শুক্রবার, ২৭ মে ২০২২, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৫ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

গণপরিবহনে থেমে নেই অতিরিক্ত ভাড়া আদায়

একলাছ হক | প্রকাশের সময় : ২০ ডিসেম্বর, ২০২১, ১২:০৬ এএম

গণপরিবহনে থামছেনা অতিরিক্ত ভাড়া আদায়। অতিরিক্ত ভাড়া নেয়ার কারণে অস্বস্তিতে পড়েছেন যাত্রীরা। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে নির্ধারিত ভাড়ার চেয়েও অতিরিক্ত ভাড়া নেয়ার অভিযোগ যাত্রীদের। জ্বালানি তেলের দাম বাড়ার পরিপ্রেক্ষিতে গণপরিবহনে ভাড়া বৃদ্ধির ঘোষণার পর বস্তুত সড়কে সব গাড়িই যাত্রীদের কাছ থেকে বর্ধিত ভাড়া আদায় করছে। এমনকি সরকার নির্ধারিত ভাড়ার চেয়েও অতিরিক্ত ভাড়া নেয়া হচ্ছে। নির্ধারিত ভাড়ার চেয়েও অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের চিত্র দেখা যায় সর্বত্র।

ভাড়া সমন্বয়ের ঘোষণার পর অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। সড়ক পরিবহন মালিকসহ সবাই নির্ধারিত ভাড়ায় গাড়ি চালাবেন বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। তারপরও অতিরিক্ত ভাড়া নিলে ব্যবস্থা নেয়া হবে। এজন্য সারাদেশে মোবাইল কোর্ট পরিচালনারও নির্দেশ দেন তিনি।

গণপরিবহনে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করলে তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। সম্প্রতি রাজধানীর তেজগাঁও মহিলা কলেজে অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, গণপরিবহনে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের বিষয়ে আমরা মনিটরিং করছি। পরিবহন মালিক ও শ্রমিকদের সঙ্গে নিয়ে বিআরটিএ বৈঠক করে নতুন বাস ভাড়া নির্ধারণ করেছে। এটা নিয়ে কোন জটিলতা থাকার কথা নয়। গণপরিবহনে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

জানা যায়, রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে পরিবহনে ভাড়া বেশি নেয়ার বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ)। কিন্তু ভাড়া নিয়ন্ত্রণে পরিচালিত অভিযানও এখন আর দেখা যায় না। সেই সুযোগে বাসের মালিক, চালক ও হেলপাররা অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছেন। ভাড়া-নৈরাজ্য নিয়ন্ত্রণে গত ৮ অক্টোবর থেকে ৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত অভিযান পরিচালনা করা হয়। এতে বেশ কয়েকটি বাসকে জরিমানা করা হয়েছে। ২৫টি বাস কোম্পানির রুট পারমিট বাতিলের সুপারিশ করেছে বিআরটিএর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা। এ ছাড়া অতিরিক্ত ভাড়া আদায়, রুট পারমিট না থাকাসহ নানা অপরাধে ৫৬টি বাসকে পাঠানো হয়েছে ডাম্পিংয়ে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি নিয়ম ভেঙেছে বসুমতি, রাইদা, পরিস্থান, লাভলী, অনাবিল, আলিফ, লাব্বাইক, তুরাগ, বলাকা, স্বাধীন, প্রজাপতি, রজনীগন্ধা ও শিকড়, আকাশ, আজমেরী, মনজিল, প্রভাতি, বনশ্রী, আসমানী, প্রচেষ্টা, ভিক্টর, মিডলাইন, ডি লিংক, গাজীপুর পরিবহন, ভিআইপি বাস।

ডিজেলচালিত গণপরিবহনে ভাড়া সমন্বয়ের পর এ বিষয়ে বিআরটিএ চেয়ারম্যান নুর মোহাম্মদ মজুমদার বলেছেন, সিএনজিচালিত গণপরিবহনে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় হচ্ছে কি না, এ বিষয়টি বিআরটিএ মনিটরিং করা হবে।

রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, জ্বালানি তেলের দাম বাড়ায় গণপরিবহনেও ভাড়া বাড়িয়েছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ)। এ বর্ধিত ভাড়া সিএনজিচালিত গণপরিবহনের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে না বলেও জানানো হয়। কিন্তু মাঠ পর্যায়ে তা কার্যকর হচ্ছে না। ডিজেলচালিত গণপরিবহনের পাশাপাশি সিএনজিচালিত গণপরিবহনেও যাত্রীদের কাছ থেকে বাড়তি ভাড়া আদায় করতে দেখা গেছে।

পল্টন এলাকার বাস যাত্রী আনিছুর রহমান বলেন, এতোকিছুর পরও বাস ভাড়া কমেনি। নির্ধারিত ভাড়ার চেয়ে এখনো বেশি ভাড়া নেয়া হচ্ছে। আমাদের যেন কিছুই করার নেই। ওয়েবিল সিস্টেম এখনো আছে। বাসের চালকের সহকারীরা তাদের হিসাব অনুযায়ীই ভাড়া আদায় করছেন। যাত্রীদের দিক বিবেচনা করার প্রয়োজন মনে করেন না।

এবিষয়ে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতির মহাসচিব মোজাম্মেল হক চৌধুরী ইনকিলাবকে বলেন, দেশের প্রত্যেক এলাকার রুট ভাগ করে অভিযান পরিচালনা করতে হবে। কোন রুটে কত ভাড়া ছিলো আর এখন কত আদায় করা হচ্ছে এগুলো সঠিক তদন্ত সরকারকে করতে হবে। সরকারের পক্ষ থেকে ভাড়ার নির্ধারিত তালিকা করে দিতে হবে। সেই মোতাবেক ভাড়া যাতে নেয় সেই ব্যবস্থা করা প্রয়োজন। সারা দেশে অভিযান অব্যাহত রাখতে হবে। তা নাহলে সুফল পাওয়া যাবে না।

ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির দফতর সম্পাদক সামদানী খন্দকার ইনকিলাবকে বলেন, আমাদের মালিক সমিতির পক্ষ থেকে মনিটরিং অব্যাহত রয়েছে। তবে কোন কোন বাসে হয়তো চালক ও সহকারীরা ভাড়া বেশি নেয়। আমরা প্রতিদিনই খোঁজখবর রাখছি। যদি কেউ নির্ধারিত ভাড়ার বেশি নেয় তাহলে ব্যবস্থা নিব। বর্তমানে ৮০ থেকে ৯০ শতাংশ বাসে নির্ধারিত ভাড়া নেয়া হচ্ছে। আশাকরি অল্প সময়ের মধ্যেই পুরোপুরি ঠিক হয়ে যাবে।#

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (1)
SOHAG ১৯ ডিসেম্বর, ২০২১, ১০:৫৬ এএম says : 0
launch a di gun vara tole. Vai doya kore ata niea news koren . Sadharon manusher rokto chuse khacce launch malik ra. Ai bisoye govment er dristi akorsho korce.
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন