শনিবার, ২৮ মে ২০২২, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৬ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

সুপ্রিমকোর্ট দিবস উদযাপন

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৯ ডিসেম্বর, ২০২১, ১২:০০ এএম

সাড়ম্বরে উদযাপিত হলো ‘সুপ্রিম কোর্ট দিবস’। গতকাল শনিবার নানা আনুষ্ঠানিকতার মধ্য দিয়ে উদযাপিত হয় দিবসটি। মানুষের বিচার লাভের আশ্রয়স্থল বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট ১৯৭২ সালের ১৮ ডিসেম্বর যাত্রা করে। এরপর কেটে গেছে ৪৯টি বছর। দেশের সব নাগরিকের জন্য আইনের শাসন, মৌলিক মানবাধিকারসংবলিত দেশের সংবিধান রক্ষায় সদা সচেষ্ট বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট।
দিবসটি উপলক্ষে আলোচনা সভার আয়োজন করে সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রেসিডেন্ট আবদুল হামিদ। ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে তিনি বক্তব্য রাখেন। আলোচনায় সভায় স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী ও আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন। এতে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন সভাপতিত্ব করেন। আপিল বিভাগের সকল বিচারপতি,হাইকোর্ট বিভাগের অধিকাংশ বিচারপতি,সিনিয়র আইনজীবী,অ্যাটর্নি জেনারেল,সুপ্রিম কোর্ট বারের নেতৃবৃন্দ এবং বিচার বিভাগীয় কর্মকর্তাগণ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।
মানুষের মৌলিক অধিকার, রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক ও সামাজিক সাম্য, স্বাধীনতা ও সুবিচার নিশ্চিত করার লক্ষ্যে বাংলাদেশের জনগণ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আহ্বান এবং নেতৃত্বে বীরত্বপূর্ণ স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশ গ্রহণ করে।
৯ মাস রক্তক্ষয়ী সংগ্রামের মধ্য দিয়ে এ দেশের মুক্তিকামী মানুষ ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর চূড়ান্ত বিজয় অর্জন করে বিশ্বের মানচিত্রে একটি স্বাধীন ও সার্বভৌম রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করে। বিজয়ের এক বছরের মধ্যেই বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নির্দেশে নির্বাচিত প্রতিনিধিরা সংবিধানের খসড়া প্রস্তুত করেন, যা ১৯৭২ সালের ৪ নভেম্বর গণপরিষদে গৃহিত হয়। একই বছরের ১৬ ডিসেম্বর তা কার্যকর হয়।
এ সংবিধানের অধীনে ১৯৭২ সালের ১৮ ডিসেম্বর বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের যাত্রা শুরু। এরপর কেটে গেছে ৪৫ বছর। সর্বশেষ ২০১৭ সাল থেকে ১৮ ডিসেম্বরকে ‘সুপ্রিম কোর্ট দিবস’ হিসেবে উদযাপনের ঘোষণা করে সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন। সেই থেকে যথাযোগ্য মর্যাদায় দিবসটি উদযাপন করে আসছেন বিচারপতি ও আইনজীবীরা। সুপ্রিম কোর্টের স্পেশাল অফিসার মোহাম্মদ সাইফুর রহমান বলেন, ১৯৭২ সালের ১৮ ডিসেম্বর সুপ্রিম কোর্ট যাত্রা শুরু করে। প্রতিবছর ১৮ ডিসেম্বর বিভিন্ন আনুষ্ঠানিকতার মধ্য দিয়ে দিবসটি উদযাপন করা হয়। এবারও বড় আয়োজনের মধ্য দিয়ে দিবসটি উদযাপিত হয়।এতে মহামান্য রাষ্ট্রপতি, জাতীয় সংসদের মাননীয় স্পীকার, মাননীয় আইনমন্ত্রী বক্তৃতা করেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন