বুধবার, ১৮ মে ২০২২, ০৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৬ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

চৌমুহনীতে সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনায় গণগ্রেপ্তার ও পুলিশী হয়রানির প্রতিবাদে মানববন্ধন

নোয়াখালী ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ৯ জানুয়ারি, ২০২২, ৮:৩১ পিএম | আপডেট : ৮:৪৯ পিএম, ৯ জানুয়ারি, ২০২২

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনীর বিভিন্ন মন্দিরে সাম্প্রদায়িক হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনায় দায়েরকৃত মামলা নিরীহ ব্যক্তিদের অভিযোগ উঠেছে। মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমুলকভাবে গণ-গ্রেপ্তারকৃতারের প্রতিবাদ, গ্রেপ্তারকৃত নিরপরাধীদের মুক্তির দাবীতে মানববন্ধন এবং বিক্ষোভ মিছিল করেছে এলাকাবাসী। রোববার চৌমুহনী পাবলিক হলের সামনে চৌমুহনী পৌরসভার গণিপুর এলাকার লোকজনের উদ্যোগে এ কর্মসূচি পালন করা হয়।

মানববন্ধনে এলাকাবাসীরা জানান, চৌমুহনীতে হিন্দু সম্প্রদায়ের মন্দিরে হামলা, ভাঙচুরের ঘটনায় সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টকারী প্রকৃত অপরাধীদের গ্রেপ্তার না করে ঢালাওভাবে গণিপুর গ্রামের লোকজনকে গণগ্রেপ্তার করছে পুলিশ। পুলিশের এমন হয়রানির প্রতিবাদ জানিয়ে প্রকৃত অপরাধীদের গ্রেপ্তার করে সাধারণ মানুষকে হয়রানি না করার অনুরোধ করা হয়। একই সাথে ওই ঘটনায় গ্রেপ্তারকৃত নিরপরাধ ব্যক্তিদের মুক্তিরও দাবি জানান তারা।

এ বিষয়ে বেগমগঞ্জ থানার ওসি মীর জাহেদুল হক রনি বলেন, ঘটনার সাথে জড়িতদের শনাক্ত করে গ্রেপ্তার করা হচ্ছে। এরবাইরে কোন নিরপরাধ কোন ব্যক্তিকে পুলিশ গ্রেপ্তার বা হয়রানি করছেনা।

প্রসঙ্গত, কুমিল্লায় মুক্তির কোলে পবিত্র কোরআন শরীফ রাখার ঘটনাকে কেন্দ্র করে গত বছরের ১৫ অক্টোবর শুক্রবার জুমার নামাজের পর নোয়াখালীর চৌমুহনীসহ বিভিন্ন মন্দিরে হামলার ঘটনা ঘটে। পরে এ ঘটনায় পুলিশ ও মন্দির কর্তৃপক্ষ বাদী হয়ে ৩২টি মামলা দায়ের করেন। মামলাগুলোতে ৪১২জনের নাম উল্লেখ্য ও অজ্ঞাত আরও ৮-৯ হাজার ব্যক্তিকে আসামী করা হয়। যারমধ্যে এজাহারভুক্ত ১০১ ও ঘটনায় জড়িত থাকা আরও ১৩৪জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। ৩২টি মামলার মধ্যে জেলা পুলিশ ১০টি, সিআইডি ১১টি ও পিবিআই ১১টি মামলার তদন্ত করছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন