সোমবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২২, ১০ মাঘ ১৪২৮, ২০ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

রূপ নিচ্ছে এক্সপ্রেসওয়েতে

দুর্ভোগের হাতিরঝিল-আমুলিয়া-ডেমরা সড়ক এক ঘণ্টার পথ মাত্র ১০ মিনিটেই যাওয়া যাবে

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১০ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:০০ এএম

জনদুর্ভোগের মহাসড়ক হাতিরঝিল-আমুলিয়া-ডেমরা। ১৬ দশমিক ৫ কিলোমিটারের এ রুটটিতে যাত্রীদের দুর্ভোগের শেষ নেই। মানুষের ভোগান্তি কমাতে এ মহাসড়কটি চার লেনের এক্সপ্রেসওয়েতে উন্নীত করবে সরকার। পাশাপাশি এটি যানজট কমাতেও ভূমিকা রাখবে। এজন্য পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশিপের (পিপিপি) ভিত্তিতে প্রকল্প হাতে নিয়েছে সড়ক ও জনপথ অধিদফতর (সওজ)। প্রকল্পের আওতায় দুটি ব্রিজ, চারটি ইন্টারসেকশন, দুটি কালভার্ট, একটি ওভারপাস, ফুটওভার ব্রিজ ও টোলপ্লাজা নির্মাণ করা হবে। ২০২৬ সালে শেষ হবে প্রকল্পের কাজ। এক্সপ্রেসওয়ের ৯.৫০ কিলোমিটার হবে উড়াল পথ।

গতকাল রোববার রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালের গ্র্যান্ড বলরুমে এ চুক্তি স্বাক্ষর হয়। সড়ক ও জনপথ অধিদফতরের পক্ষে সংস্থার প্রধান প্রকৌশলী মো. আব্দুস সবুর এবং প্রকল্প বাস্তবায়নের সহযোগী সংস্থা চীনা কনসোর্টিয়ামের পক্ষে ফ্যাং মিং চুক্তিতে সই করেন।

সড়ক ও জনপথ অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, ঢাকার যানজট কমাতে ও শহরের কেন্দ্রস্থলে একটি বিকল্প প্রবেশদ্বারের জন্য বিদ্যমান হাতিরঝিল-রামপুরা-বনশ্রী-শেখের জায়গা-আমুলিয়া-ডেমরা রুটটি এক্সপ্রেসওয়েতে পরিণত করার পরিকল্পনা করেছে সরকার। এক্সপ্রেসওয়েটি ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের শিমরাইল এলাকার সঙ্গে সংযুক্ত করা হবে। যেখানে মহাসড়কে যান চলাচল নিরবচ্ছিন্ন রাখতে একটি বহুস্তরবিশিষ্ট ফ্লাইওভার নির্মাণ করা হবে।

এক্সপ্রেসওয়ে চালুর পর এই রুটটি হবে ১৩ কিলোমিটার। ১ ঘণ্টার বদলে মহাসড়কে এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে চলাচলে সময় লাগবে ১০ মিনিট। এ প্রকল্প বাস্তবায়নের পর এক্সপ্রেসওয়েটি ব্যবহারের জন্য ২১ বছর পর্যন্ত টোল দিতে হবে। তবে যানবাহনপ্রতি ঠিক কি পরিমাণ টোল দিতে হবে তা এখনো নির্ধারণ করা হয়নি। কাজ শুরুর পর এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণে লাগবে প্রায় চার বছর। প্রকল্পে চায়না কমিউনিকেশনস কোম্পানি লিমিটেড ও চায়না রোড অ্যান্ড ব্রিজ করপোরেশনের কনসোর্টিয়াম ২ হাজার ৯৪ কোটি টাকা দেবে। বাংলাদেশ সরকার ১ হাজার ২০৯ কোটি টাকা দেবে।

সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি রওশন আরা মান্নান বলেন, এ বছর পদ্মা সেতু, মেট্রোরেল, কর্ণফুলীতে বঙ্গবন্ধু টানেল প্রকল্পের কাজ শেষ হবে বলে আমরা আশা করছি। কোনো প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য চুক্তি স্বাক্ষর একটি গুরুত্বপূর্ণ পর্যায়।

এনামুল হক এমপি বলেন, উন্নয়ন হতে হবে সমন্বিত এবং সময়মতো প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে হবে। ঢাকা-মাওয়া-ভাঙ্গা এক্সপ্রেসওয়েতে দুর্ঘটনা ঘটছে। এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণের আগে এ প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য দেখতে হবে জনভোগান্তি হয় কি না। প্রকল্প বাস্তবায়নের সময় জনভোগান্তি কমানোর জন্য উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে।
সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব মো. নজরুল ইসলাম বলেন, সড়ক ও জনপথ অধিদফতরের আওতায় দেশে চার হাজার কিলোমিটারের মহাসড়ক রয়েছে। এসব মহাসড়ক ধীরে ধীরে আধুনিক করা হবে এবং উন্নত করা হবে।

পিপিপি কর্তৃপক্ষের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) সুলতানা আফরোজ বলেন, দেশের উন্নয়ন ও অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রায় এটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। পাশাপাশি পিপিপি মডেলেও আমরা গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্প হাতে নিয়েছি। বেসরকারি বিনিয়োগ উৎসাহিত করে সরকারের সড়কখাতে গুরুত্বপূর্ণ একটা প্রকল্পের চুক্তি সই হলো। ঢাকা বাইপাস সড়ককে চার লেন এক্সপ্রেসওয়েতে উন্নীত করার প্রকল্পের মাঠপর্যায়ের কাজ শুরু হয়েছে। পিপিপি প্রকল্পে ব্যয় বাড়ার সম্ভাবনা খুবই কম। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই আমরা কাজ করি।

রামপুরা-আমুলিয়া-ডেমরা মহাসড়কটি পিপিপি ভিত্তিতে চার লেনে উন্নীতকরণের জন্য ২০১৫ সালে পিপিপি প্রস্তাবনা তৈরি করা হয়। প্রস্তাবটি যাচাই করে পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশিপ কর্তৃপক্ষ ২০১৫ সালের ১ নভেম্বর অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির নীতিগত অনুমোদনের জন্য পাঠানোর বিষয়ে অনাপত্তি দেয়। পিপিপি প্রকল্পটি ২০১৬ সালের ২৭ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি কর্তৃক নীতিগত অনুমোদিত হয়।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (10)
মুহিব আহমেদ ১০ জানুয়ারি, ২০২২, ৪:১৫ এএম says : 0
এই প্রকল্পের কারনে রামপুরা ব্রিজের গোড়ায় যে বাড়তি গাড়ির চাপ আসবে তার জন্য , আবার আরেকটা প্রকল্প নেয়া হবে, অনেকটা কর্ণফুলী টানেরলের মুখের যানজট নিরসনে নেয়া নতুন প্রকল্পের মত। এত কোটি টাকা খরচ করে সম্প্রতি রামপুরা খালের যে সংস্কার করা হয়েছে, সেটাও এই প্রকল্পের কারনে বৃথা যাবে।
Total Reply(0)
MD Babu Sor Kar ১০ জানুয়ারি, ২০২২, ৪:১৪ এএম says : 0
খবরটা শুনে সত্যি ভালো লাগলো। এই রোডে যে পরিমান গাড়ি বারছে প্রতিনিয়ত জেম লেগে থাকে।এই রোডটি খুবিই গুরুত্বপূর্ণ।
Total Reply(0)
Sarwar Zahan ১০ জানুয়ারি, ২০২২, ৪:১২ এএম says : 0
প্রাণঢালা অভিনন্দন এবং শুভ কামনা সবসময়।
Total Reply(0)
Md Omar Faruk ১০ জানুয়ারি, ২০২২, ৪:১৩ এএম says : 0
দ্রুত এই প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হোক
Total Reply(0)
Md. Year Ali Shikder ১০ জানুয়ারি, ২০২২, ৪:১৩ এএম says : 2
স্বাধীনতা থেকে সমৃদ্ধির পথে স্বাধীন বাংলাদেশের মহান স্থপতি সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু থেকে জয়তু মুকুট মনি মাননীয় মানবিক প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সকল ষড়যন্ত্র রুখে দিয়ে দূর্নীতি মুক্ত পারস্পরিক সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বন্ধনে, অপ্রতিরোধ্য গতিতে এগিয়ে চলছে দূর্বার সমৃদ্ধির অদম্য অগ্রযাত্রায় বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ আজ বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল ইনশাআল্লাহ, জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু জয় শেখ হাসিনা।
Total Reply(0)
Monir Tonmoy ১০ জানুয়ারি, ২০২২, ৪:১২ এএম says : 0
The country’s first-ever metro rail with an aim to provide a safe, fast, affordable and modern means of transportation for the city dwellers. The urban public transport service promises to significantly reduce congestion in Dhaka and prevent environmental pollution.
Total Reply(0)
মোঃ দুলাল হোসেন ১০ জানুয়ারি, ২০২২, ৪:১২ এএম says : 0
সকল ষড়যন্ত্র রুখে দিয়ে আমরা দুর্বার গতিতে এগিয়ে যাবো ইনশাল্লাহ। অবাক বিশ্ব তাকিয়ে দেখবে বাংলাকে নতুন রূপে। জয় হোক মানবতার জয় হোক শেখ হাসিনার।
Total Reply(0)
Kader Mahmud ১০ জানুয়ারি, ২০২২, ৪:১২ এএম says : 0
কক্সবাজার to ডিজিটাল আইল্যান্ড মহেশখালী একটি টানেলের অপেক্ষায় সম্ভাবনাময় কক্সবাজার পর্যটন
Total Reply(0)
ash ১০ জানুয়ারি, ২০২২, ৪:০০ এএম says : 0
ATO MANUSHER CHOTTO DESH E 6 LANE R NICHE KONO ROAD E KORA WCHITH NA
Total Reply(0)
Muhammad Zahidur Rahman ১২ জানুয়ারি, ২০২২, ১:২৫ পিএম says : 0
Good
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন