বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৪ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

বাংলাদেশকে ৫০ কোটি ডলার ঋণ বিশ্বব্যাংকের

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৩ ডিসেম্বর, ২০২১, ১২:০০ এএম

দেশে আধুনিক, নির্ভরযোগ্য এবং টেকসই বিদ্যুৎ সরবরাহ ব্যবস্থা গড়ে তুলতে ৫০ কোটি ডলার ঋণ অনুমোদন করেছে বিশ্বব্যাংক। বাংলাদেশি মুদ্রায় এর পরিমাণ ৪ হাজার ২৫০ কোটি টাকা (প্রতি ডলার সমান ৮৫ টাকা ধরে)। ইলেকট্রিসিটি ডিস্ট্রিবিউশন মর্ডারনাইজেশন কর্মসূচির আওতায় এ ঋণ অনুমোদন দিয়েছে সংস্থাটি। গতকাল বিশ্বব্যাংকের ওয়াশিংটন অফিস এ ঋণ অনুমোদন দিয়েছে বলে জানায় সংস্থাটির ঢাকা অফিস।

বিদ্যুৎ বিতরণ আধুনিকীকরণ কর্মসূচি ঢাকা ও ময়মনসিংহ বিভাগের প্রায় চার কোটি মানুষের কাছে উন্নত বিদ্যুৎসেবা পৌঁছে দেবে। এটি বাংলাদেশ গ্রামীণ বিদ্যুতায়ন বোর্ডের ২৫টি গ্রামীণ বৈদ্যুতিক সমবায়ে (পল্লী বিদ্যুৎসমিতি) নেটওয়ার্ক অবকাঠামো উন্নয়নে বাস্তবায়ন হবে। প্রকল্পের আওতায় ৩১ হাজার কিলোমিটারের বেশি ডিস্ট্রিবিউশন লাইন, ১৫৭টি ডিস্ট্রিবিউশন সাবস্টেশন এবং সংশ্লিষ্ট অবকাঠামো নির্মাণ করা হবে। বিদ্যুৎ ব্যবস্থার আধুনিকীকরণ এবং রূপান্তর করতে নেটওয়ার্কগুলোকে নতুন এবং উন্নত প্রযুক্তির সঙ্গে যুক্ত করা হবে।

বাংলাদেশে নিযুক্ত বিশ্বব্যাংকের ভারপ্রাপ্ত কান্ট্রি ডিরেক্টর ড্যান ড্যান চেন বলেন, গত দশকে বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতা চারগুণেরও বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে এবং ৯৯ শতাংশেরও বেশি মানুষ বিদ্যুৎ সংযোগ পেয়েছে। কিন্তু বিদ্যুৎ বিতরণ নেটওয়ার্ক উৎপাদনের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে পারেনি। এই প্রোগ্রামটি বিতরণ নেটওয়ার্কের আধুনিকীকরণ এবং টেকসহ বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করতে সহায়তা করবে, যা একটি নিরাপদ এবং নির্ভরযোগ্য পাওয়ার সিস্টেমের মেরুদন্ড।

প্রোগ্রামটি একটি আধুনিক গ্রিড সিস্টেম চালু করবে, যা বিদ্যুৎ এবং তথ্যের দ্বিমুখী প্রবাহকে সমর্থন করতে পারে। প্রাকৃতিক দুর্যোগ এবং চরম আবহাওয়ার ঘটনাসহ জলবায়ু এবং সাইবার ঝুঁকি থেকে দ্রুত পুনরুদ্ধার করতে সহায়তা করবে প্রকল্পটি। এটি সুপারভাইজরি কন্ট্রোল এবং ডেটা অধিগ্রহণ সিস্টেমের মতো অত্যাধুনিক প্রযুক্তি চালু করবে এবং উন্নত মিটারিং অবকাঠামো চালু করবে। এটি বিদ্যুৎ বিতরণ নেটওয়ার্কে নবায়ন শক্তি এবং ব্যাটারি শক্তি স্টোরেজ সিস্টেমের একীকরণের সুবিধার মাধ্যমে বিদ্যুৎ খাতের উন্নয়ন করবে। এই সবই বিদ্যুৎ ব্যবস্থার টেকসই রূপান্তর ঘটাবে।

বিশ্বব্যাংকের সিনিয়র এনার্জি স্পেশালিস্ট এবং প্রোগ্রামের টিম লিডার বিপুল সিং বলেন, ২০০৯ সাল থেকে বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড বিশ্বের বৃহত্তম গ্রামীণ বিদ্যুতায়ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করেছে। ৯ কোটির বেশি লোকের কাছে বিদ্যুৎ পৌঁছে দিয়েছে পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড। এই প্রোগ্রামটি নির্ভরযোগ্য বিদ্যুৎ সরবরাহ এবং পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের ক্ষমতাকে শক্তিশালী করবে। বিশ্বব্যাংকের অঙ্গভুক্ত প্রতিষ্ঠান আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংস্থা (আইডিএ) নমনীয় শর্তে এ ঋণ দিচ্ছে বাংলাদেশকে। এখানে পাঁচ বছরের গ্রেস পিরিয়ড সহ ৩০ বছরের মেয়াদ রয়েছে। এছাড়াও, প্রোগ্রামটিতে ক্লিন টেকনোলজি ফান্ড হিসেবে ১৫ মিলিয়ন অনুদান অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

এই কর্মসূচিসহ, নবায়নযোগ্য শক্তির উৎস থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন, সঞ্চালন এবং বিতরণের জন্য বাংলাদেশের জ্বালানি খাতে বিশ্বব্যাংকের ১৮০ কোটি মার্কিন ডলার ঋণ চলমান সহায়তা রয়েছে। ১৯৮১ সাল থেকে বিশ্বব্যাংক পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের বিদ্যুতায়ন ব্যবস্থা শক্তিশালী করতে কাজ করছে।

বাংলাদেশে বর্তমানে ১৪ বিলিয়ন ডলারের বেশি সহায়তা চলমান রেখে আইডিএ। বিশ্বব্যাংক বাংলাদেশের অন্যতম প্রধান উন্নয়ন সহযোগী। স্বাধীনতার পর থেকে সংস্থাটি বাংলাদেশে ৩৫ বিলিয়ন ডলারেরও বেশি অনুদান, সুদ-মুক্ত ঋণ, ঋণ এবং সহজ শর্তে ঋণ দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (10)
Liton Halder ২৩ ডিসেম্বর, ২০২১, ১২:৩২ এএম says : 0
ধন্যবাদ বিশ্বব্যাংকে ।
Total Reply(0)
Saju Bd ২৩ ডিসেম্বর, ২০২১, ১২:৩৩ এএম says : 0
এই টাকা কি ফেরত দেওয়া লাগবে না বিশ্শোব্যাংককে।?????
Total Reply(0)
Kaiyum Hossen ২৩ ডিসেম্বর, ২০২১, ১২:৩৩ এএম says : 0
GooD News জয় বাংলা
Total Reply(0)
S M Jalal Uddin ২৩ ডিসেম্বর, ২০২১, ১২:৩৪ এএম says : 0
দেশের সুসংবাদ শুনলে ভালই লাগে আবার কষ্টও লাগে.... এর পরে ও প্রবাসীদের মূল্যায়ন করা হচ্ছেনা আমরা ভিবিন্ন ভাবে নির্যাতিত হয়ে আসছি... এয়ারপোর্ট থেকে গ্রামের বাড়ি পর্যন্ত.. শুধু মুখে মুখে আমাদের প্রতি ভালবাসা দেখানো হচ্ছে.... আমার গ্রামের একটু জায়গা সঠিক দলিল থাকা স্বত্তেও প্রভাবশালীরা দখল করে নিল কোনো বিচার পেলামনা...তাই আরেকবার প্রমানিত হলো সত্যিকার অর্থে গরিবের কেউ নেই আল্লাহ ছাড়া...হয়তো পরামর্শ দেবেন আইনের সাহায্য নিতে কিন্তু কি লাভ আইন কি নিজে নিজে চলবে তাহার পিছনে আমাকেও চলতে হবে কিন্তু আমারতো সেই সময় টুকু নেই আমিতো থাকি প্রবাসে...
Total Reply(0)
Md Monirujjaman ২৩ ডিসেম্বর, ২০২১, ১২:৩৪ এএম says : 0
বেকার দের কি হবে???এই টাকা দিয়ে সারা বাংলাদেশ ন্যাশনাল সার্ভিস চালু করা হোক।নয় ঘুষ ছাড়া সব ধরনের সরকারী চাকরী দেয়া হোক।
Total Reply(0)
Md Mahbubul Alam ২৩ ডিসেম্বর, ২০২১, ১২:৩৪ এএম says : 0
বিশ্ব ব্যংক কে ধন্যবাদ।শেখ হাসিনার অগ্রযাত্রার প্রতি বিশ্ববংক সহ অন্যান্য উন্নয়ন সহযোগীরা অত্যান্ত আস্হাশীল।যত দিন শেখ হাসিনা থাকবে তত দিন আন্তর্জাতিক সহায়তা অব্যাহত থাকবে।
Total Reply(0)
Shohorab Hosan Shahed ২৩ ডিসেম্বর, ২০২১, ১২:৩৫ এএম says : 0
এসকল অর্থের সঠিক ব্যাবহার হতে হবে।
Total Reply(0)
মোহাম্মদ দলিলুর রহমান ২৩ ডিসেম্বর, ২০২১, ১:২১ এএম says : 0
মিষ্টি মিষ্টি কথা বলে ঋণের বোঝা মাথায় দিয়ে,লুঠ পাঠ করে খাইয়া অবৈধ সরকার পালাবে,আর জনগণ এই রিন শোধ করতে হবে,আর বিশ্ব ব্যাংকের যে কেউ এই অবৈধ সরকারের সাথে জড়িত আছে অবশ্যই,।
Total Reply(0)
মোহাম্মদ দলিলুর রহমান ২৩ ডিসেম্বর, ২০২১, ২:৪০ এএম says : 0
গাড়ের মধ্যে ঋনের বোঝা নিয়ে মরতে হবে,সেই রিন বড় লোকদের জন্য,মন্ত্রী এম পিদের জন্য,
Total Reply(0)
TAWHID MOLLAH ২৩ ডিসেম্বর, ২০২১, ৫:৩৩ পিএম says : 0
ADB দিচ্ছে ৯ বিলিয়ান ডলার, দোক্ষিন কোরিয়া দিচ্ছে ১০০ মিলিয়ন ডলার, বিশ্ব ব্যাংক দিচ্ছে ৪ হাজার ২৫০ কোটি টাকা এছাড়াও আরো কত ব্যাংক থেকে কত টাকা যে সরকার ঋণ নিচ্ছে তার হিসাব করা কঠিন। কারন সকল ঋণের বোঝা আমাদের দেশের সাধারন জনগণেকে পরিশোধ করতে হবে। এ ভাবে ঋণ নিয়ে দেশ কে দেউলিয়াপনার হাত থেকে রক্ষা করা উচিৎ আমাদের দেশের সরকারের। এতো ঋণ নিয়ে উন্নয়ণ না করে আস্তে আসে ছোট ছোট উন্নয়ণ করে উন্নত বাংলাদেশ গড়া অনেক ভাল। আমাদের আঙ্গুল ফুলে কলা গাছ হওয়ার থেকে সতর্ক হতে হবে। এতোটাকার ঋণ আমরা পরিশোধ করব কি করে।
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন