বুধবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২২, ০৫ মাঘ ১৪২৮, ১৫ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

বরিশালে দেশীয় প্রজাতির মাছ এবং শামুক সংরক্ষণ ও উন্নয়নে উদ্বুদ্ধকরণ সভা

বরিশাল ব্যুরো : | প্রকাশের সময় : ১৩ জানুয়ারি, ২০২২, ৯:২৩ পিএম

 বরিশালে দেশীয় প্রজাতির মাছ এবং শামুক সংরক্ষণ ও উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় উদ্ভুদ্ধকরণ সভায় দেশিয় প্রজাতির মাছ সংরক্ষণের প্রয়োজনীতার গুরুত্ব তুলে ধরে ছোট মাছের আশ্রয়কেন্দ্র হারিয়ে যাবার কথা বলা হয়েছে। সভায় আমিষের চাহিদা শতভাগ পূরণ করতে ছোট মাছের সংরক্ষণে গুরুত্বারোপ করা হরা হয়েছে। অপ্রচলিত মৎস্য সম্পদ শামুক, ঝিনুক এবং মুক্তা চাষের গুরুত্ব আরোপ করে সভায় জানানো হয় মাছ চাষের পাশাপাশি খামারিদের মুক্তা চাষ করার সুযোগ রয়েছে। এ জন্য সরকারের পক্ষ থেকে সহযোগিতা করা হবে বলে জানানো হয়।

গতকাল বৃহস্পতিবার নগরীর কাশিপুর মৎস্য বীজ উৎপাদন খামারে এ উদ্বুদ্ধকরণ সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন বরিশালের বিভাগীয় কমিশনার মো. আমিন উল আহসান। জেলা প্রশাসক মো. জসীম উদ্দীন হায়দারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে মৎস্য অধিদফতরের পরিচালক শামীম আরা বেগম, বরিশাল বিভাগীয় মৎস্য দফতরের উপ পরিচালক মো. আনিছুর রহমান তালুকদার, দেশীয় প্রজাতির মাছ এবং শামুক সংরক্ষণ ও উন্নয়ন প্রকল্প পরিচালক আশিকুর রহমান বক্তব্য করেন।
সভায় প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে মৎস্য সংরক্ষণের পাশাপাশি মৎস্যজীবীদের বিকল্প কর্মসংস্থানের কথা বলেন। মৎসজীবীদের কাজের ধরন পরিবর্তনের প্রয়োজন বলে তিনি তুলে ধরেন। মাছ ধরার পাশাপাশি অন্য কাজের আগ্রহ থাকলে নিষেধাজ্ঞাকালে মৎসজীবীদের জীবনযাপনে সমস্যা হবে না বলে তিনি ধারণা করেন।
দেশিয় প্রজাতির মাছ সংরক্ষণ প্রকল্পের আওতায় দেশের ৩ বিভাগে ৪৯ উপজেলায় এ প্রকল্প চলমান রয়েছে। তার মধ্যে বরিশাল বিভাগের ৪টি জেলা এ প্রকল্পের অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। ২০৭ কোটি টাকা ব্যয়ে এ প্রকল্প আগামী ২০২৪ সাল নাগাদ চলমান থাকবে। এ প্রকল্পের আওতায় ১৫ হাজার জেলেদের প্রশিক্ষণ দিয়ে মৎস্য চাষে আগ্রহী করে তোলা হবে। ৩০ হাজার জেলেদের বিকল্প পেশায় নিয়োজিত করার পরিকল্পনা রয়েছে। এ প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে আগের চেয়ে ২০ ভাগ বেশি মৎস্য চাষ বৃদ্ধি পাবে বলে জানান প্রকল্প পরিচালক মো. আশিকুর রহমান । দেশিয় প্রজাতির মৎস্য উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য বিষ দিয়ে মৎস্য নিধন তথা কৃষি ক্ষেত্রে কীটনাশকের ব্যবহার সীমিত করণের ওপর গুরুত্বারোপ করেন বরিশাল বিভাগীয় কমিশনার মো. আমিন উল আহসান।
সভা শেষে ইলিশ সম্পদ উন্নয়ন ও ব্যবস্থাপনা প্রকল্পের আওতায় উপজেলা মৎস্য দফতর, বরিশাল সদরের আয়োজনে ১০ জন জেলের মধ্যে বিকল্প কর্মসংস্থান হিসেবে বকনা বাছুর বিতরণ করেন বরিশাল বিভাগীয় কমিশনার মো. আমিন উল আহসান।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন