বুধবার, ১৮ মে ২০২২, ০৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৬ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

আন্তর্জাতিক সংবাদ

মহামারী চলাকালীন পরিবারের পাশে জম্মুর ভাগা গ্রামের স্বনির্ভর মহিলারা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৪ জানুয়ারি, ২০২২, ১০:২৫ পিএম

জম্মুর ভাগা স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মেয়েরা পাটের ব্যাগ, কালিরার মতো ঐতিহ্যবাহী অলঙ্কার (এই অঞ্চলে বিবাহের সময় কনের কব্জির চারপাশে পরিধান করা হয়) এবং আরও অনেক কিছু তৈরি করে পরিবারের পাশে দাঁড়ায়। মহামারীর সময় মহিলাদের ঘরের ভিতরে থেকে তাদের পরিবারকে টিকিয়ে রাখতে সাহায্য করেছিল গ্রামীণ রিয়াসির স্থানীয় স্ব-সহায়করা।–নিউজ১৮

করোনভাইরাস মহামারীতে জম্মু ও কাশ্মীরের রিয়াসি জেলার ভাগা গ্রামের ১৭ বছর বয়সী শিল্পা সিংয়ের বাবা মঙ্গল সিংয়ের চাকরি চলে যায়।পরে তিনি তার পরিবারের জন্য উপার্জন করতে নিজেকে বেছে নেন। তিনি বলেন, ‘যখন মহামারীটি দেশে আঘাত হানে, তখন আমাদের মতো বেশ কয়েকটি শ্রমজীবী পরিবারকে অস্বস্তিতে ফেলে দেয়। কারণ, আমাদের পরিবারের একমাত্র উপার্জনকারী পিতারা তাদের চাকরি হারিয়েছিলেন’।

বাড়িতে আর্থিক সংকট এড়াতে তিনি স্থানীয় স্ব-সহায়ক গোষ্ঠীর সদস্য হওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। শিল্পা সিং বলেন, আমি খুশি যে স্ব-সহায়তা গোষ্ঠীর সদস্য হিসেবে বিক্রি করা পণ্য থেকে আয় আমার পরিবারকে মহামারীতে টিকিয়ে রেখেছে।

এই স্বনির্ভর গোষ্ঠীগুলি আজ অনেক মহিলাকে আশা দিয়েছে। ২০১৯ এর আগে ভাগা গ্রামের মহিলারা তাদের বাড়ির বাইরে কাজ করতেন না এবং তাদের প্রায় সমস্ত প্রয়োজনীয়তার জন্য তাদের স্বামীর উপর নির্ভর করতেন৷ উদ্যোগের সংক্ষিপ্ত বিবরণ দিতে গিয়ে স্বনির্ভর গোষ্ঠীর সদস্য জ্যোতি শর্মা বলেন, তৎকালীন জেলা প্রশাসকের সাফল্যের গল্পের স্মৃতিচারণের পরে, আমরা মসুর ডাল দিয়ে পাপড় তৈরি শুরু করার সাহস করেছিলাম। এবং এটি বেশ কয়েক মাস ধরে চলতে থাকে। প্রথম দিকে টাকা পাওয়া কঠিন ছিল। শর্মা বলেছিলেন, পাপড় তৈরি করে একজন মহিলা দোকানদারের কাছে বিক্রি করে প্রতিদিন প্রায় ২৫ টাকা উপার্জন করেন, যেটি তাকে ৭৫০ টাকা মাসিক আয়ের ব্যবস্থা করে দেয়।

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ সংক্রান্ত আরও খবর

গত ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন