শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৯ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

জাতীয় সংবাদ

‘মসজিদের ইমামদের জাতীয়করণের বিষয়টি বিবেচনায় আনা জরুরি’

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৭ জানুয়ারি, ২০২২, ১২:০২ এএম

চাকুরি জাতীয়করণ, ইমামদের ১ম শ্রেণীর নন ক্যাডার কর্মকর্তা ঘোষণা ও আবাসন সুবিধা দেয়াসহ ৬ দফা দাবিতে সভা করেছে বাংলাদেশ সরকারি কলেজ ইমাম-মুয়াজ্জিন ঐক্য পরিষদ। গতকাল জাতীয় প্রেসক্লাবের আব্দুস সালাম হলে বাংলাদেশ সরকারি কলেজ ইমাম-মুয়াজ্জিন ঐক্য পরিষদ আয়োজিত এসডিজি বাস্তবায়নে ধর্মীয় নেতাদের ভূমিকা শীর্ষক আলোচনা সভায় চাকুরি জাতীয়করণ করাসহ ৬ দফা তুলে ধরেন বক্তারা।

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বঙ্গবন্ধু জাদুঘর কিউরেটর ও সাবেক শিক্ষা সচিব নজরুল ইসলাম খান। তিনি বলেন, ইমাম-মুয়াজ্জিনদের সম্মানজনক বেতন, আবাসন প্রয়োজন। ইমামদের সুন্দর জীবন হলে আমাদের সমাজ সুন্দর হবে, আলোকিত হবে। কওমী মাদরাসার মাস্টার্স সমমানের স্বীকৃতি দেয়া বড় কঠিন কাজ ছিলো। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করে সাহসিকতা, দূরদর্শিতা দেখিয়েছেন। তিনি আলেম-উলামাদের সম্মান করেন। ইমাম-মুয়াজ্জিনদের কল্যাণে তিনি সবসময় কাজ করছেন। মসজিদের ইমামদের জাতীয়করণের বিষয়টি বিবেচনায় আনা হবে বলে আশাপ্রকাশ করেন তিনি।
ইমাম-মুয়াজ্জিনদের দাবিগুলো হলো- বাংলাদেশের সাড়ে তিনশ’ সরকারি কলেজ জামে মসজিদের সাড়ে পাঁচশ’ ইমাম-মুয়াজ্জিন ও খাদিমের চাকুরী জাতীয়করণ করা, মসজিদের ইমামদের ১ম শ্রেণীর নন ক্যাডার কর্মকর্তা, মুয়াজ্জিনদের ৩য় শ্রেণী ও খাদিমদের ৪র্থ শ্রেণীর পদমর্যাদা দেয়া, মসজিদ ব্যবস্থাপনা নীতিমালাকে সংশোধন ও পরিমার্জন করে ইমাম-মুয়াজ্জিনগণের কল্যাণার্থে একটি সুন্দর যুগোপযোগী নীতিমালা তথা সার্ভিস রুলস প্রণয়ন করা, সরকারি কলেজসমূহে ইমাম-মুয়াজ্জিনদের জন্য সম্মানজনক আবাসন ব্যবস্থা নিশ্চিত করা, সড়ক দূর্ঘটনা, অগ্নি দূর্ঘটনা বা যে কোনো দূর্ঘটনায় মৃত্যুবরণকারী ইমাম-মুয়াজ্জিনদের পরিবারের জন্য নগদ দশ লাখ টাকা আর্থিক অনুদানের ব্যবস্থা করা এবং ইমাম-মুয়াজ্জিন ট্রাস্টের জন্য দেশী-বিদেশী অনুদান সংগ্রহের মাধ্যমে পাঁচশ’ কোটি টাকায় উন্নীত করা।
মদীনাতুল উলুম মডেল ইন্সটিটিউট বালক কামিল মাদরাসা’র প্রিন্সিপাল বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ ও মিডিয়া ব্যক্তিত্ব মাওলানা মো. আব্দুর রাজ্জাকের সভাপতিত্বে এবং সংগঠনের কেন্দ্রীয় মহাসচিব হাফেজ মাওলানা মো. নাসিমের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন, ঐতিহাসিক শোলাকিয়া ঈদগাহ এর খতীব শায়খুল হাদীস মাওলানা ফরিদ উদ্দিন মাসউদ, ইমাম মুয়াজ্জিন ঐক্য পরিষদের কেন্দ্রীয় সভাপতি মাওলানা মোহাম্মদ এহসান উদ্দিন, দৈনিক ইনকিলাবের সহকারী সম্পাদক মাওলানা উবায়দুর রহমান খান নদভী, কোরআনের আলো ফাউন্ডেশন মহাসচিব হাফেজ কারী মাওলানা মুহীউদ্দিন, আহছানিয়া ইনস্টিটিউট সহকারী অধ্যাপক মুফতি মাওলানা শাঈখ মুহাম্মদ উসমান গণি ও সোবহানবাগ জামে মসজিদের ইমাম হাফেজ মাওলানা লিয়াকত হোসেন, মানিকগঞ্জ পৌরসভা মেয়র আলহাজ মো. রমজান আলী, আওয়ামী লীগ সভাপতির সাবেক সহকারী একান্ত সচিব ড. মো. আওলাদ হোসেন, ইসলামিক ফাউন্ডেশন গভর্ণর প্রিন্সিপাল ড. মাওলানা মুহাম্মদ কফিল উদ্দিন সরকার সালেহী, মাওলানা রবিউল ইসলাম ও মাওলানা আব্দুল আলিম।
মাওলানা ফরিদ উদ্দিন মাসউদ বলেন, জাতীয় উন্নয়নে মসজিদের ইমামগণের অবদান অতুলনীয়। নীতি, নৈতিকতা, মূল্যবোধ শিক্ষাসহ জাতির যেকোন ক্রান্তিকালে মসজিদের ইমামদের ভূমিকা অগ্রগণ্য।
সামাজিক ও অর্থনৈতিক মূল্যায়নের দিক থেকে ইমাম মুয়াজ্জিনদেরকে স্বাবলম্বী করতে পারলে দেশ বহুদূর এগিয়ে যাবে। আর এ কাজটি করতে পারবেন বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

 

Thank you for your decesion. Show Result
সর্বমোট মন্তব্য (0)

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন