বুধবার, ১৮ মে ২০২২, ০৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৬ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

খেলাধুলা

সাকিব ফিরলেন অলরাউন্ডার হয়েই

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১০ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:০১ এএম

২৬ রানে শেষ ৬ উইকেট হারিয়ে অল্প পুঁজিতে গুটিয়ে গেল ওয়ালটন মধ্যাঞ্চল। তবে বোলারদের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় নাটকীয় জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ল তারা। ব্যাটে-বলে অলরাউন্ড নৈপুণ্যে দেখিয়ে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখলেন তারকা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। গতকাল স্বাধীনতা কাপে সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে লো স্কোরিং ম্যাচে ২২ রানে জিতেছে মধ্যাঞ্চল। টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে ৪৩.২ ওভারে তারা অলআউট হয় ১৭৭ রানে। জবাবে ১৭ বল বাকি থাকতে ইসলামী ব্যাংক পূর্বাঞ্চলের ইনিংস থামে ১৫৫ রানে।

চার দিনের ম্যাচের প্রতিযোগিতা বিসিএলের সবশেষ আসরে শিরোপা জেতে মধ্যাঞ্চল। এবার স্বাধীনতা কাপেও শুভ সূচনা করেছে তারা। আসন্ন বিপিএলের প্রস্তুতি হিসেবে এই প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে প্রথম ম্যাচেই আলো ছড়ান সাকিব। ব্যাট হাতে ৫৮ বলে ২ চারে তিনি করেন ৩৫ রান। এরপর বল হাতে ১০ ওভারে ২ মেডেনসহ ২৪ রানে পান ২ উইকেট।

সাকিব ছাড়াও মধ্যাঞ্চলের হয়ে ২ উইকেট করে নেন মুরাদ ও সৌম্য। ম্যাচসেরার পুরস্কার জেতেন অধিনায়ক মোসাদ্দেক। ব্যাট হাতে ৩৮ বলে ১৭ রান করার পর বল হাতে ভীষণ কৃপণতা দেখান তিনি। ১০ ওভারে ৪ মেডেনসহ ১৩ রানে নেন ১ উইকেট।
এদিকে, সিলেটের একাডেমি মাঠে বাঁহাতি পেসার শফিকুল ইসলাম ও বাঁহাতি স্পিনার সানজামুল ইসলাম দাগলেন তোপ। তাতে শেষদিকে হুড়মুড় করে ভেঙে পড়ল বিসিবি দক্ষিণাঞ্চলের ব্যাটিং লাইনআপ। এরপর সহজ লক্ষ্য তাড়ায় ওপেনার পারভেজ হোসেন ইমন ও নাঈম ইসলাম করলেন ফিফটি। অনায়াসে জয় তুলে নিয়ে স্বাধীনতা কাপে শুভ সূচনা করল বিসিবি উত্তরাঞ্চল। ম্যাচটি ৮ উইকেটে জিতেছে মার্শাল আইয়ুবের দল। টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে ৪২.৪ ওভারে মাত্র ১৬২ রানে গুটিয়ে যায় দক্ষিণাঞ্চল। জবাবে ১১৪ বল হাতে রেখে মাত্র ২ উইকেট খুইয়ে জয় নিশ্চিত করে উত্তরাঞ্চল।

জয়ী দলের হয়ে সানজামুল ৩৯ রানে নেন ৩ উইকেট। তিনি একই ওভারে তৌহিদ হৃদয়, ফরহাদ রেজা ও নাসুম আহমেদকে সাজঘরে পাঠিয়ে প্রতিপক্ষকে কাঁপিয়ে দেন। শেষটা মুড়িয়ে দেওয়া শফিকুল ৩ উইকেট পান ২৯ রানে। ২ উইকেট শিকারের পর ৮৪ বলে ৯ চারে অপরাজিত ৬৬ রানের ইনিংসে ম্যাচসেরার পুরস্কার জেতেন নাঈম। পারভেজ আউট হন ৫ চার ও ৪ ছক্কায় ৫৪ বলে ৫৪ রান করে।

জবাব দিতে নেমে দ্বিতীয় ওভারে শেখ মেহেদীর শিকার হন তানজিদ হাসান তামিম। এরপর দুটি ভালো জুটিতে উত্তরাঞ্চলকে জয় পাইয়ে দেন নাঈম। প্রথম পারভেজের সঙ্গে ৯১ রান যোগ করেন তিনি। পরে অধিনায়ক মার্শালের সঙ্গে গড়েন অবিচ্ছিন্ন ৬৬ রানের জুটি। মার্শাল অপরাজিত থাকেন ৪১ বলে ৩২ রানে। ৭ ওভার বল করে ২১ রান দিয়ে উইকেটশূন্য থাকেন মুস্তাফিজুর রহমান।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন