বুধবার, ১৮ মে ২০২২, ০৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৬ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

সিলেটে বিএনপির সমাবেশ আজ : অবশেষে দাওয়াত জুটলো মেয়র আরিফের

সিলেট ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১২ জানুয়ারি, ২০২২, ১:৫২ পিএম

বিএনপি চেয়ারপার্সন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে প্রেরণের দাবীতে বিএনপি কেন্দ্র ঘোষিত সিলেট জেলা বিএনপির সমাবেশ আজ বুধবার বেলা ২টায় শহরতলীর টুকেরবাজার মাঠে। সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু। প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির। এছাড়াও সমাবেশে বিএনপির কেন্দ্রীয়, সিলেট বিভাগীয় ও স্থানীয় শীর্ষ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত থাকবেন। তবে সমাবেশে অবশেষে দ্ওায়াত পেয়েছেন মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। গতকাল দুপুরে জেলা বিএনপি’র আহ্বায়ক কামরুল হুদা জায়গীরদার তাকে দাওয়াত দেন। তবে- এতে ‘ব্যথিত’ আরিফ। এত পরে কেন দাওয়াত- এ নিয়ে প্রশ্ন তোলেন তিনি। এরপরও সমাবেশের আগের দিন দাওয়াত দেয়ায় অভিমান ভেঙেছেন তিনি। কেন্দ্রের নির্দেশে আজ সমাবেশ করছে বিএনপি। এই সমাবেশের আয়োজক সিলেট জেলা বিএনপি। কেন্দ্রের নির্দেশনা মোতাবেক মহানগরীর বাইরে টুকেরবাজার এলাকায় এই সমাবেশের আয়োজন করা হচ্ছে। দৃশ্যমান বিষয় হচ্ছে- মূলত সিলেটের এই সমাবেশের আয়োজন হচ্ছে খন্দকার আব্দুল মুক্তাদিরকে ঘিরে। সিলেট বিএনপি এখন দুই ধারায় বিভক্ত। কমিটি সহ বড় অংশ সহ একাংশের নেতা হচ্ছেন খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির। আর বঞ্চিত সহ অপর অংশের নেতা হচ্ছেন আরিফুল হক চৌধুরী। দু’জনই কেন্দ্রীয় নেতা। তাদের রাজনীতি সিলেটকে ঘিরে। দলীয় কর্মকাণ্ডে সম্পূর্ণ দায় দায়িত্ব নিচ্ছেন খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির। তার সঙ্গে জেলা ও মহানগরের নেতাদের রয়েছে ভালো সম্পর্ক। কর্মী থেকে শুরু করে নেতা পর্যন্ত সবার সঙ্গে সম্পর্ক থাকার কারণে এখন সিলেট বিএনপিকে এক হাতেই চালাচ্ছেন।

গত ৩০শে নভেম্বর সিলেটে বিএনপি’র বিভাগীয় সমাবেশের আয়োজন করা হয়েছিল। এই আয়োজনেও মূল নেতৃত্বে ছিলেন খন্দকার মুক্তাদির। পাল্টা হিসেবে গত ১৮ই ডিসেম্বর আরিফুল হক চৌধুরীর নেতৃত্বে সিলেট মুক্ত দিবসের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল। এতে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এসে যোগ দিয়েছিলেন। আজকের সমাবেশের আয়োজন করছে সিলেট জেলা বিএনপি। সিলেট বিএনপি’র নেতারা জানিয়েছেন- আজকের সমাবেশে সিলেটে অবস্থান করা সকল কেন্দ্রীয় নেতাদের পর্যায়ক্রমে দায়িত্ব দেওয়া হচ্ছিল। তবে- গতকাল মঙ্গলবার দুপুর পর্যন্ত মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী দাওয়াত পাননি। তার সঙ্গে আরেক কেন্দ্রীয় নেতা ডা. শাহরিয়ার হোসেন চৌধুরীও দাওয়াত পাননি। তারা জানান- বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর সোমবার রাতেই বিএনপি’র জেলা আহ্বায়ক কামরুল হুদা জায়গীরদার নিজে ফোন করে কেন্দ্রীয় সদস্য ডা. শাহরিয়ার হোসেন চৌধুরীকে দাওয়াত দেন। আর গতকাল দুপুরে দাওয়াত দেন মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীকে এবং সমাবেশে উপস্থিত থাকার জন্য অনুরোধ জানানো হয় তাকে। গতকাল বিকালে সিলেট জেলা বিএনপি’র আহ্বায়ক কামরুল হুদা জায়গীরদার বলেন,- ‘জেলা বিএনপি’র সিদ্বান্ত হচ্ছে; আমরা সিলেটে অবস্থান করা সব কেন্দ্রীয় নেতাকে দাওয়াত দেবো। তাদের বিশেষ করে আমি নিজেই দাওয়াত দিচ্ছি। সৌজন্যতার খাতিরে অন্য কাউকে দিয়ে দাওয়াত দিচ্ছি না। গতকাল দুপুরে মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীকে দাওয়াত দিয়েছি।’ তিনি জানান- ‘বিলম্ব দাওয়াত দেওয়ার কারণে একটু মনোক্ষুণ্ন্ন হয়েছেন তিনি। কিন্তু আমরা তো তার সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলার জন্য চেষ্টা করেছিলাম। তখন পাইনি। এদিকে, আজকের সমাবেশে সফল করার জন্য বিএনপি অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের সকল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন সিলেট জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কামরুল হুদা জায়গীরদার।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন