সোমবার, ২৩ মে ২০২২, ০৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২১ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

বিনোদন প্রতিদিন

মাদক মামলায় পরীমনির নির্দোষ দাবী করলেও অভিযোগ গঠন: বিচারকাজ শুরু

বিনোদন রিপোর্ট: | প্রকাশের সময় : ৬ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:০২ এএম

নিজেকে নির্দোষ দাবী করেও মাদক মামলার অভিযোগ গঠন থেকে রেহাই পাননি বিতর্কিত চিত্রনায়িকা পরীমনি। তিনিসহ তিনজনের বিরুদ্ধে গতকাল অভিযোগ গঠন করেছেন আদালত। ঢাকার ১০ নম্বর বিশেষ জজ আদালতের বিচারক মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন। এর মাধ্যমে শুরু হয়েছে এ মামলার আনুষ্ঠানিক বিচারকাজ। অভিযোগ গঠনের সময় নিজেকে নির্দোষ দাবি করেন পরীমনি। একই সঙ্গে মামলার সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য ধার্য করা হয় ১ ফেব্রুয়ারি। পরীমনি ছাড়াও এ মামলার অপর দুই আসামি হলেন, আশরাফুল ইসলাম দিপু ও কবির হোসেন। ঢাকা মহানগর পাবলিক প্রসিকিউর আব্দুল্লাহ আবু পরীমনিসহ তিনজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করতে শুনানি করেন। পরীমনির আইনজীবী নীলঞ্জনা রিফাত সুরভী মামলার দায় হতে অব্যাহতি চেয়ে আবেদন করেন। এছাড়া পরীমনিসহ তিনজনের জামিন চেয়ে করা হয় আবেদন। উভয়পক্ষের শুনানি শেষে পরীমনিসহ তিনজনের জামিন মঞ্জুর করেন বিচারক। তবে অব্যাহতির আবেদন নামঞ্জুর করে অভিযোগ গঠন করেন। অভিযোগ গঠনের সময় পরীমনিকে বিচারক প্রশ্ন করেন, আপনার বিরুদ্ধ মাদক আইনে অভিযোগ গঠন করা হচ্ছে। আপনি দোষী না নির্দোষ? এসময় পরীমনি বললেন, আমি নির্দোষ। এরপর বিচারক পরীমনিকে প্রশ্ন করেন, আপনার গাড়ি দিয়ে মাদক সরবরাহ করা হয়েছে, এতে আপনার বক্তব্য কী? এসময় পরীমনি বললেন, এটা স¤পূর্ণ মিথ্যা। পরীমনির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের পর তার ও অপর দুইজনের বিরুদ্ধে এখন বিচারকাজ চলবে। এতে দোষী ও নির্দোষী হওয়ার বিষয়টি সাব্যস্ত হবে। দোষী হলে সাজা পাবেন, নির্দোষ হলে মুক্ত হবে। উল্লেখ্য, ২০২১ সালের ৪ অক্টোবর মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সিআইডির পরিদর্শক কাজী মোস্তফা কামাল আদালতে পরীমনিসহ তিনজনের বিরুদ্ধ অভিযোগপত্র দাখিল করেন। এর আগে একই বছরের ৪ আগস্ট সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে পরীমনিকে তার বনানীর বাসা থেকে আটক করে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। ওইদিনই রাত ৮টা ১০ মিনিটে পরীমনিকে র‌্যাব সদরদপ্তরে নেওয়া হয়। সেখানে রাত ১২টা পর্যন্ত তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে র‌্যাব। পরদিন ৫ আগস্ট বিকেলে পরীমনি, চলচ্চিত্র প্রযোজক নজরুল ইসলাম রাজ এবং তাদের দুই সহযোগী আশরাফুল ইসলাম দীপু ও সবুজ আলীকে বনানী থানায় নেওয়া হয়। এরপর র‌্যাব বাদী হয়ে বনানী থানায় পরীমনি ও তার সহযোগী দীপুর বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করে। পৃথক মামলা হয় রাজ ও তার সহযোগী সবুজ আলীর বিরুদ্ধে। মামলা সূত্রে জানা যায়, পরীমনি ২০১৬ সাল থেকে মাদকসেবন করতেন। এজন্য বাসায় একটি মিনিবার তৈরি করেন। সেখানে নিয়মিত মদের পার্টির আয়োজন করতেন। চলচ্চিত্র প্রযোজক নজরুল ইসলাম রাজসহ আরও অনেকে তার বাসায় অ্যালকোহলসহ বিভিন্ন ধরনের মাদকের সরবরাহ করতেন ও পার্টিতে অংশ নিতেন।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন