বুধবার, ২৫ মে ২০২২, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৩ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

দাম্পত্য কলহে খুন নায়িকা শিমু

স্বামী নোবেল ও তার বন্ধু ফরহাদ গ্রেফতার : ৩ দিনের রিমান্ডে

বিশেষ সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৯ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:০০ এএম

দায় স্বীকার স্বামীর : এসপি ঢাকা
বিশেষ সংবাদদাতা
পারিবারিক ও দাম্পত্য কলহের জেরে চিত্রনায়িকা রাইমা ইসলাম শিমুকে হত্যা করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে এ হত্যার দায় স্বীকার করেছে তার স্বামী সাখাওয়াত আলী নোবেল। শিমু হত্যাকাণ্ডে নোবেল ও নোবেলের বাল্যবন্ধু এস এম ওয়াই আব্দুল্লাহ ফরহাদের সংশ্লিষ্টতা পেয়েছে পুলিশ। পরিকল্পিতভাবে হত্যার পর শিমুর লাশ বস্তায় ভরে কেরানীগঞ্জের হজরতপুর ব্রিজের কাছে আলিয়াপুর এলাকায় রাস্তার পাশে ঝোপের ভেতর ফেলে রাখা হয়। গত রোববার সকাল সাতটা থেকে আটটার মধ্যে যেকোনো সময় শিমুকে হত্যা করা হয়। স্বামী ও দুই সন্তানকে নিয়ে গ্রিনরোড এলাকার বাসায় থাকতেন ৪০ বছর বয়সি শিমু।

পুলিশ হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে স্বামী সাখাওয়াত আলী নোবেল ও নোবেলের বাল্যবন্ধু এস এম ওয়াই আব্দুল্লাহ ফরহাদকে গ্রেফতার করেছে। হত্যাকাণ্ডের পর যে গাড়িতে করে নিয়ে গিয়ে লাশ ফেলে রেখে আসা হয়, সেই গাড়িটি জব্দ ও অন্যান্য আলামত সংগ্রহ করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় নোবেল ও ফরহাদের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার কেরানীগঞ্জ মডেল থানায় শিমুর ভাই হারুনুর রশীদ বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। দুজনের নাম উল্লেখসহ এ মামলায় অজ্ঞাতনামা বেশ কয়েকজনকে আসামি করা হয়েছে। পুলিশ সূত্রে এ সব তথ্য জানা গেছে। ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার মারুফ হোসেন সরদার বলেন, গত সোমবার দুপুরে কেরানীগঞ্জের হজরতপুর ব্রিজের কাছে আলিয়াপুর এলাকায় রাস্তার পাশে ঝোপের ভেতর থেকে শিমুর বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করা হয়। ৪০ বছর বয়সি এই অভিনেত্রী সপরিবারে ঢাকার কলাবাগান থানাধীন গ্রিন রোড এলাকায় বসবাস করতেন। লাশটি শনাক্ত করার পরপরই এ হত্যার রহস্য উদ্ঘাটন করার জন্য পুলিশ ব্যাপক তৎপরতা শুরু করে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে গুরুত্বপূর্ণ আলামত সংগ্রহ করে। তাৎক্ষণিকভাবে পুলিশ ভিকটিম শিমুর বাসায় যান এবং তথ্য প্রমাণ সংগ্রহ করা শুরু করেন।

তিনি আরো বলেন, পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হলেও তারা (খুনি) কিছু চিহ্ন রেখে যায়। আমরা তাৎক্ষণিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ আলমতগুলো জব্দ করি এবং জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ভিকটিম চিত্রনায়িকা শিমুর স্বামী খন্দকার শাখাওয়াত আলীম নোবেল (৪৮) ও তার বাল্যবন্ধু এস এম ওয়াই আব্দুল্লাহ ফরহাদকে (৪৭) আটক করা হয়। রাতেই আটক দু’জনকে কেরানীগঞ্জ মডেল থানায় নিয়ে আসা হয়। সেখানে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে এই হত্যাকাণ্ডে তাদের সংশ্লিষ্টতার তথ্য পাওয়া যায়।

জিজ্ঞাসাবাদের বরাত দিয়ে পুলিশ সুপার জানান, পারিবারিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে স্বামীর সঙ্গে দাম্পত্য কলহ ছিল শিমুর। দাম্পত্য কলহের জেরে গত ১৬ জানুয়ারি সকাল ৭-৮টার মধ্যে যেকোনো সময় খুন হন। পরে লাশটি যে গাড়িতে করে নিয়ে গিয়ে সেখানে ফেলে রেখে আসা হয়, আমরা ইতোমধ্যে সেই গাড়িটি জব্দ করে থানায় নিয়েছি এবং অন্যান্য আলামত সংগ্রহ করেছি।

কেরানীগঞ্জ মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) কাজি রমজানুল হকন বলেন, শিমুর লাশ সোমবার সকালে হযরতপুর ইউনিয়নের আলিপুর নামক স্থানে একটি ব্রিজের নিচে থেকে বস্তাবন্দি অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। লাশের গলায় একটি দাগও রয়েছে। লাশ উদ্ধার করে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য রাখা হয়েছে। শিমু নিখোঁজ হওয়ার এ বিষয়ে কলাবাগান থানায় একটি জিডি হয়েছিল।

গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে মিটফোর্ড হাসপাতালের মর্গে লাশের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন করেন ফরেনসিক বিভাগের চিকিৎসকরা। ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ডা. সোহেল মাহমুদ জানান, মৃত ওই নারীর গলায় দাগ দেখা গেছে। ধারণা করা হচ্ছে রশি অথবা এই জাতীয় কিছু দিয়ে পেঁচিয়ে তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। তার শরীর থেকে ভিসেরা সংগ্রহ করা হয়েছে। এছাড়া মৃত্যুর আগে ধর্ষিত হয়েছে কিনা ডিএনএ নমুনাও সংগ্রহ করা হয়েছে।
পিবিআইয়ের ঢাকা জেলা ইউনিটের এসপি মোহাম্মদ খোরশেদ আলম ইনকিলাবকে বলেন, সোমবার সকালে দিকে কেরানীগঞ্জের হযরতপুর ব্রিজের কাছে আলিয়াপুর এলাকায় রাস্তার পাশ থেকে শিমুর বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করে থানা পুলিশ। অজ্ঞাত হিসেবে লাশ উদ্ধারের পর পরিচয় শনাক্তের চেষ্টার জন্য পিবিআইকে খবর দেয়া হলে পিবিআইয়ের কর্মকর্তারা লাশের ফিঙ্গারপ্রিন্ট নেন। ফিঙ্গারপ্রিন্ট নেয়ার পর তার নাম-পরিচয়, বয়স ও বাসার ঠিকানা শনাক্ত করে পিবিআই।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ১৯৯৮ সালে বড় পর্দায় অভিষেক ঘটে বরিশালের মেয়ে রাইমা ইসলাম শিমুর। তার প্রথম সিনেমা কাজী হায়াৎ পরিচালিত ‘বর্তমান’। যেখানে তিনি অভিনয় করেন তখনকার জনপ্রিয় তারকা মান্না, মৌসুমী, ডিপজল প্রমুখের সঙ্গে। এরপর ছয় বছরে একে একে অভিনয় করেছেন ২৩টিরও বেশি সিনেমায়। তবে সবশেষ তাকে দেখা গেছে ২০০৪ সালে মুক্তি পাওয়া ‘জামাই শ্বশুর’ সিনেমায়। ফলে এই সময়ের দর্শকদের কাছে তিনি ততটা পরিচিত নন। তবে গত কয়েক বছর ধরে শিমু নাটকের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। অভিনয় করেছেন প্রায় ৫০টি নাটকে। সাম্প্রতিক সময়ে আলোচিত নাটক ‘ফ্যামিলি ক্রাইসিস’-এও অভিনয় করেছেন তিনি। পাশাপাশি প্রযোজক হিসেবেও কাজ করেছেন তিনি। তার নিজের প্রোডাকশন হাউজ ছিল। মাঝে মধ্যে পরিচালনাও করতেন এই নায়িকা।

বন্ধুসহ স্বামী নোবেল ৩ দিনের রিমান্ডে : শিমু হত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় তার স্বামী নোবেল ও নোবেলের বন্ধু আব্দুল্লাহ ফরহাদের তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। গতকাল শুনানি শেষে সন্ধ্যায় ঢাকার জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট-২ এর বিচারক রাবেয়া বেগমের আদালত এই রিমান্ডের আদেশ দেন। এর আগে কেরানীগঞ্জ মডেল থানার মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই চুন্নু মিয়া আসামিদের আদালতে হাজির করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দশ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন। তবে এদিন আসামিপক্ষের কোনো আইনজীবী ছিল না।
পুলিশের বক্তব্য মানতে নারাজ শিমুর বোন : অভিনেত্রী রাইমা ইসলাম শিমুকে হত্যা করার অভিযোগে তার স্বামী নোবেলকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। একই সঙ্গে নোবেলের বন্ধু ফরহাদকেও গ্রেফতার করা হয়েছে। এ দু’জনকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের পর পুলিশ বলছে, শিমুকে হত্যা করেছেন তার স্বামী নোবেল। তবে এখনই পুলিশের এ বক্তব্য মানতে রাজি নন শিমুর বোন ফাতিমা নিশা। তিনি শিমুর স্বামীর সঙ্গে কথা বলে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন বলে জানিয়েছেন।

পুলিশ বলছে, নোবেল তার স্ত্রীকে হত্যা করেছে, এ বিষয়ে কী বলবেন? এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এ বিষয়ে আমি এখন কিছু বলতে চাচ্ছি না। পুলিশকে কোন পরিপ্রেক্ষিতে নোবেল একথা বলেছেন তা পুলিশ জানে। হয়তো পুলিশের কাছে তথ্যপ্রমাণও আছে। তবে আমি আমার বোনের স্বামীর সঙ্গে কথা না বলা পর্যন্ত এ বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নিতে চাচ্ছি না। আমি আমার বোনের স্বামীর সঙ্গে কথা বলতে চাই।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (5)
রোদেলা ১৯ জানুয়ারি, ২০২২, ৩:৩৮ এএম says : 0
অপরাধী যে-ই হোক না কেন তার কঠোর বিচার চাই
Total Reply(0)
Joynal Abdine ১৯ জানুয়ারি, ২০২২, ৪:১৩ এএম says : 0
দাম্পত্য জীবনে অসুখী হলে বিচ্ছেদ করলে ভালো হতো? হত্যা করে মাঝে দুইটা বাচ্চা এতিমও তাদের জীবন অন্ধকার হ'য়ে গেলো। মৃত্যু সব সমস্যার সমাধান নয়
Total Reply(0)
S A Shahadat ১৯ জানুয়ারি, ২০২২, ৪:১৩ এএম says : 0
কঠোর শাস্তি দেওয়া দরকার
Total Reply(0)
Razib Hasan ১৯ জানুয়ারি, ২০২২, ৪:১৪ এএম says : 0
দুঃখজনক ঘটনা। দাম্পত্য জীবনে বনিবনা না হলে মিউচুয়াল সেপারেশনে যাওয়া উচিৎ। খুনোখুনি করে সন্তানসহ এখন সবার লাইফ বরবাদ
Total Reply(0)
Khairul Islam Jibon ১৯ জানুয়ারি, ২০২২, ৪:১৫ এএম says : 0
আহারে; ব্যক্তিগত জীবনে মানুষ কত অসহায়, কত দুংখী
Total Reply(0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন