বুধবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২২, ০৫ মাঘ ১৪২৮, ১৫ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

সারা বাংলার খবর

প্রচারণার শেষ দিনে আইভী-তৈমুরের ব্যাপক শো ডাউন

নারায়ণগঞ্জ জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৪ জানুয়ারি, ২০২২, ৮:০৩ পিএম

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে প্রচারণার শেষ দিন গতকাল শুক্রবার আওয়ামীলীগ প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী ও স্বতন্ত্র প্রার্থী এডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার ব্যাপক শো ডাউন করেছেন। আইভী নারায়ণগঞ্জ শহরের চাষাঢ়া এলাকা থেকে দুই নাম্বার রেল গেইট পর্যন্ত পথসভায় অংশ নেন। পথ সভাটি ২নং রেল গেইট এলাকায় জেলা আওয়ামীলীগের কার্যালয়ের সামনে বিশাল জনসভায় পরিনত হয়। অপরদিকে স্বতন্ত্র প্রার্থী তৈমুর সিটি কর্পোরেশনের বন্দর এলাকায় দিনব্যাপী গণসংযোগ করেন। তিনি গণসংযোগ শেষে গণমাধ্যমকর্মীদের জানান, সরকার দলীয় প্রার্থী নির্বাচনকে প্রভাবিত করতে সিটি কর্পোরেশনের বাইরে থেকে বহিরাগত নিয়ে আসছেন। বহিরাগতরা নির্বাচনে সহিংসতা করতে পাওে বলেও আশংকা প্রকাশ করেন তিনি। তৈমুর আলম বলেন, আমি সেসব ভোট কেন্দ্রে ভাল ভোট পাব সেসব কেন্দ্র থেকে সিসি ক্যামেরা সরিয়ে নেয়ার চেষ্টা করছে। তিনি প্রশাসনকে দোষারোপ করে বলেন প্রশাসন নৌকার পক্ষে কাজ করছেন। ঢাকা থেকে আসা কেন্দ্রীয় নেতারা এখন নারায়ণগঞ্জে ডিসি ও এসপি অফিসে দৌড়াচ্ছেন। এটা কিসের ইংগিত বহন করছে।
অপরদিকে ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী পথসভায় তার বক্তব্যে বলেন আমি আপনাদেও কাছে শান্তির বার্তা নিয়ে এসেছি। সন্ত্রাস ও মাদক মুক্ত নারায়ণগঞ্জ গড়ে তুলতে আবারো তাকে মেয়র নির্বাচন করার জন্য নৌকায় ভোট প্রার্থণা করেন তিনি।
আইভীর পথসভায় স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতাকর্মী ছাড়াও জেলার অন্যান্য উপজেলা থেকেও বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী এসে যোগ দেন। কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের উল্লেখযোগ্য সংখ্যক নেতৃবৃন্দও এসময় সথসভায় অংশ নেন।
আইভী তার বক্তব্যে বলেন, নির্বাচনে সহিংসতা হলে সবচেয়ে ক্ষতি হবে আমার। কারণ সহিংসতা হলে আমার ভোটাররা আমাকে ভোট দিতে আসতে পারবে না। তবে নির্বাচনে বির্শঙ্খল করতে প্রতিপক্ষ সহিংসতা করার পরিকল্প না করছেন।
তিনি জানান, সুষ্ঠু নির্বাচন হলে তিনলক্ষাধিক ভোটের ব্যাবধানে তিনি তৃতীয়বারের মতো মেয়র নির্বাচিত হবেন। পুরো সিটি করপোরেশনে নৌকার গণজোয়ার তৈরি হয়েছে। নৌকাকে আটকে রাখার সাধ্য কারো নেই।
আইভী সমর্থকরাও রয়েছেন বেশ ফুরফুরে মেজাজে তারা বলছেন আইভীই হচ্ছেন নাসিকের মেয়র এটা প্রায় নিশ্চিত কারণ আইভী নাসিকে যে উন্নয়ন করছেন তা বিগত সময়ের মধ্যে রেকর্ড সুতরায় তার জয় সুনিশ্চিত।
তৈমুর সমর্থকরা বলছেন, নাসিকের নাগরিকরা বিগত সময়ে আইভীর কার্যক্রম দেখেছেন সবাই পরিবর্তন চাইছেন। তৈমুর একজন পরিক্ষিত নেতা তিনি নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের জন্য উপযুক্ত ব্যক্তি।
নতুন কাউকে সুযোগ দেয়ার মাধ্যমে পরিবর্তন চাইছে নাসিকের জনগণ তাই এবারের নির্বাচনে তৈমুর আলমই হাসবেন শেষে হাসি।
উভয় শিবিরেই জয়ের ব্যাপরে আশাবাদী হলেও আগামীকাল রবিবাই ফলাফল ভোটের প্রমাণ করবে কে সেরা আইভী নাকি তৈমুর।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন