শুক্রবার, ২৭ মে ২০২২, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৫ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

৯০ টন সমরাস্ত্র পাঠাল যুক্তরাষ্ট্র

ইউক্রেন থেকে মার্কিন ক‚টনীতিক পরিবারগুলোকে সরে যাওয়ার নির্দেশ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৪ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:০৩ এএম

রাশিয়ার সম্ভাব্য আক্রমণের ভয়ে ইউক্রেন থেকে মার্কিন ক‚টনীতিকদের পরিবার ও দূতাবাস কর্মীদের সরে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। সোমবারের আগেই এসব ক‚টনীতিক পরিবারগুলোকে ইউক্রেন থেকে চলে যেতে বলা হয়েছে। শনিবার এমন সংবাদ প্রকাশ করেছে আনাদোলু এজেন্সি। শনিবার মার্কিন কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে ফক্স নিউজ বলেছে, মার্কিন নাগরিকদেরও ইউক্রেন ছাড়তে বলছে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। তাদের আগামী সপ্তাহের মধ্যেই বাণিজ্যিক ফ্লাইটের মাধ্যমে ইউক্রেন ছাড়তে বলা হচ্ছে। কারণ, এখনো ইউক্রেনে বাণিজ্যিক ফ্লাইট চালু আছে। যদিও ফক্স নিউজের ওই প্রতিবেদনের বিষয়ে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এখনো কোনো অফিসিয়াল বিবৃতি দেয়নি। গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনের বিষয়ে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে আনাদোলু এজেন্সির পক্ষ প্রশ্ন করা হলে তারা বলেছে, আমরা এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করব না। এ বিষয়ে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক মুখপাত্র বলেন, আমরা অনেক সময়ই এ ধরনের দ্রæত সিদ্ধান্ত নেই। বিশেষ করে নিরাপত্তা ঝুকি থাকলে এ ধরনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। রাশিয়া কর্তৃক ইউক্রেন আক্রমণ ও করোনা পরিস্থিতির কারণে মার্কিন নাগরিক ও ক‚টনীতিক পরিবারগুলোকে ইউক্রেন ছাড়তে বলা হচ্ছে। অপর এক খবর বলা হয়, ইউক্রেনে ২০ কোটি মার্কিন ডলারের প্রায় ৯০ টন প্রাণঘাতী অস্ত্র পাঠিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। রাশিয়ার সঙ্গে চলমান উত্তেজনা যখন তুঙ্গে তখনই অস্ত্রের প্রথম চালান পাঠানো হলো। স¤প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের ইউক্রেনের জন্য বিশাল সামরিক সহায়তার বিলটি অনুমোদিত হয়। রাশিয়ার সম্ভাব্য আগ্রাসন প্রতিহত করতে ইউক্রেন সেনাবাহিনীর সামনের সারির যোদ্ধারা এই অস্ত্র ব্যবহার করবে। এ খবর দিয়েছে বিবিসি। খবরে বলা হয়, ইউক্রেন সীমান্তে প্রায় ১ লাখ সেনা মোতায়েন করেছে রাশিয়া। পশ্চিমা দেশগুলো আশঙ্কা করছে যে, রাশিয়া যে কোনো সময় ইউক্রেনে অভিযান চালাতে পারে। তাই ইউক্রেকে সহায়তায় এই বিশাল অস্ত্র সাহায্য পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। স¤প্রতি ইউক্রেন সফর করেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি বিøনকেন। এর পরপরই এই অস্ত্র এসে পৌঁছালো দেশটিতে। বিøনকেন হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, রাশিয়া কোনো ধরণের অভিযান চালালে তার ভয়াবহতম জবাব দেয়া হবে। যদিও রাশিয়া প্রথম থেকেই ইউক্রেনে হামলা করার পরিকল্পনার বিষয়টি অস্বীকার করে আসছে। গত ডিসেম্বর মাসে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ইউক্রেনের জন্য ২০০ মিলিয়ন ডলারের সামরিক সহায়তা ঘোষণা করেন। কিয়েভে অবস্থিত মার্কিন দূতাবাস জানিয়েছে, ইউক্রেনের স্বার্বভৌমত্ব রক্ষায় যুক্তরাষ্ট্র যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল অস্ত্রের এই চালান তারই বাস্তবায়ন। সামনের দিনগুলোতেও ইউক্রেনের স্বার্বভৌমত্ব রক্ষায় রাশিয়ার যে কোনো আগ্রাসন মোকাবেলায় সহায়তা দিয়ে যাবে যুক্তরাষ্ট্র। অস্ত্র সাহায্য পেয়ে যুক্তরাষ্ট্রকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন ইউক্রেনের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ওলেকসি রেজনিকভ। কিয়েভে অবস্থিত মার্কিন দূতাবাস শনিবার ফেসবুকে বিবৃতিতে জানিয়েছে, রুশ আগ্রাসনের বিরুদ্ধে ইউক্রেনের সার্বভৌমত্ব এবং আঞ্চলিক অখÐতা রক্ষার্থে দেশটির সশস্ত্র বাহিনীকে এই ধরনের সহায়তা যুক্তরাষ্ট্র ভবিষ্যতেও অবহ্যাত রাখবে। এমন বিপদে সামরিক সহায়তা পেয়ে যুক্তরাষ্ট্রকে ধন্যবাদ জানাতে ভুলনেনি ইউক্রেনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী। এদিকে, এস্তোনিয়া, লাটভিয়া এবং লিথুনিয়াও যুক্তরাষ্ট্রের তৈরি কামান বিধ্বংসী ট্যাংক, যুদ্ধবিমান পাঠাবে বলে জানিয়েছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্থনি বিøঙ্কেন। তাদের সহায়তাকে যুক্তরাষ্ট্র পুরোপুরি সমর্থন করে বলেও মন্তব্য করেন তিনি। আনাদোলু এজেন্সি, আল-জাজিরা।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন