মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই ২০২২, ২১ আষাঢ় ১৪২৯, ০৫ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

বিদেশি সহায়তা ছাড়াই তালেবানের প্রথম বাজেট

রিজার্ভ মুক্তির আবেদন জাতিসংঘের

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৫ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:০০ এএম

গত আগস্টে আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখলের পর কোনো বিদেশী সহায়তা ছাড়াই প্রথমবারের মতো বাজেট দিল তালেবান। গত বুধবার এই বাজেটটির অনুমোদন দেয়া হয়। বৃহস্পতিবার এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তা সংস্থা এএফপি। এদিকে, জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস বৃহস্পতিবার আফগানদের জীবন ও অর্থনীতি বাঁচাতে আফগানিস্তানে অর্থের ব্যবহার রোধ করার নিয়ম স্থগিত করতে এবং হিমায়িত বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভের শর্তসাপেক্ষে মুক্তির জন্য আবেদন করেছেন।

যদিও আফগানিস্তানের ৪০ শতাংশ জিডিপিই আসে আন্তর্জাতিক সাহায্য থেকে। সাবেক মার্কিন-সমর্থিত সরকারের নিয়ন্ত্রণে থাকাকালীন বাজেটের ৮০ শতাংশই ছিল আন্তর্জাতিক সহায়তা। গত আগস্টে তালেবান আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখলের পর পশ্চিমা দেশগুলো বিলিয়ন ডলারের সাহায্য বন্ধ করে দেয়। জাতিসংঘের পক্ষ থেকে তখন বলা হয়, আফগানিস্তানের জন্য একটি ‘অভূতপূর্ব আর্থিক ধাক্কা’। ৫৩ দশমিক ৯ বিলিয়ন আফগান মুদ্রার এ বাজেট গত বুধবার অনুমোদন দেয়া হয়। বাজেটের আওতাকাল ২০২২ সালের প্রথম ত্রৈমাসিক। অনুমোদন দেয়া বাজেটটি প্রায় সম্পূর্ণরূপে সরকারি প্রতিষ্ঠানে অর্থায়নের জন্য নিবেদিত। বাজেটের প্রায় ৪ দশমিক ৭ বিলিয়ন আফগানি ব্যয় করা হবে পরিবহন অবকাঠামোসহ উন্নয়ন প্রকল্পে।

এ বিষয়ে তালেবান অর্থ মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আহমদ ওয়ালি হকমাল বলেছেন, গত দুই দশকে প্রথমবারের মতো আমরা এমন একটি বাজেট তৈরি করেছি যা বিদেশি সাহায্যের ওপর নির্ভরশীল নয়। এটি আমাদের জন্য একটি খুব বড় অর্জন। তিনি বলেন, রাষ্ট্রীয় কর্মীরা যাদের অনেকেই কয়েক মাস ধরে বেতন পাননি, তারা জানুয়ারির শেষে বেতন পেতে শুরু করবেন। নারী কর্মীদেরকেও বেতন দেয়া হবে। তালেবান সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়, পরিবহন অবকাঠামোসহ উন্নয়ন প্রকল্পে প্রায় ৪৭০ কোটি আফগানি ব্যয় করা হবে। এ প্রসঙ্গে হকমাল বলেন, এটি সামান্য পরিমাণ কিন্তু আমরা এখন এটিই করতে পারি। ট্যাক্স, বাণিজ্য এবং খনির রাজস্বের মতো নিজস্ব সম্পদ বাজেটের অর্থ আদায় হবে হবে বলে জানিয়েছে তালেবান। আগামী মার্চ মাসে তাদের প্রথম বার্ষিক বাজেট ঘোষণা করবে বলে জানিয়েছে আফগানিস্তানের অর্থ মন্ত্রণালয়। আফগানিস্তানের সৌর পঞ্জিকার সঙ্গে মিল রেখে অর্থবছরকে বদল করার পরিকল্পনা করেছে তালেবান সরকার।

এদিকে বৃহস্পতিবার জাতিসংঘের মহাসচিব গুতেরেস নিউইয়র্কে সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘সরকারি খাতের কর্মীদের বেতন প্রদানের জন্য এবং আফগান প্রতিষ্ঠানগুলিকে স্বাস্থ্যসেবা, শিক্ষা এবং অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ পরিষেবা প্রদানে সহায়তা করার জন্য আন্তর্জাতিক অর্থায়নের অনুমতি দেয়া উচিত।’ আফগান কেন্দ্রীয় ব্যাংকের রিজার্ভের প্রায় ৯৫০ কোটি ডলার দেশের বাইরে, প্রধানত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অবরুদ্ধ রয়েছে এবং গত আগস্টে তালেবান ক্ষমতায় আসার পর থেকেই পূর্ববর্তী সরকারকে দেয়া আন্তর্জাতিক সমর্থন বন্ধ হয়ে গেছে।

গুতেরেস বলেছেন, ‘আফগানিস্তানের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কার্যকারিতা অবশ্যই সংরক্ষণ এবং সহায়তা করতে হবে এবং আফগান বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভের শর্তসাপেক্ষে মুক্তির জন্য একটি পথ চিহ্নিত করতে হবে।’ তিনি বলেন, ‘অর্থনীতিতে দ্রুত তারল্য প্রবেশ করাতে আমাদের আরও বেশি কিছু করতে হবে এবং এমন একটি মন্দা এড়াতে হবে যা লক্ষাধিক মানুষের জন্য দারিদ্র্য,ক্ষুধা ও নিঃস্ব হওয়ার দিকে পরিচালিত করবে।’ জাতিসংঘের সাহায্য প্রধান মার্টিন গ্রিফিথস শুক্রবার মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেনের সাথে কার্যত দেখা করার কথা রয়েছে। গুতেরেস বলেছিলেন যে, তারা ‘আফগান অর্থনীতিতে তহবিলের কার্যকর প্রবেশে অনুমতি দেয়ার জন্য’ প্রক্রিয়া তৈরির বিষয়ে আলোচনা করবেন যা ‘আফগানিস্তানের আর্থিক ব্যবস্থা স্থানীয় মুদ্রায় কাজ করতে সক্ষম হওয়ার শর্ত তৈরি করবে।’

ডিসেম্বরে, আফগানিস্তানে পুষ্টি ও স্বাস্থ্য সহায়তার জন্য বিশ্বব্যাংক-প্রশাসিত আফগান পুনর্গঠন ট্রাস্ট ফান্ডের দাতারা বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচি (ডব্লিউএফপি) এবং জাতিসংঘের শিশু সংস্থা ইউনিসেফকে ২৮ কোটি ডলার হস্তান্তর করতে সম্মত হয়েছে। ‘আমি আশা করি অবশিষ্ট সম্পদ ১২০ কোটি ডলারের বেশি - আফগানিস্তানের জনগণকে শীত থেকে বাঁচতে সাহায্য করার জন্য উপলব্ধ হবে,’ গুতেরেস বলেছেন। সূত্র : ট্রিবিউন, এএফপি।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (2)
মোহাম্মদ দলিলুর রহমান ১৫ জানুয়ারি, ২০২২, ৪:৪২ এএম says : 0
আফগানিস্তানের খনিজ সম্পদ অনুসন্ধান করতে চায়না কে অনুমতি প্রদান করা আফগানিস্তান সরকারের উচিত,খনিজ সম্পদ পাওয়া গেলে অভাব ইনসআললাহ থাকবে না,আফগানিস্তানে বহু খনিজ সম্পদ আছে,যেমন সোনার খনি এবং পেট্রল ও ডিজেলের খনি আরো আছে পাহাড়ে বিভিন্ন পাথর এর খনি ঐ সব পাথর দিয়ে বিভিন্ন ধবো বানানে যাবে ,এবং গ্যাস আছে যাহা দিয়ে পারমাণবিক বোমা বানাতে পারবে পাহাড় গুলিতে বিভিন্ন রাসায়নিক পাউডার আছে যাহা দিয়ে কেমিক্যাল তৈরি করা যাবে।
Total Reply(0)
Mostafa kamal ১৫ জানুয়ারি, ২০২২, ৯:১২ এএম says : 0
الحمدلله
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Google Apps