শুক্রবার, ২৭ মে ২০২২, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৫ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

ইউক্রেনে অস্ত্র পাঠাচ্ছে যুক্তরাজ্য

ইউক্রেন-রাশিয়া বিতর্কে মধ্যস্থতার চেষ্টায় জার্মানি

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৯ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:০৩ এএম

ইউক্রেন সীমান্তে প্রায় এক লাখ সেনা মোতায়েন করে রেখেছে প্রতিবেশি দেশ রাশিয়া। যেকোনো মুহ‚র্তে রুশ সেনারা দেশটিতে আক্রমণ করতে পারে বলে আশঙ্কা রয়েছে। এই পরিস্থিতিতে সম্ভাব্য হামলা প্রতিরোধে আত্মরক্ষার জন্য ইউক্রেনে অস্ত্র পাঠানোর কথা জানিয়েছে যুক্তরাজ্য। যুক্তরাজ্যের প্রতিরক্ষামন্ত্রী বেন ওয়ালেসের বরাত দিয়ে মঙ্গলবার এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি। ওয়ালেস বলেছেন, ইউক্রেনে স্বল্পপাল্লার অ্যান্টি-ট্যাংক মিসাইল পাঠাবে তার দেশ। এদিকে ইউক্রেনে ব্রিটিশ সেনা পাঠানোরও কথা জানিয়েছেন যুক্তরাজ্যের প্রতিরক্ষামন্ত্রী। তার ভাষায়, প্রশিক্ষণ দেওয়ার জন্য ইউক্রেনে ব্রিটিশ সেনাদের ছোট একটি দল পাঠানো হবে। ব্রিটিশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী আরও জানিয়েছেন, রাশিয়ার সেনারা ইউক্রেনে হামলা করতে পারে বলে যে গুঞ্জন রয়েছে তাতে উদ্বিগ্ন হওয়ার মতো যথেষ্ট বৈধ ও বাস্তব কারণ রয়েছে। রাশিয়া অবশ্য বারবারই ইউক্রেনে যেকোনো ধরনের হামলার পরিকল্পনা নাকচ করে দিয়ে এসেছে। মস্কোর দাবি, পশ্চিমা দেশগুলোই পূর্ব ইউরোপে উত্তেজনা সৃষ্টি করছে। ২০১৪ সালে ক্রিমিয়ায় রুশ হামলা ও ভ‚খÐটি রাশিয়ার সঙ্গে যুক্ত করার পর ইউক্রেনের নৌবাহিনী পুনর্গঠনে সহযোগিতার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল যুক্তরাজ্য। এরপর ইউক্রেনের সামরিক বাহিনীকে প্রশিক্ষণ দিতে ২০১৫ সাল থেকে বহুসংখ্যক ব্রিটিশ সেনা দেশটিতে অবস্থান করছেন। বিবিসি বলছে, যুক্তরাজ্য থেকে সমরাস্ত্রের প্রথম চালান সোমবার ইউক্রেনে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। যদিও ঠিক কোন ধরনের সমরাস্ত্র পাঠানো হয়েছে, সেটি খোলসা করেননি ব্রিটিশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী। এদিকে, সোমবার দিনভর ইউক্রেনে একাধিক বৈঠক করেছেন জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী। মঙ্গলবার তার রাশিয়ায় বৈঠকে বসার কথা। জার্মানির নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রী গ্রিন পার্টির সদস্য আনালেনা বেয়ারবক। নির্বাচিত হওয়ার পর এই প্রথম একইসঙ্গে ইউক্রেন এবং রাশিয়া সফরে গেলেন তিনি। যাওয়ার আগে সাংবাদিকদের তিনি জানিয়েছেন, দুই দেশের মধ্যে মধ্যস্থতার সমস্ত চেষ্টা চালাবে জার্মানি। যুদ্ধ আটকানোর জন্য যা করা দরকার, জার্মানি তা করবে। একই সঙ্গে রাশিয়ার প্রতি বার্তাও দিয়েছেন তিনি। জানিয়েছেন, আলোচনার মাধ্যমেই রাশিয়াকে সমাধানসূত্রে পৌঁছাতে হবে। আগ্রাসী মনোভাব দেখালে তার ফল ভোগ করতে হবে। সোমবার ইউক্রেনে একাধিক বৈঠক করেছেন বেয়ারবক। আলোচনা করেছেন অর্গানাইজেশন অফ সিকিউরিটি অ্যান্ড কোঅপারেশন ইন ইউরোপের (ওএসসিই) প্রতিনিধিদের সঙ্গে। এছাড়াও ইউক্রেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী দিমিত্রো কুলেবার সঙ্গে দীর্ঘ বৈঠক করেছেন বেয়ারবক। প্রধানমন্ত্রী ভোলোদিমির জেলেনস্কির সঙ্গেও তার বৈঠক হতে পারে। কুলেবার সঙ্গে বৈঠকে একাধিক বিষয়ে কথা হয়েছে বেয়ারবকের। বৈঠক শেষে সাংবাদিক বৈঠকে কুলেবা জানিয়েছেন, জার্মানি নতুন বিতর্কে মধ্যস্থতার বার্তা দিয়েছে। রাশিয়া যাতে ইউক্রেনে আক্রমণ চালাতে না পারে, সে দিকেও নজর রাখার কথা বলেছেন বেয়ারবক। একইসঙ্গে রাশিয়া থেকে জার্মানি পর্যন্ত গ্যাস পাইপলাইন নর্ডস্ট্রিম ২ নিয়েও বেয়ারবককে ধন্যবাদ দিয়েছেন কুলেবা। আঙ্গেলা ম্যার্কেলের সময় রাশিয়ার সঙ্গে জার্মানির এ বিষয়ে চুক্তি হলেও গ্রিন পার্টি বরাবরই এর বিরোধী। বিরোধের জন্যই বেয়ারবককে ধন্যবাদ দিয়েছেন কুলেবা। বস্তুত, এই পাইপলাইন ইউক্রেনের উপর দিয়ে যাওয়ার কথা। এবং তা নিয়ে রাশিয়ার সঙ্গে ইউক্রেনের তীব্র বিতর্ক আছে। এছাড়াও রাশিয়া প্রশ্নে এবং পূর্ব ইউক্রেনে আগ্রাসনের প্রশ্নে ফ্রান্সের সহযোগিতার বিষয়টিও জার্মানি দেখবে বলে ইউক্রেনকে আশ্বাস দিয়েছেন বেয়ারবক। বেয়ারবক জানিয়েছেন, হেলসিঙ্কি চুক্তি গত ৯০ বছর ইউরোপকে বড়সড় যুদ্ধের হাত থেকে রক্ষা করেছে। সেই চুক্তি যাতে বজায় রাখা যায়, তা সকলকে দেখতে হবে। রাশিয়ার কোনোরকম আগ্রাসন বরদাস্ত করা হবে না। মঙ্গলবার এ বিষয়ে রাশিয়ায় একাধিক বৈঠক করার কথা বেয়ারবকের। বিবিসি, রয়টার্স, ডিপিএ, এএফপি।

 

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন