সোমবার, ১৬ মে ২০২২, ০২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৪ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

সম্পাদকীয়

নেত্রকোনায় হিমাগার চাই

চিঠিপত্র

আবুল হোসাইন | প্রকাশের সময় : ১২ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:০৫ এএম

বাংলাদেশের সর্ব উত্তরে অবস্থিত জেলাগুলোর একটি নেত্রকোনা। ঢাকা থেকে দূরবর্তী হওয়ায় এটি সর্বদাই অবহেলিত। বিশাল এ জেলাটিতে বিপুল পরিমাণ শাক সবজি উৎপাদিত হয়। যা জেলার অভ্যন্তরের চাহিদা মিটিয়ে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে যায়। কিন্তু হিমাগার না থাকায় নেত্রকোনায় উৎপাদিত সবজির ২৫ শতাংশই নষ্ট হচ্ছে। ২০১৮ সালের একটি প্রতিবেদন অনুসারে, নেত্রকোনায় প্রতিবছর সোয়া দুই লাখ মেট্রিক টনের মতো সবজি উৎপাদিত হয়। কিন্তু হিমাগার না থাকায় উৎপাদিত সবজির সংরক্ষণ করা যাচ্ছে না। ফলে কৃষকদের বাধ্য হয়ে কম দামে সবজি বিক্রি করতে হচ্ছে। ১০টি উপজেলা নিয়ে গঠিত নেত্রকোনা জেলার আয়তন ২ হাজার ৮১০ বর্গকিলোমিটার। কৃষিজমির পরিমাণ ৪ লাখ ৭৩ হাজার হেক্টর। জেলার ৯০ শতাংশ মানুষ কৃষির সঙ্গে জড়িত। জনসংখ্যা প্রায় ২৫ লাখ। গ্রামবাংলার সাধারণ কৃষকদের বাঁচিয়ে রাখতে ও খাদ্যনিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হলে সরকারের উচিত, অবিলম্বে নেত্রকোনায় কয়েকটি হিমাগার স্থাপন করা।
শিক্ষার্থী, কেন্দুয়া জয়হরি স্প্রাই সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন