটি ২১৮ জি সাবমেরিন বিক্রির উল্লেখ রয়েছে৷

মিশরের মানবাধিকার রেকর্ড খারাপ হওয়ায় এবং ইয়েমেন যুদ্ধে দেশটি সংশ্লিষ্ট থাকায় তাদের কাছে অস্ত্র বিক্রির সমালোচনা করেছেন জার্মানির কয়েকজন রাজনীতিবিদ ও ধর্মীয় নেতা৷ জার্মানির বর্তমান জোট সরকারের অংশ সবুজ দলের গুরুত্বপূর্ণ একজন নেতা আগনিসৎস্কা ব্রুগার বিদায়ী ম্যার্কেল সরকারের এই সিদ্ধান্তকে ‘হিসেবি রাজনৈতিক চাল’ বলে আখ্যায়িত করেছেন৷

তিনি বলেন, নতুন জোট সরকারের অংশ সবুজ দল হয়ত এসব চুক্তির অনুমোদন দিতো না, এই বিবেচনায় ম্যার্কেল সরকার যাওয়ার আগে সেগুলোর অনুমোদন দিয়েছে৷ জার্মানির খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের নেতারাও এই চুক্তির কড়া সমালোচনা করেছেন৷

আন্তর্জাতিক নিরাপত্তা বিশ্লেষক ও ফ্রাঙ্কফুর্টের পিস রিসার্চ ইনস্টিটিউটের প্রজেক্ট লিডার সিমোন ভিসোৎস্কি ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘তৃতীয় দেশের' কাছে অস্ত্র বিক্রির বিষয়টি এখন আর ‘ব্যতিক্রম’ বলে যুক্তি দেয়ার কিছু নেই৷ বরং এটি এখন ‘নিয়মে' পরিণত হয়েছে বলে মনে করেন তিনি৷

জার্মানির ‘জয়েন্ট কনফারেন্স চার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্টের’ ক্যাথলিক চেয়ারম্যান কার্ল ইয়ুসটেন বলেন, বাইরের দেশের কাছে ইউরোপ বেশি অস্ত্র বিক্রি করছে, বিশেষ করে সংযুক্ত আরব আমিরাত ও সউদী আরবে৷

সামাজিক গণতন্ত্রী এসপিডি, সবুজ দল ও ব্যবসাবান্ধব দল এফডিপির সমন্বয়ে গঠিত জার্মানির নতুন জোট সরকার ‘নিয়ন্ত্রিত অস্ত্র বিক্রি নীতি’ অনুসরণ করতে একমত হয়েছে৷ বিশেষ করে ইয়েমেন যুদ্ধে সংশ্লিষ্ট দেশগুলোর ক্ষেত্রে এই নীতি বিবেচনা করা হবে৷ সূত্র: ডয়চে ভেলে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন