রোববার, ২২ মে ২০২২, ০৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২০ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

থানায় জিডি করেও শেষ রক্ষা হয়নি পির আলীর

কালীগঞ্জ, (ঝিনাইদহ) উপজেলা সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ২৫ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:০১ এএম

প্রাণনাশের ভয়ে থানায় সাধারণ ডায়রি করেছিল পির আলী। ডায়েরির ২০ দিন পর লাশ পাওয়া গেল ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলায় কাষ্টভাঙ্গা ইউনিয়নের নলভাঙ্গা গ্রামের ছামছুলের ছেলে পির আলীর (৩৩)। গতকাল সকাল ৭ টার দিকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। সে কালীগঞ্জের কাস্ট ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের সদস্য প্রার্থী ছিল।
জানা যায়, গতকাল রোববার রাত ৮ টার দিকে বাড়ি থেকে বের হয় পীর আলী। এরপর আর ফিরে আসেননি। সকালে পথচারীরা বাড়ির পাশ্ববর্তি নলভাঙ্গা খালের ধারে মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দেয়। জানা যায়, ২০১৬ সালের নলভাঙ্গা গ্রামে মেয়েকে উত্যক্তের প্রতিবাদ করায় শাহিনুর রহমানের পা কেটে ফেলে স্থানীয় সন্ত্রাসীরা। এরপর বিভিন্ন দৈনিকে সংবাদ প্রকাশের পর আদালত থেকে স্বপ্রনোদিত হয়ে মামলা করা হয়। সেই মামলায় ঢাকা হাইকোর্ট থেকে ৭২ ঘন্টার মধ্যে আসামীদের আত্মসমর্পনের নির্দেশ দেন। এর প্রেক্ষিতে তারা আত্ম্নসমর্পন করে। সেই সময় থেকে পরবর্তী ৬ মাস শাহিনুরের বাড়িতে পুলিশী নিরাপত্তা ব্যবস্থা রাখা ছিল। এই মামলার ১নং সাক্ষী ছিল নিহত পীর আলী। আসামীরা জেল থেকে বেরিয়ে এসে পরী আালীকে নানাভাবে হুমকি ধামকি দিতে থাকে। এর কারনে বেশ কয়েক সপ্তাহ আগে পীর আলী নিজের জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে কালীগঞ্জ থানায় একটি সাধারণ ডায়েীর করেছিলেন। ধারনা করা হচ্ছে এই ঘটনার জেরে তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হতে পারে।
কালীগঞ্জ বারো বাজার পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ মকলেচুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, মৃতদেহটি একটি গাছের নিচে পড়ে ছিল। তার গলায় রশি পেঁচানো এবং একটি ডালের সাথেও রশি জড়ানো ছিল। তবে গায়ে তেমন কোন আঘাতের চিহ্ন নেই। তাই এটি হত্যা নাকি আত্নহত্যা তা নিশ্চিত হওয়ার জন্য ময়না তদন্তের জন্য মৃতদেহটি ঝিনাইদহ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন